নকল সনদে ডাক্তারি, অবশেষে কারাগারে

নকল সনদে ডাক্তারি, অবশেষে কারাগারে

ভুয়া সনদ দেখিয়ে চিকিৎসা দেয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার এমকেএইচখান বিজয়।

র‍্যাব কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান জানান, ভুয়া সার্টিফিকেট বানিয়ে ডাক্তার সেজে হাসপাতাল দিচ্ছেন বিজয় এমন খবরে অর্থোপেডিক অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতালে অভিযান চালায় র‍্যাব। সেখানে গিয়ে বিজয়কে পাওয়া যায়। তিনি জাতীয় পরিচয়পত্র ও ডাক্তারি সার্টিফিকেটসহ যেসব কাগজপত্র দেখান তার সবই নকল।

কুষ্টিয়ায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে নকল সনদে চিকিৎসক পরিচয় দেয়ার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। একইসঙ্গে হাসপাতালটি যে বাড়িতে অবস্থিত সেটির মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সবুজ হাসানের ভ্রাম্যমাণ আদালত এ সাজা দেন।

সাজাপ্রাপ্ত এমকেএইচখান বিজয় সিলেটের বাসিন্দা।

র‌্যাবের কমান্ডার মাহফুজুর রহমান জানান, ভুয়া সার্টিফিকেট বানিয়ে ডাক্তার সেজে হাসপাতাল দিচ্ছেন বিজয় এমন খবরে অর্থোপেডিক অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতালে অভিযান চালায় র‍্যাব। সেখানে গিয়ে বিজয়কে পাওয়া যায়। তিনি জাতীয় পরিচয়পত্র ও ডাক্তারি সার্টিফিকেটসহ যেসব কাগজপত্র দেখান তার সবই নকল।

র‍্যাব কমান্ডার বলেন, ‘হাসপাতালটিতে অপারেশন থিয়েটার, কেবিন, বেড সবই আছে। তবে অভিযানের সময় বিজয়কে ছাড়া আর কাউকে পাওয়া যায়নি। তিনি ভুয়া সনদ দেখিয়ে চার বছর ধরে কুষ্টিয়ায় মানুষকে চিকিৎসা দিয়েছেন।’

কমান্ডার আরও জানান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সবুজ হাসান ভ্রাম্যমাণ আদালতে তার দুই বছরের কারাদণ্ড দেন। একই সঙ্গে অপরাধে সহযোগিতা করায় বাড়ি মালিক সায়েদুল ইসলামকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেন।

আরও পড়ুন:
ইন্টার পাস ‘বিশেষজ্ঞ ডাক্তার’

শেয়ার করুন

মন্তব্য