বলাৎকার: ৯৯৯ এ কলে কওমি শিক্ষক গ্রেপ্তার

বলাৎকার: ৯৯৯ এ কলে কওমি শিক্ষক গ্রেপ্তার

ময়মনসিংহে শিশুকে বলাৎকারের মামলায় মাদ্রাসা পরিচালক ফরিদকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। জাতীয় জরুরি নম্বর ৯৯৯-এ কল পেয়ে শনিবার শিশুটিকে উদ্ধার ও ফরিদকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ময়মনসিংহের ত্রিশালে মাদ্রাসায় শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগে প্রতিষ্ঠান পরিচালক মুফতি ফরিদ আহম্মেদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তারের পর তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ময়মনসিংহের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোমবার দুপুরে ফরিদকে হাজির করা হলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। ত্রিশাল থানায় রোববার শিশুটির মা মামলা করেন।

এর আগে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ কল পেয়ে শনিবার শিশুটিকে উদ্ধার ও পরিচালক ফরিদকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে নিউজবাংলাকে জানিয়েছেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মাঈন উদ্দিন।

মামলার বরাত দিয়ে ওসি জানান, কওমি শিক্ষক ফরিদ গত এপ্রিল মাস থেকে শিশুটিকে বলাৎকার করছিলেন। গত শনিবার রাত ১১টার দিকে তিনি আবারও বলাৎকারের চেষ্টা করলে শিশুটি বাধা দেয়। এরপরও ভয়ভীতি দেখিয়ে তিনি শিশুটিকে বলাৎকার করেন।

তিনি আরও জানান, ঘটনার পর রাতেই শিশুটি মাদ্রাসা থেকে বের হয়ে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এ কল দিলে ত্রিশাল থানা পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। মাদ্রাসার পরিচালক ফরিদকেও গ্রেপ্তার করা হয়।

আরও পড়ুন:
শিশু বলাৎকারের অভিযোগে নরসুন্দর গ্রেপ্তার
বলাৎকারের পর মাদ্রাসায় ডেকে মারধর, মেলেনি জামিন
শিক্ষার্থীদের বলাৎকার:  স্কুলশিক্ষক কারাগারে
মাদ্রাসায় শিশু বলাৎকার, হেফাজত নেতা গ্রেপ্তার
শিশু বলাৎকারের অভিযোগে ৩ যুবক কারাগারে

শেয়ার করুন

মন্তব্য