নিজ ঘরে কিশোরের গলাকাটা মরদেহ

সালাউদ্দীনের স্বজনদের বিলাপ। ছবি: নিউজবাংলা

নিজ ঘরে কিশোরের গলাকাটা মরদেহ

‘কে বা কারা হত্যায় জড়িত এবং কী কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা খুঁজে বের করতে পুলিশ মাঠে নেমেছে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।’

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কাশেমপুর মালিপাড়া এলাকায় নিজের ঘর থেকে সালাউদ্দীন আহমেদ নামে এক কিশোরের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার দুপুরে স্থানীয়দের কাছ থেকে তথ্য পেয়ে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে। সেখান থেকে হত্যায় ব্যবহৃত একটি ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

স্থানীয়দের ধারণা, কিশোরদের মধ্যে কোন্দলের জেরে প্রাণ দিতে হয়েছে সালাউদ্দীনকে।

নিহতের বাবা বাবু সরদার জানান, গত রাতে সালাউদ্দীন ও তার বন্ধু রসুলপুরের সাগর হোসেন একই কক্ষে ছিল। দুপুরের দিকে সাগরের বাবা সহিদুল ইসলাম তাকে সালাউদ্দীনের খোঁজ নিতে বলেন। তিনি তখন বাড়িতে গিয়ে তার ছেলের মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন।

সালাউদ্দীনকে রাতে সাগর হোসেনই হত্যা করেছে, এমন অভিযোগ করে তার বিচার দাবি করেছেন নিহতের বোন রীতামনি। তিনি বলেন, সব সময় একসঙ্গে ঘুরত সাগর ও সালাউদ্দীন।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, সাগর ও সালাউদ্দীনের নেতৃত্বে এলাকায় একটা ‘কিশোর গ্যাং’ গড়ে উঠেছে। তারা নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড করে বেড়াত।

সাতক্ষীরা সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. বুরহানউদ্দিন বলেন, ‘সাগর ও সালাউদ্দিন মাদকাসক্ত। মাদকের ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে সাগর তার বন্ধু সালাউদ্দিনকে গলা কেটে হত্যা করতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।’

এ ঘটনায় রসুলপুরের রফিকুল ইসলাম নামের একজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। সাগরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শামসুল হক শামস ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন, ‘কে বা কারা হত্যায় জড়িত এবং কী কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা খুঁজে বের করতে পুলিশ মাঠে নেমেছে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।’

সিটি কলেজ এলাকায় কিশোরদের অপরাধমূলক তৎপরতায় জড়িয়ে পড়ার বিষয়ে স্থানীয়দের অভিযোগ প্রসঙ্গে পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘ওই এলাকায় একটি কিশোর গ্যাং গড়ে উঠেছে বলে শোনা যাচ্ছে। সালাউদ্দীন হত্যায় বিষয়টি সামনে এসেছে। এটি পুলিশের মাথায় রয়েছে।’

আরও পড়ুন:
পাটক্ষেতে কৃষকের মরদেহ
আ. লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত মরদেহ
পুকুরে যৌনাঙ্গ কাটা ভাসমান মরদেহ, স্ত্রী আটক
অবৈধভাবে মাটি কাটার সময় শ্রমিক নিহত
ডোবা থেকে উদ্ধার স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ

শেয়ার করুন

মন্তব্য

বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নির্মাণশ্রমিকের মৃত্যু

বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নির্মাণশ্রমিকের মৃত্যু

বাসন থানার ওসি কামরুল জানান, স্থানীয় টেক্সি গ্রুপ গার্মেন্টস কারখানায় নির্মাণাধীন ভবনে শুক্রবার পাইলিংয়ের কাজ করছিলেন ফিরোজ। বিকেল তিনটার দিকে তিনি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন।

গাজীপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ফিরোজ নামে এক নির্মাণশ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে বাসন এলাকার টেক্সি গ্রুপ গার্মেন্টস কারখানায় নির্মাণাধীন ভবনের পাইলিংয়ের কাজ করার এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ফিরোজের বাড়ি শেরপুরের নকলা উপজেলার নারায়নখোলায়। থাকতেন সিটি করপোরেশনের ভোগড়া এলাকায়।

গাজীপুরের বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ কামরুল ফারুক জানান, টেক্সি গ্রুপ গার্মেন্টস কারখানায় নির্মাণাধীন ভবনের পাইলিংয়ের কাজ করছিলেন ফিরোজ। বিকেল তিনটার দিকে তিনি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। অন্য শ্রমিকরা উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, পুলিশ গিয়ে পরে তার মরদেহ উদ্ধার করে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন:
পাটক্ষেতে কৃষকের মরদেহ
আ. লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত মরদেহ
পুকুরে যৌনাঙ্গ কাটা ভাসমান মরদেহ, স্ত্রী আটক
অবৈধভাবে মাটি কাটার সময় শ্রমিক নিহত
ডোবা থেকে উদ্ধার স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ

শেয়ার করুন

ময়মনসিংহে ইউএনওর গাড়িতে হামলায় মামলা, গ্রেপ্তার ১

ময়মনসিংহে ইউএনওর গাড়িতে হামলায় মামলা, গ্রেপ্তার ১

ময়মনসিংহ সদর উপজেলার ইউএনও সাইফুল ইসলাম। ছবি: নিউজবাংলা

নদী থেকে অবৈধভাবে বালু তোলায় বাধা দেয়ায় মর্তুজা আলী লোকজন নিয়ে রাস্তা অবরোধ করে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার ইউএনওর গাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় বাধা দিতে গিয়ে আহত হন ইউএনওর গাড়িচালক সোহাগ মিয়া, অফিস সহকারী নুরুল ইসলাম ও আনসার সদস্য রাসেল মিয়া।

ময়মনসিংহ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাইফুল ইসলামের গাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় মর্তুজা আলী মন্ডল নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার দুপুরে দ্রুত বিচার আইনে মামলা মামলাটি করেন ইউএনও’র গাড়িচালক সোহাগ মিয়া। এতে বালু ব্যবসায়ী মর্তুজা আলীসহ ১১ জনকে আসামি করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু তোলায় বাধা দেয়ায় বৃহস্পতিবার বিকেলে এ হামলা চালানো হয়।

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ তালুকদার বলেন, বালু ব্যবসায়ী মর্তুজা আলীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

ইউএনও সাইফুল নিউজবাংলাকে জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে সিটি করপোরেশনের চরকালিবাড়ি এলাকায় নির্মাণাধীন সরকারি আশ্রায়ন প্রকল্প পরিদর্শনে যান তিনি। ফেরার পথে জানতে পারেন মতুর্জা আলীর লোকজন ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে অবৈধভাবে বালু তুলছে।

তিনি আরও জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে বালু তোলায় বাধা দিলে মর্তুজা আলী লোকজন নিয়ে তার বাড়ি সামনের রাস্তা অবরোধ করে গাড়িতে হামলা চালান। তাদের বাধা দিতে গিয়ে আহত হন গাড়িচালক সোহাগ মিয়া, অফিস সহকারী নুরুল ইসলাম ও আনসার সদস্য রাসেল মিয়া।

ময়মনসিংহ সদর সার্কেল এএসপি আলাউদ্দিন জানান, মর্তুজা আলীকে গ্রেপ্তারের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
পাটক্ষেতে কৃষকের মরদেহ
আ. লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত মরদেহ
পুকুরে যৌনাঙ্গ কাটা ভাসমান মরদেহ, স্ত্রী আটক
অবৈধভাবে মাটি কাটার সময় শ্রমিক নিহত
ডোবা থেকে উদ্ধার স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ

শেয়ার করুন

নি‌জেই খাল প‌রিষ্কার করেন মেয়র সাদিক

নি‌জেই খাল প‌রিষ্কার করেন মেয়র সাদিক

বরিশালের সাগরদি খাল নি‌জেই ভেকু মেশিন দি‌য়ে প‌রিষ্কার করছেন সি‌টি মেয়র সের‌নিয়াবাত সা‌দিক আব্দুল্লাহ। ছবি: নিউজবাংলা

ব‌রিশাল সি‌টি কর‌পোরেশনের প‌রিচ্ছন্ন কর্মকর্তা র‌বিউল ইসলাম নিউজবাংলা‌কে ব‌লেন, ‘বর্তমা‌নে চৌমাথা থে‌কে কালুশাহ সড়ক সংলগ্ন সাগরদী খাল এবং চাঁদমারী খা‌ল প‌রিষ্কা‌রের কাজ চল‌ছে। এরপর জেল খাল এবং লাকু‌টিয়া খা‌ল উদ্ধা‌রের কাজ শুরু হ‌বে।’

বরিশালে খাল উদ্ধার ও প‌রিষ্কারে মন্ত্রণালয় থে‌কে বরাদ্দ না পেয়ে নিজস্ব উ‌দ্যোগেই কাজ শুরু ক‌রে‌ছিল সি‌টি কর‌পো‌রেশ‌ন। কাজ পরিদর্শনে গিয়ে প্রায়শ নিজেই খাল পরিষ্কার করছেন মেয়র সের‌নিয়াবাত সা‌দিক আব্দুল্লাহ।

শুক্রবার সকালেও কালুশাহ সড়ক এলাকার সাগরদি খাল ভেকু মেশিন দি‌য়ে প‌রিষ্কার করেন তিনি।

গত সপ্তা‌হে নগরীর চৌমাথা এলাকা থে‌কে খাল প‌রিষ্কারের এ কার্যক্রম উ‌দ্বোধন ক‌রেন মেয়র। এরপর প‌রিদর্শনে গিয়ে তিন-চারদিন নি‌জেই খাল প‌রিষ্কা‌রের কাজ ক‌রেন।

সি‌টি কর‌পো‌রেশন বল‌ছে প্রথ‌মে দুটি খাল প‌রিষ্কা‌রের টা‌র্গেট নেয়া হ‌লেও পর্যায়ক্রমে সব খাল প‌রিষ্কার ও দখলমুক্ত করা হ‌বে। মন্ত্রণাল‌য়ে প্রকল্প জমা দেয়া হ‌লেও তা‌তে সাড়া না পাওয়ায় নগরবাসীর দু‌র্ভো‌গের কথা ‌চিন্তা ক‌রে খাল উদ্ধা‌রের উ‌দ্যোগ নেন মেয়র।

কালুশাহ সড়ক এলাকার বা‌সিন্দা আ‌রিফুর রহমান ব‌লেন, ‘মেয়র খাল প‌রিষ্কা‌রের কাজ তদা‌রকির পাশাপাশি প‌রিচ্ছন্নকর্মী‌দের সহায়তা ক‌রেন। ভেকু মে‌শিন দি‌য়ে দীর্ঘ সময় খা‌লের আবর্জনা প‌রিষ্কার ক‌রেন। যা দে‌খতে আশপা‌শের মানুষও ভিড় জমায়।’

ব‌রিশাল সি‌টি কর‌পোরেশনের প‌রিচ্ছন্ন কর্মকর্তা র‌বিউল ইসলাম নিউজবাংলা‌কে জানান, বর্তমা‌নে চৌমাথা থে‌কে কালুশাহ সড়ক সংলগ্ন সাগরদী খাল এবং চাঁদমারী খা‌ল প‌রিষ্কা‌রের কাজ চল‌ছে। এরপর জেল খাল এবং লাকু‌টিয়া খা‌ল উদ্ধা‌রের কাজ শুরু হ‌বে। মেয়র প্রতি‌দিনই কাজ প‌রিদর্শন কর‌ছেন।

তিনি আরও জানান, ৭০ জন প‌রিচ্ছন্নকর্মী আর চার‌টি ভেকু মে‌শিন দি‌য়ে কাজ চল‌ছে। শ‌নিবার থে‌কে খালের পার থেকে দখলদার‌দের উ‌চ্ছেদ করা শুরু হবে। এক মাসব‌্যাপী কাজ চলার কথা বলা হ‌লেও এই কাজ আগস্ট পর্যন্ত চল‌বে।

ব‌রিশাল সি‌টি কর‌পো‌রেশ‌নের মেয়র সেরনিয়াবাত সা‌দিক আব্দুল্লাহ ব‌লেন, ‘খাল রক্ষার এক‌টি প্রকল্প মন্ত্রণাল‌য়ে জমা র‌য়ে‌ছে। ত‌বে বর্ষা মৌসু‌মে খালগু‌লো প‌রিষ্কার না থাক‌লে জলাবদ্ধতায় সমস‌্যার ম‌ধ্যে পড়বে নগরবাসী। সেই কথা চিন্তা ক‌রে নগরীর খালগু‌লো প‌রিষ্কা‌রের উ‌দ্যোগ নেয়া হ‌য়ে‌ছে। খালগু‌লো‌তে পা‌নি প্রবাহ বৃ‌দ্ধি পে‌লে জলাবদ্ধতার শঙ্কা থাক‌বে না।’

আরও পড়ুন:
পাটক্ষেতে কৃষকের মরদেহ
আ. লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত মরদেহ
পুকুরে যৌনাঙ্গ কাটা ভাসমান মরদেহ, স্ত্রী আটক
অবৈধভাবে মাটি কাটার সময় শ্রমিক নিহত
ডোবা থেকে উদ্ধার স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ

শেয়ার করুন

দৃষ্টিহীন শিশুরা পেল ঈদের নতুন জামা

দৃষ্টিহীন শিশুরা পেল ঈদের নতুন জামা

দৃষ্টি প্রতিবন্ধিদের বিশেষায়িত হোস্টেলে নিয়মিত চলছে লেখাপড়া ও খেলাধুলা। তারা আনন্দ, বেদনা ভাগাভাগি করছে একে অন্যের সঙ্গে। এসব শিশুদের সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছেন অনেক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান। 

চোখে তাদের আলো নেই, তাতে অবশ্য থেমে যায়নি জীবন। আনন্দ, অনুভব সবই আছে দৃষ্টি প্রতিবন্ধিদের। কুমিল্লায় এমন বেশ কিছু দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিশুর হাতে ঈদের উপহার তুলে দিয়েছে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। ঈদের নতুন জামা, ইফতারসামগ্রী ও নগদ টাকা পেয়ে ভীষণ খুশি তারা।

শুক্রবার বিকেল চারটায় কুমিল্লা নগরীর চর্থায় দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের হোস্টেলে গিয়ে ঈদ উপহার পৌঁছে দেয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জাগ্রত মানবিকতা। উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক তাহসিন বাহার সূচনা, ডাক্তার ফারজানা আক্তার, কাউছার জামান কায়েসসহ অন্য সদস্যরা।

চাঁদপুরের কিশোর সুজন তালুকদার দৃষ্টি প্রতিবন্ধী হলেও ব্রেইল পদ্ধতিতে লেখাপড়া করছে। নগরীর ভিক্টোরিয়া কলিজিয়েট স্কুলে সে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। সুজন বলেছে, ‘চোখে দেখি না। তবে সব কিছু অনুভব করতে পারি। আমরা খেলতে পারি। গান গাইতে পারি। আমাদের যে নতুন জামা দিয়েছে তা হাত দিয়ে ধরে দেখেছি। খুব ভালো লাগছে।’

দেবীদ্বার উপজেলার মোহাম্মদ সাকলাইন জন্মান্ধ। নগরীর লুৎফুন্নেচ্ছা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ছে। ঈদের নতুন জামা পেয়ে আনন্দিত সাকলাইন বলেন, ‘ঈদে নতুন জামা পাইছি। আমার বন্ধুরাও পাইছে। আমরা একসঙ্গে নতুন জামা পরব। নতুন জামা পরে ঈদের নামাজে যাব।’

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জাগ্রত মানবিকতার সাধারণ সম্পাদক তাহসিন বাহার সূচনা বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করেছি এসব বাচ্চাদের জন্য কিছু করার। তারা চোখে দেখে না। তারা হৃদয় দিয়ে অনুভব করে। আমরা আমাদের ঈদের আনন্দ তাদের সাথে ভাগাভাগি করেছি।’

দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী ছাত্রাবাসের তত্ত্বাবধায়ক মো. রাশেদুজ্জামান বলেন, ‘ছাত্রাবাসে বর্তমানে ১০ জন ছাত্র রয়েছে। সবাই লেখাপড়া করে। তারা এখানে লেখাপড়ার পাশাপাশি গান গায়, খেলাধুলা করে। এখানকার অনেক ছাত্র এখন সরকারি দপ্তরে কর্মরত। অনেকে আইন পেশায় যুক্ত।’

আরও পড়ুন:
পাটক্ষেতে কৃষকের মরদেহ
আ. লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত মরদেহ
পুকুরে যৌনাঙ্গ কাটা ভাসমান মরদেহ, স্ত্রী আটক
অবৈধভাবে মাটি কাটার সময় শ্রমিক নিহত
ডোবা থেকে উদ্ধার স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ

শেয়ার করুন

ঘরে ঢুকে কিশোরীকে ‘ধর্ষণ’, যুবক গ্রেপ্তার

ঘরে ঢুকে কিশোরীকে ‘ধর্ষণ’, যুবক গ্রেপ্তার

বুধবার রাতে ওই কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা বাড়িতে ছিলেন না। এই সুযোগে কৌশলে ঘরে ঢুকে কিশোরীকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যান নয়ন। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ঘরে ঢুকে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে নারায়ণগঞ্জের বন্দর-থানা পুলিশ।

শুক্রবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এর আগে ওই কিশোরী বিচারক মুহাম্মদ শাকিল আহম্মদ কাছে ঘটনার বর্ণনা দেয়।

গ্রেপ্তার যুবকের নাম নয়ন দাস। বাড়ি উপজেলার ঋষিপাড়া এলাকায়।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিপক সাহা নিউজবাংলাকে জানান, কিশোরীর সঙ্গে নয়নের ঘনিষ্ঠতা ছিল। বুধবার রাতে ওই কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা বাড়িতে ছিলেন না। এই সুযোগে কৌশলে ঘরে ঢুকে কিশোরীকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যান নয়ন। কিশোরীর স্বজনরা ‍বৃহস্পতিবার বাড়ি ফিরে এলে কিশোরী তাদের কাছে ঘটনা খুলে বলে। পরে শুক্রবার সকালে কিশোরীর বাবা মামলা করেন। দুপুরে নয়ন দাসকে ঋষিপাড়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

আদালত পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান নিউজবাংলাকে বলেন, এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে। মামলার আসামি নয়ন দাসকে নারায়ণগঞ্জ কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত। তা ছাড়া ওই কিশোরী আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে।

আরও পড়ুন:
পাটক্ষেতে কৃষকের মরদেহ
আ. লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত মরদেহ
পুকুরে যৌনাঙ্গ কাটা ভাসমান মরদেহ, স্ত্রী আটক
অবৈধভাবে মাটি কাটার সময় শ্রমিক নিহত
ডোবা থেকে উদ্ধার স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ

শেয়ার করুন

হেফাজতের তাণ্ডব: সাবেক সাংসদ শাহীনুর কারাগারে

হেফাজতের তাণ্ডব: সাবেক সাংসদ  শাহীনুর কারাগারে

সাবেক সংসদ সদস্য মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরে বিরোধিতা করে হেফাজত নেতা-কর্মীরা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক তাণ্ডব চালিয়েছিল। ভূমি অফিসে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ ঘটনার মামলায় শাহীনুর পাশাকে বৃহস্পতিবার সিলেট থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবের ঘটনায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে সাবেক সংসদ সদস্য মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরীকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সিলেট থেকে গ্রেপ্তার শাহীনুর পাশা হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির আইন বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন। তিনি সুনামগঞ্জ-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য।

পুলিশ জানায়, সুনামগঞ্জ-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরীকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ঘটে যাওয়া হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় একটি মামলার আসামি হিসেবে শুক্রবার আদালতে হাজির করা হয়েছিল। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আয়শা বেগম তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিআইডির পুলিশ সুপার শাহারিয়ার রহমান বলেন, ‘বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে সিলেট থেকে শাহীনুর পাশাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা ভূমি অফিসে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আদালতের পুলিশ পরিদর্শক কাজী মো. দিদারুল আলম বলেন, ‘সিআইডি শাহীনুর পাশাকে আদালতে হাজির করেছিল। বিকেলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরে বিরোধিতা করে হেফাজতের নেতা-কর্মীরা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক তাণ্ডব চালায়। এ সময় সদর উপজেলার ভূমি অফিস ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় মামলা হয়। এ মামলার পলাতক আসামি শাহীনুরকে বৃহস্পতিবার সিলেট থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আরও পড়ুন:
পাটক্ষেতে কৃষকের মরদেহ
আ. লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত মরদেহ
পুকুরে যৌনাঙ্গ কাটা ভাসমান মরদেহ, স্ত্রী আটক
অবৈধভাবে মাটি কাটার সময় শ্রমিক নিহত
ডোবা থেকে উদ্ধার স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ

শেয়ার করুন

মেয়েদের পছন্দ সারারা-গাউন

মেয়েদের পছন্দ সারারা-গাউন

চট্টগ্রামে গণপরিবহন খুলে দেয়ার পর বেচাকেনা বেড়েছে। ছবি: নিউজবাংলা

অন্য বছরের মতো এবার বাজার তেমন জমজমাট না। করোনা আর লকডাউনের ধাক্কা লেগেছে বাজারে। যদিও বৃহস্পতিবার থেকে গণপরিবহনের ওপর নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় লোক সমাগম কিছুটা বেড়েছে।

চট্টগ্রামের ফিনলে স্কয়ারে দুই মেয়েকে নিয়ে ঈদের শপিং করতে এসেছেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক দেলোয়ার সাইদ। স্কুল-কলেজে পড়ুয়া দুই মেয়ের পছন্দ সম্পর্কে বাবা বলেন, ‌বড় মেয়ে কিনেছে ভারতীয় সারারা আর ছোটজনের পছন্দ হয়েছে পাকিস্তানি গাউন।

চট্টগ্রামের বাজারগুলোতে এবারের ঈদে মেয়েদের পোশাকের মধ্যে এই দুই ধরনের জামাই রয়েছে পছন্দের শীর্ষে। কিশোরী-তরুণীদের মন কেড়ে নিয়েছে এই ড্রেস।

বৃহস্পতিবার নগরীর ফিনলে স্কয়ার, শপিং কমপ্লেক্স, রিয়াজুদ্দিন বাজার, আফমি প্লাজাসহবেশ কয়েকটি মার্কেট ঘুরে দেখে যায় মেয়েদের পছন্দের এই প্রবণতা।

তবে অন্য বছরের মতো এবার বাজার তেমন জমজমাট না। করোনা আর লকডাউনের ধাক্কা লেগেছে বাজারে। যদিও বৃহস্পতিবার থেকে গণপরিবহনের ওপর নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় লোক সমাগম কিছুটা বেড়েছে।

একই সঙ্গে বেড়েছে বিক্রি। বেশি বিক্রি হচ্ছে মেয়েদের পোশাক। সারারা ও গাউন ছাড়াও ঘারারা, বার্বি গাউন, প্যাবলন, লেহেঙ্গাসহ রেডিমেড পোশাক প্রচুর বিক্রি হচ্ছে। ব্যবসায়ী ইকবাল হায়দার বলছেন, এবার সবচেয়ে জনপ্রিয় পোশাকের মধ্যে আছে পাকিস্তানি, ইরানি ও ভারতীয় গাউন। তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, বেচাবিক্রি তো ঠান্ডাই, তবে এখন পর্যন্ত যা বিক্রি করেছি তার মধ্যে ইরানি ও পাকিস্তানি গাউন বেশি বিক্রি হয়েছে। তাছাড়া ভারতীয় গাউনেও আগ্রহ আছে মেয়েদের।

একমাত্র কলেজপড়ুয়া মেয়েকে ঈদের নতুন জামা কিনে দিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নগরীর আফমি প্লাজায় এসেছেন মোহসেনা মানহা। তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, ‘মেয়ের পছন্দমত ইরানি সারারা ড্রেস কিনে দিয়েছি। ও যেহেতু পছন্দ করে নিয়েছে তাতে আমার আপত্তি নেই।’

পছন্দের পোশাক সারারা। ছবি: নিউজবাংলা

ফিনলে স্কয়ারে গিয়ে দেখা গেল ঈদের নতুন জামা কিনতে এসে রেডিমেড পোশাক প্যাবলন কিনেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাদিয়া আফরিন। তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, আমার ফ্রেন্ডদের অনেকে সারারা ও ঘারারা নিয়েছে। এগুলো নতুন পোশাক বলা হলেও এগুলো আসলে পুরোন। তবে এখন নতুন করে জনপ্রিয় হয়েছে। সারারা আমার ভালো লাগেনি বলে নিইনি, আমি প্যাবলন নিয়েছি।

ব্যবসায়ীরা জানান, লকডাউনের কারণে এবারও মন্দা চলছে ঈদ বাজারে। নগরীর ফিনলে স্কয়ারের কাপড় ব্যবসায়ী লোকমান হোসেন নিউজবাংলাকে বলেন, গত বছর করোনার কারণে আমাদের অনেক লোকসান হয়েছে। তাই একবারের ঈদে সেটা পুষিয়ে নেয়ের চিন্তা ছিল আমাদের। কিন্তু আবারও করোনা বেড়ে যাওয়ায় লকডাউনের কারণে লোকসানের আশঙ্কা করছি আমরা। ক্রেতা তো খুব একটা নাই, যা আছে তাদের মধ্যে মেয়েদের পছন্দের তালিকায় এবার রয়েছে রেডিমেড পোশাক। এর মধ্যে রয়েছে সারারা, ঘারারা লেহেঙ্গা ইত্যাদি।

এসময় মার্কেট খোলা রাখার শর্ত হিসেবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে বলা হলেও তা মানতে দেখা যায়নি অনেক দোকানিকে।তবে প্রায় সব মার্কেটের প্রবেশ পথে থার্মাল ইমেজিং ক্যামেরা ব্যবহার করে ক্রেতাদের তাপমাত্রা পরীক্ষা করে তবেই প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি চট্টগ্রাম জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ খুরশীদ আলম বলেন, চট্টগ্রাম মহানগর এবং জেলার সব উপজেলায় প্রায় ৩ লাখ দোকান রয়েছে। এর মধ্যে পোশাকের দোকান আছে প্রায় ৬০ হাজার।

চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, চট্টগ্রাম শহরে প্রতি বছর ঈদ বাজারে প্রায় ৩৭ হাজার কোটি টাকার ব্যবসা হয়।

চট্টগ্রাম সম্মিলিত হকার্স ফেডারেশনের সভাপতি মো. মিরন হোসেন মিলন বলেন, 'চট্টগ্রাম নগরীতে ২২ হাজার ভ্রাম্যমাণ দোকান (হকার) রয়েছে। এর মধ্যে ১৫ হাজার হকার পোশাক, জুতা, কসমেটিকস পণ্য বিক্রি করে।

চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির তথ্যমতে, চট্টগ্রামে ২ হাজার ৫০০ ফ্যাশন ও বুটিক হাউস রয়েছে।

আরও পড়ুন:
পাটক্ষেতে কৃষকের মরদেহ
আ. লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত মরদেহ
পুকুরে যৌনাঙ্গ কাটা ভাসমান মরদেহ, স্ত্রী আটক
অবৈধভাবে মাটি কাটার সময় শ্রমিক নিহত
ডোবা থেকে উদ্ধার স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ

শেয়ার করুন