শিল্পীদের অনুদান নিয়ে খুলনায় বিতর্ক

শিল্পীদের অনুদান নিয়ে খুলনায় বিতর্ক

করোনা পরিস্থিতিতে সরকার খুলনার কর্মহীন শিল্পী, কলাকুশলী ও কবি-সাহিত্যিকদের জন্য কিছু আর্থিক সহায়তা ঘোষণা করেছে। প্রায় ৩০ লাখ টাকা দেয়া হয়েছে শিল্পীদের কল্যাণে। কিন্তু খুলনায় যে ২৯৯ জন শিল্পীর তালিকা করা হয়েছে, সেখানে চায়ের দোকানদার, কৃষক ও এনজিওকর্মী রয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

করোনা পরিস্থিতিতে খুলনায় কর্মহীন শিল্পী, কলাকুশলী ও কবি-সাহিত্যিকদের সরকারি অনুদানের অর্থ বরাদ্দ হয়েছে। কিন্তু সহায়তার তালিকা প্রণয়নে অনিয়মের অভিযোগ তুলেছেন বঞ্চিত শিল্পীরা। তারা বলছেন, তালিকায় কৃষক, এনজিওকর্মী, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যানসহ অনেকের নাম দেয়া হয়েছে, যারা শিল্পী নন।

খুলনা প্রেস ক্লাবে বুধবার সংবাদ সম্মেলনে শিল্পী তালিকা নিয়ে অভিযোগ তোলা হয়। স্বচ্ছ তালিকা করে নতুন করে অর্থ বরাদ্দের দাবি জানান বেশ কয়েকজন শিল্পী। তারা সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বাইরের লোকদের সরিয়ে শিল্পকলা একাডেমির নির্বাচনেরও দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলন লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন খুলনা সাংস্কৃতিক আন্দোলন সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক মোকলেসুর রহমান বাবলু।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল থেকে ২৯ লাখ ৯০ হাজার টাকা দেয়া হয়েছে। এ জন্য খুলনায় যে ২৯৯ জন শিল্পীর তালিকা করা হয়েছে তা অস্বচ্ছ। তালিকায় যাদের নাম রাখা হয়েছে তাদের বেশির ভাগই অনুদান পাওয়ার যোগ্য নন। ২৯৯ জনের মধ্যে ১১৯ জনই শুধু বটিয়াঘাটা উপজেলার।’

তালিকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘তালিকায় চারজন ব্যক্তি রয়েছেন, যাদের ঠিকানা, মোবাইল নম্বর ও এনআইডি ব্যবহার করা হয়েছে একটি। চায়ের দোকানদারও রয়েছেন অনুদান পাওয়ার তালিকায়। এছাড়া শিল্পী তালিকায় রয়েছেন কৃষক, এনজিওকর্মী, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও গৃহিণী। অথচ প্রকৃত শিল্পীরা মানবেতর জীবন যাপন করছেন।’

দ্রুত বিতর্কিত তালিকা বাদ দিয়ে নতুন তালিকার মাধ্যমে অর্থ প্রদানের দাবি জানান শিল্পীরা।

আরও পড়ুন:
অনিয়ম: বিদ্যুতের সাব-স্টেশন নির্মাণ বন্ধ করে দিল স্থানীয়রা
ভিজিডির কার্ডে অনিয়ম, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ
শিল্পীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কাদের হাতে
খামারিদের পৌনে দুই কোটি টাকা প্রণোদনায় অনিয়ম
জেলেদের সহায়তা তালিকায় অনিয়মের সত্যতা মিলল

শেয়ার করুন

মন্তব্য

মাদক রোধে সংস্কৃতিকর্মীদের ভূমিকা প্রয়োজন: খাদ্যমন্ত্রী

মাদক রোধে সংস্কৃতিকর্মীদের ভূমিকা প্রয়োজন: খাদ্যমন্ত্রী

সাপাহারে বৃহস্পতিবার উন্নয়ন কর্মসূচির প্রণোদনা বিতরণ করেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। ছবি: নিউজবাংলা

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, নিজের চিন্তাচেতনা স্বচ্ছ রাখার পাশাপাশি বাল্যবিবাহ ও মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে সংস্কৃতিকর্মীদের ভূমিকা রাখা প্রয়োজন। সংস্কৃতিবান্ধব বর্তমান সরকার সংস্কৃতিকর্মীদের বিষয়ে আন্তরিক। সংস্কৃতিমনা প্রজন্ম গড়ে তুলতে হবে।

মাদক রোধে সংস্কৃতিকর্মীদের ভূমিকা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নওগাঁর সাপাহার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচির প্রণোদনা বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, নিজের চিন্তাচেতনা স্বচ্ছ রাখার পাশাপাশি বাল্যবিবাহ ও মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে সংস্কৃতিকর্মীদের ভূমিকা রাখা প্রয়োজন। সংস্কৃতিবান্ধব বর্তমান সরকার সংস্কৃতিকর্মীদের বিষয়ে আন্তরিক। সংস্কৃতিমনা প্রজন্ম গড়ে তুলতে হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধি, বিবাহ রেজিস্ট্রার ও প্রশাসনকে সোচ্চার হতে হবে। বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানো প্রয়োজন।

মাদকের ভয়াল থাবা সমাজকে পঙ্গু করে দিচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, যুব সমাজকে রক্ষা করতে মাদক রুখতে হবে। বাল্যবিবাহ ও মাদকের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স ভূমিকা গ্রহণে প্রশাসনসহ সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

এ বিষয়ে প্রশাসনকে পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশনা দেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, করোনা মহামারিতে দেশে খাদ্যসংকট হয়নি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনাকালে ক্ষতিগ্রস্ত সব সেক্টরে প্রণোদনা দিয়েছেন। মানুষের জীবন-জীবিকা স্বাভাবিক রেখেছেন। খাদ্যের অভাব হলে ৩৩৩ নম্বরে ফোন দিলে দরিদ্রদের খাদ্য পৌঁছে দেয়া হয়েছে। দরিদ্রদের মোবাইলে সহায়তার টাকা পৌঁছে গেছে। এটাই বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ, শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্যাহ আল মামুন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান শাহাজান আলী মন্ডল, আওয়ামী লীগের সভাপতি শামসুল আলম চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী, সহকারী পুলিশ সুপার বিনয় কুমার সরকার ও উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা আমেনা খাতুন ।

পরে মন্ত্রী উপজেলা পরিষদ মুক্তমঞ্চ উদ্বোধন করেন।

আরও পড়ুন:
অনিয়ম: বিদ্যুতের সাব-স্টেশন নির্মাণ বন্ধ করে দিল স্থানীয়রা
ভিজিডির কার্ডে অনিয়ম, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ
শিল্পীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কাদের হাতে
খামারিদের পৌনে দুই কোটি টাকা প্রণোদনায় অনিয়ম
জেলেদের সহায়তা তালিকায় অনিয়মের সত্যতা মিলল

শেয়ার করুন

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে ৩ যুবক আটক

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে ৩ যুবক আটক

আড়াইহাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক জোবায়ের হোসেন জানান, সকাল ১০টা থেকে শিশুটিকে পাওয়া যাচ্ছিল না। পরিবারের লোকজন তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করে। একপর্যায়ে শিশুটির বাবা পুরিন্দা এলাকার নান্নু মিয়ার তালাবদ্ধ ঘরের জানালা দিয়ে তার বিবস্ত্র দেহ পড়ে থাকতে দেখেন।

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

আড়াইহাজার উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের পুরিন্দা বড় বাড়ি এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এরপরই তাদের সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করে থানায় নেয় পুলিশ।

আটক তিনজন হলেন মো. সামাদ, মো. সোহেল ও মো. শিমুল।

আড়াইহাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক জোবায়ের হোসেন নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, সকাল ১০টা থেকে শিশুটিকে পাওয়া যাচ্ছিল না। পরিবারের লোকজন তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করে। একপর্যায়ে শিশুটির বাবা পুরিন্দা এলাকার নান্নু মিয়ার তালাবদ্ধ ঘরের জানালা দিয়ে তার বিবস্ত্র দেহ পড়ে থাকতে দেখেন।

পুলিশ গিয়ে শিশুটির গলায় গামছা বাঁধা ও বেল্ট দিয়ে দুই পা বাঁধা রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে।

পুলিশ পরিদর্শক জানান, ধারণা করা হচ্ছে, শিশুটিকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ সদর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সন্দেহভাজন হিসেবে তিনজনকে আটক করে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন:
অনিয়ম: বিদ্যুতের সাব-স্টেশন নির্মাণ বন্ধ করে দিল স্থানীয়রা
ভিজিডির কার্ডে অনিয়ম, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ
শিল্পীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কাদের হাতে
খামারিদের পৌনে দুই কোটি টাকা প্রণোদনায় অনিয়ম
জেলেদের সহায়তা তালিকায় অনিয়মের সত্যতা মিলল

শেয়ার করুন

জনগণের চাওয়া অনুযায়ী ভোটের পরিবেশ

জনগণের চাওয়া অনুযায়ী ভোটের পরিবেশ

আখাউড়া উপজেলা পরিষদ মাঠে বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগের জনসভায় বক্তব্য দেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। ছবি: নিউজবাংলা

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। ভোট দিয়ে প্রমাণ করতে হবে, আপনারা গণতন্ত্র চান। ভোটের জন্য জনগণ যেভাবে চায় সেভাবে পরিবেশ করে দেয়া হবে।’

আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জনগণ যেভাবে চায় ভোটের পরিবেশ সেভাবে করে দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলা পরিষদ মাঠে আওয়ামী লীগের জনসভায় তিনি এ আশ্বাস দেন।

উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভবন, সেতু ও সড়ক নির্মাণসহ ৩৮টি প্রকল্পের উদ্বোধন উপলক্ষে এ জনসভার আয়োজন করা হয়।

মন্ত্রী বলেন, ‘আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। ভোট দিয়ে প্রমাণ করতে হবে, আপনারা গণতন্ত্র চান। ভোটের জন্য জনগণ যেভাবে চায় সেভাবে পরিবেশ করে দেয়া হবে।’

সমাবেশে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, ‘ষড়যন্ত্রে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হারিয়েছি। আর ষড়যন্ত্র করতে দেয়া হবে না। সব ষড়যন্ত্র প্রতিহত করা হবে।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে মানবিক কারণে বাসায় দেয়া হয়েছে। তিনি কোভিড আক্রান্ত হলে চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে যান। ডাক্তাররা ওনাকে (খালেদা জিয়া) ভালো করেছেন।

‘বিএনপি এখনও বলছে আমরা নাকি ভয় পাই। তাই খালেদা জিয়াকে বিদেশ যেতে দেই না। দেশের চিকিৎসায় যদি তিনি ভালো হন, তাহলে কেন বিদেশ যাবেন। আমরা যদি দেশেই মানুষকে সুস্থ করতে পারি, তাহলে বিদেশে যাওয়ার কি দরকার আছে, আপনারাই বলেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘লকডাউনে যারা ঘর থেকে বের হতে পারেননি, সবার জন্য প্রণোদনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সবার জন্য এক লাখ ৩২ হাজার কোটি টাকার বেশি প্রণোদনা দেয়া হয়েছে।’

জনসভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ জয়নাল আবেদীন।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন আখাউড়া পৌরসভার মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা আক্তার, বীর মুক্তিযোদ্ধা জমসেদ শাহ্, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান পিয়ারা আক্তার পিওনা, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহাব উদ্দিন বেগ শাপলু ও সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন নয়ন।

উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, মন্ত্রীর একান্ত সচিব নূর কুতুবুল আলম, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফিরোজুর রহমান, কসবা উপজেলা চেয়ারম্যান রাশেদুল কায়সার ভূঁইয়া জীবনসহ অনেকে।

আরও পড়ুন:
অনিয়ম: বিদ্যুতের সাব-স্টেশন নির্মাণ বন্ধ করে দিল স্থানীয়রা
ভিজিডির কার্ডে অনিয়ম, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ
শিল্পীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কাদের হাতে
খামারিদের পৌনে দুই কোটি টাকা প্রণোদনায় অনিয়ম
জেলেদের সহায়তা তালিকায় অনিয়মের সত্যতা মিলল

শেয়ার করুন

বাসচালক হত্যা মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান রিমান্ডে

বাসচালক হত্যা মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান রিমান্ডে

নড়াইল সদর উপজেলার আউড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পলাশ মোল্লা। ছবি: নিউজবাংলা

নিহত বাসচালক লিয়াকত শিকদারের স্ত্রী মামলার বাদী আসমা খাতুন জানান, তাদের বাড়ি নড়াইল শহরের পাশের সীমাখালী গ্রামে। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জেরে গত ২৮ আগস্ট তার স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

নড়াইলে বাসচালক হত্যা মামলার প্রধান আসামি সদর উপজেলার এক ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানকে তিন দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত।

সদর আমলি আদালতের বিচারক হেলাল উদ্দিন বুধবার দুপুর দুইটার দিকে আউড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান পলাশ মোল্লাকে রিমান্ডে পাঠান।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার ওসি তুষার কুমার মণ্ডল পলাশের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছিলেন।

নিহত বাসচালক লিয়াকত শিকদারের স্ত্রী মামলার বাদী আসমা খাতুন নিউজবাংলাকে জানান, তাদের বাড়ি নড়াইল শহরের পাশের সীমাখালী গ্রামে। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জেরে গত ২৮ আগস্ট তার স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় তিনি ১৭ জনের নামে ও অজ্ঞাতপরিচয় ৪ থেকে ৫ জনকে আসামি করে সদর থানায় হত্যা মামলা করেন।

ওসি তুষার জানান, প্রথমে সীমাখালী গ্রাম থেকে এই মামলার আসামি নাসিম শিকদারকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর গত সোমবার রাতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে পুলিশ পলাশসহ আরও তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করে।

তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী চেয়ারম্যান পলাশের বাড়ির পাশের ডোবা থেকে হত্যায় ব্যবহৃত দুটি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় পলাশ বাদে গ্রেপ্তার বাকি তিনজনই ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে। শনিবার থেকে পলাশকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

আরও পড়ুন:
অনিয়ম: বিদ্যুতের সাব-স্টেশন নির্মাণ বন্ধ করে দিল স্থানীয়রা
ভিজিডির কার্ডে অনিয়ম, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ
শিল্পীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কাদের হাতে
খামারিদের পৌনে দুই কোটি টাকা প্রণোদনায় অনিয়ম
জেলেদের সহায়তা তালিকায় অনিয়মের সত্যতা মিলল

শেয়ার করুন

ওমানেও ব্যাংক লুট করেন শামীম, খেটেছেন জেলও

ওমানেও ব্যাংক লুট করেন শামীম, খেটেছেন জেলও

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন বলেন, শামীম ও জাহির দীর্ঘদিন দুবাইয়ে থাকা অবস্থায় তাদের মধ্যে সখ্য গড়ে ওঠে। একসময় দুজনই দেশে ফিরে চুরি, ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপকর্মে জড়িয়ে যান। শেরপুরে এটিএম বুথ লুটের ঘটনাটিও শামীম ও জাহিরের পরিকল্পনাতেই হয়।

সিলেটের ওসমানীনগরে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের (ইউসিবি) এটিএম বুথ লুটের ঘটনায় গ্রেপ্তার শামীম আহমেদ ওমানে থাকাকালেও ব্যাংকের এটিএম লুটে জড়িত ছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সেখানে এটিএম বুথ লুটে জড়িত থাকায় তাকে ৮ বছর জেলও খাটতে হয়।

নিজ কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এমন তথ্য জানিয়েছেন সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন।

শামীম আহমদ ও সাফি উদ্দিন জাহিরের পরিকল্পনায়ই ওসমানীনগর উপজেলার শেরপুরে ইউসিবি’র এটিএম বুথ লুট করা হয় বলে জানান তিনি।

এদের মধ্যে শামীমকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ ও জাহিরকে সিলেট জেলা গোয়েন্দা পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন বলেন, শামীম ও জাহির দীর্ঘদিন দুবাইয়ে থাকা অবস্থায় তাদের মধ্যে সখ্য গড়ে ওঠে। একসময় দুজনই দেশে ফিরে চুরি, ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপকর্মে জড়িয়ে যান। শেরপুরে এটিএম বুথ লুটের ঘটনাটিও শামীম ও জাহিরের পরিকল্পনাতেই হয়।

তিনি বলেন, শামীম একসময় ওমানে থাকা অবস্থায় সেখানকার স্থানীয় ব্যাংকের এটিএম বুথ ডাকাতির ঘটনায় ৮ বছর কারাবাস করেন। শেরপুরের ঘটনার পরেও তিনি বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে শামীমের বাসা তল্লাশি করে ঘটনায় ব্যবহৃত তার মোটরসাইকেল এবং পাসপোর্ট জব্দ করা হয়েছে।

ওসমানীনগর উপজেলার শেরপুর পশ্চিম বাজারের ইউসিবিএলের এটিএম বুথে গত ১৩ সেপ্টেম্বর ভোররাতে ডাকাতির এ ঘটনা ঘটে। চার মুখোশধারী বুথে ঢুকে নিরপত্তাকর্মীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। পরে তাকে বেঁধে ২৪ লাখ ২৫ হাজার ৫০০ টাকা লুট করে।

বুথের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, ডাকাতদের মধ্যে তিনজনের মাথায় লাল কাপড় বাঁধা ছিল, একজনের মাথায় ছিল টুপি।

ব্যাংক কর্তৃপক্ষ এ ঘটনায় মামলা করলে আসামিদের গ্রেপ্তারে ওসমানীনগর থানা পুলিশ ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার ইউনিটের কাছে সহযোগিতা চায়।

তদন্তের পর ঢাকা থেকে নূর মোহাম্মদ নামের এক দর্জিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে হবিগঞ্জের হাওর এলাকা থেকে ডাকাতির ঘটনায় শামীম আহম্মেদ ও তার সহযোগী আব্দুল হালিমকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বুধবার ডিএমপির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (ডিবি উত্তর) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানান, এটিএম ব্যাংক লুটের ঘটনায় ঢাকার বিভিন্ন এলাকা থেকে শামীম আহমেদ, নুর মোহাম্মদ সেবুল ও আব্দুল হালিমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ১০ লাখ ৮ হাজার টাকা, দুটি মোবাইল ফোন, একটি ছুরি ও মাথায় ব্যবহারের তিনটি কাপড়ের টুকরা জব্দ করা হয়েছে।

এই তিনজন ও সিলেট জেলা ডিবি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার জাহিরকে ৪ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেটের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে তোলা হলে তাদের রিমান্ডে পাঠান বিচারক মাহবুবুল হক ভুঁইয়া।

এর আগে সংবাদ সম্মেলনে সিলেটের পুলিশ সুপার জানান, বুধবার সন্ধ্যায় হবিগঞ্জ থেকে জাহিরকে গ্রপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন বলেন, ‘ব্যাংক এটিএম লুটের ঘটনা দেশে বিরল। ব্যাংকের কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভেঙে এ ধরনের লুট আমাদের বিস্মিত করেছে। এ ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে সে জন্য ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে ডিজিটাল নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
অনিয়ম: বিদ্যুতের সাব-স্টেশন নির্মাণ বন্ধ করে দিল স্থানীয়রা
ভিজিডির কার্ডে অনিয়ম, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ
শিল্পীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কাদের হাতে
খামারিদের পৌনে দুই কোটি টাকা প্রণোদনায় অনিয়ম
জেলেদের সহায়তা তালিকায় অনিয়মের সত্যতা মিলল

শেয়ার করুন

কুষ্টিয়া হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়কের নামে দুদকের মামলা

কুষ্টিয়া হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়কের নামে দুদকের মামলা

কুষ্টিয়া দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক জাকারিয়া জানান, আসামিরা পরিকল্পিতভাবে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বাজারদরের চেয়ে বেশি দামে কুষ্টিয়া হাসপাতালের জন্য যন্ত্রপাতি কেনেন। এর মাধ্যমে তারা ওই সময় সরকারি ১ কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেন।

ক্রয়নীতি লঙ্ঘন করে সরকারি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়ক ও ঠিকাদারসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

কুষ্টিয়া দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে মামলাটি রেকর্ড করা হয়। দণ্ডবিধির ৪০৯/১০৯ ও ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় অভিযোগ এনে মামলাটি করেছেন দুদকের ঢাকা প্রধান কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক মো. সহিদুর রহমান।

মামলার তিন আসামি হলেন কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবু হাসানুজ্জামান, মহাখালীর নিমিউ অ্যান্ড টিসির সাবেক অ্যাসিসট্যান্ট রিপিয়ার কাম ট্রেনিং ইঞ্জিনিয়ার এ এইচ এম আব্দুস কুদ্দুস এবং রাজশাহীর মেসার্স প্যারাগন এন্টারপ্রাইজের মালিক ঠিকাদার জাহেদুল ইসলাম।

কুষ্টিয়া দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক জাকারিয়া জানান, আসামিরা পরিকল্পিতভাবে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বাজারদরের চেয়ে বেশি দামে কুষ্টিয়া হাসপাতালের জন্য যন্ত্রপাতি কেনেন। এর মাধ্যমে তারা ওই সময় সরকারি ১ কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেন।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় দুদক প্রধান কার্যালয় মামলার অনুমতি দিয়েছে। এখন পূর্ণ তদন্ত শুরু হবে। দুদকের এসব মামলার বিচার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অধীনে হয়। এ জন্য আদালতকেও মামলার নথি দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
অনিয়ম: বিদ্যুতের সাব-স্টেশন নির্মাণ বন্ধ করে দিল স্থানীয়রা
ভিজিডির কার্ডে অনিয়ম, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ
শিল্পীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কাদের হাতে
খামারিদের পৌনে দুই কোটি টাকা প্রণোদনায় অনিয়ম
জেলেদের সহায়তা তালিকায় অনিয়মের সত্যতা মিলল

শেয়ার করুন

ধর্ষণ মামলায় বাবা কারাগারে

ধর্ষণ মামলায় বাবা কারাগারে

প্রতীকী ছবি।

আদালত পরিদর্শক প্রসূন কান্তি দাস জানান, মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে স্ত্রীর করা মামলায় আসামিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। এ ছাড়া ওই মেয়েকে পরিবারের জিম্মায় রেখে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় মেয়েকে ধর্ষণের মামলায় এক ব্যক্তিকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। সেই সঙ্গে ওই কিশোরীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ময়মনসিংহের মুখ্য বিচারিক হাকিমের ২ নম্বর আমলি আদালতের বিচারক রওশন জাহান বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে এ নির্দেশ দেন।

বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন আদালত পরিদর্শক প্রসূন কান্তি দাস।

তিনি বলেন, ‘মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে স্ত্রীর করা মামলায় আসামিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। এ ছাড়া ওই মেয়েকে পরিবারের জিম্মায় রেখে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’

মামলার বরাতে মুক্তাগাছা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) চাঁদ মিয়া জানান, ২০২০ সালের ১০ আগস্ট ওই কিশোরীর মা তার দুই মেয়েকে রেখে বাবার বাড়ি যান। ওই রাতে ১৩ বছরের মেয়েকে ধর্ষণ করেন তার বাবা। ভয়ে সে সময় বিষয়টি গোপন রাখে ওই কিশোরী।

এরপর চলতি বছরের ১৩ সেপ্টেম্বর ওই গৃহবধূ ফের বাবার বাড়ি গেলে রাতে মেয়ের ঘরে ঢুকে তার স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন বাবা। মেয়ে টের পেয়ে চিৎকার করলে ঘর থেকে বেরিয়ে যান তিনি।

পরদিন বাবার বাড়ি থেকে ফিরলে মেয়ে তার মাকে সব জানায়। পরে স্বজনদের সঙ্গে পরামর্শ করে বুধবার বেলা ২টার দিকে মুক্তাগাছা থানায় মামলা করেন কিশোরীর মা।

ওই দিন অভিযান চালিয়ে বিকেল ৫টার দিকে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

আরও পড়ুন:
অনিয়ম: বিদ্যুতের সাব-স্টেশন নির্মাণ বন্ধ করে দিল স্থানীয়রা
ভিজিডির কার্ডে অনিয়ম, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ
শিল্পীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কাদের হাতে
খামারিদের পৌনে দুই কোটি টাকা প্রণোদনায় অনিয়ম
জেলেদের সহায়তা তালিকায় অনিয়মের সত্যতা মিলল

শেয়ার করুন