কোচিংয়ের পরীক্ষায় কম নম্বর পাওয়ায় আট শিক্ষার্থীকে পিটুনি

কোচিংয়ের পরীক্ষায় কম নম্বর পাওয়ায় 
আট শিক্ষার্থীকে পিটুনি

কোচিং সেন্টারে শিক্ষকের মারধরে আহত এক শিক্ষার্থী। ছবি: নিউজবাংলা

মাহির বাবা মিজানুর রহমান বলেন, আজ দুপুরে নলেজ হাউজ কোচিং সেন্টারে গণিত পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষায় আমার ছেলে মাহি ১০০ নম্বরের মধ্যে ৫০ নম্বর পায়। পরীক্ষায় কম নম্বর পাওয়ায় ওই কোচিং সেন্টারের শিক্ষক মতিউর রহমান তাকে বেধড়ক চড়থাপ্পড় দেন।

ঠাকুরগাঁও শহরে একটি কোচিং সেন্টারে পরীক্ষায় কম নম্বর পাওয়ায় আট শিক্ষার্থীকে পিটুনি দিয়েছেন সেখানের এক শিক্ষক।

শনিবার শহরের সরকারপাড়া এলাকার নলেজ হাউজ কোচিং সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে।

আহত এক ছাত্র মাহির দাইয়ান মাহি সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের পল্লীবিদ্যুৎ এলাকার মিজানুর রহমানের ছেলে। সে শহরের রয়েল কিন্ডারগার্টেনের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র।

মাহির বাবা মিজানুর রহমান বলেন, ‘আজ দুপুরে নলেজ হাউজ কোচিং সেন্টারে গণিত পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষায় আমার ছেলে মাহি ১০০ নম্বরের মধ্যে ৫০ নম্বর পায়। পরীক্ষায় কম নম্বর পাওয়ায় ওই কোচিং সেন্টারের শিক্ষক মতিউর রহমান তাকে বেধড়ক থাপ্পড় দেন। এতে আমার ছেলের পিঠে ও মুখে দাগ হয়ে গেছে।’

মাহিকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় তার বাবা ওই শিক্ষকের শাস্তি দাবি করেছেন।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভিরুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনার পর আহত ছাত্র মাহি বাবাকে নিয়ে থানায় এসেছিল। শিক্ষার্থীর শরীরে আঘাতের দাগ দেখেছি। তাদের মামলা করার পরামর্শ দিয়েছি। অভিযুক্ত শিক্ষককে আটক করতে আমরা চেষ্টা করছি।’

কোচিং সেন্টারের শিক্ষক মতিউর রহমানের মোবাইল ফোনে একাধিকবার রিং করলেও রিসিভ হয়নি।

আরও পড়ুন:
ডাকাত সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা

শেয়ার করুন

মন্তব্য