পুলিশ পরিচয়ে অটোরিকশাচালককে মারধর

পুলিশ পরিচয়ে অটোরিকশাচালককে মারধর

অটোরিকশা চালককে মারধরে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য পরিচয় দেয়া ব্যক্তি। ছবি: নিউজবাংলা

সেলিম বলেন, ‘বারবার তারা নিজেদের পুলিশ পরিচয় দেয়। কিন্তু তাদের শরীরে পুলিশের পোশাক ছিল না। আমি বারবার মাফ চাইছি, তারপরও মারা হইছে আমাকে।’

বরিশালে পুলিশ পরিচয়ে এক অটোরিকশাচালককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এদের একজন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশে কর্মরত জানা গেলেও তাদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বরিশাল নগরীর জিলা স্কুল মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মারধরের শিকার অটোরিকশাচালক মোহাম্মদ সেলিম নগরীর এয়ারপোর্ট থানা এলাকার বাসিন্দা।

তিনি বলেন, 'রুপাতলী বাস টার্মিনাল থেকে যাত্রী নিয়ে সদর রোডের দিকে আসছিলাম। এ সময় জিলা স্কুলের মোড় পার হওয়ার সময় অপরদিক থেকে আসা একটি মোটরসাইকেলের সঙ্গে সংঘর্ষ হতে ধরে। এতে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে প্রথমে আমার অটো গাড়ির চাবি নিয়ে যায়। তারপর আমাকে মারধর করে, গালাগাল করে।

সেলিম বলেন, ‘বারবার তারা নিজেদের পুলিশ পরিচয় দেয়। কিন্তু তাদের শরীরে পুলিশের পোশাক ছিল না। আমি বারবার মাফ চাইছি, তারপরও মারা হইছে আমাকে।’

স্থানীয় লোকজন জানান, মারধরের সময় পুলিশসদস্য পরিচয় দেয়া ওই দুজন নিজেদের নাম না বললেও বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশে কর্মরত রয়েছেন বলে জানান।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (দক্ষিণ) মোকতার হোসেন বলেন, 'বিষয়টি আমরা এখনও জানি না। খোঁজ নিয়ে দেখছি কী হয়েছে সেখানে। কারা করেছে সেটিও দেখছি।’

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার শাহাবুদ্দিন খান বলেন, ‘অপেশাদার আচরণ যারা করবে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ভিডিও এবং ছবি পর্যালোচনা করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। তাছাড়া বাংলাদেশ পুলিশে অপেশাদার আচরণকারীদের কোনো সুযোগ নেই।’

আরও পড়ুন:
ঘুষ দাবি: দুই বনপ্রহরীকে পিটুনি
থানায় সালিশের সময় ওসির ‘মারধর’, দুইদিন পর মৃত্যু
গ্রাম পুলিশকে পেটালেন সাবেক চেয়ারম্যান
চাঁদা না পেয়ে মাছ কেড়ে নিলেন ছাত্রলীগ নেতা
বাবা-ছেলেকে পেটালেন চেয়ারম্যান

শেয়ার করুন

মন্তব্য