ছাত্রদল নেতার বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা

আহত ছাত্রদল কর্মী শাহজাদা মোল্লা। ছবি: নিউজবাংলা

ছাত্রদল নেতার বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা

মামলার আসামিরা হলেন, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি রেজাউল করিম রনি, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক কামরুল আহসান ও জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক মো. মাহফুজসহ ১৫ জন।

বরিশাল নগরীতে ছাত্রদল কর্মীকে কোপানোর অভিযোগে মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি ও জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার মামলা হয়েছে।

মামলায় এই দুইজনসহ সাতজনের নাম উল্লেখ করে মোট ১৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

কোতোয়ালি মডেল থানায় আহত ছাত্রদল কর্মী শাহজাদা মোল্লা নিজেই সোমবার মামলাটি করেছেন। তবে মঙ্গলবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম।

মামলার আসামিরা হলেন, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি রেজাউল করিম রনি, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক কামরুল আহসান, জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক মো. মাহফুজ, ছাত্রদল নেতা জসীম উদ্দিন তালুকদার, অক্সফোর্ড মিশন এলাকার বাসিন্দা আল আমিন মৃধা, সরকারি বরিশাল কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক রফিকুল ইসলাম টিপু ও মো. রাহত আব্দুল্লাহ ফকির।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, দলের মধ্যে কোন্দলের জেরে আসামিরা গত ১৮ ফেব্রুয়ারি রাতে কলেজ অ্যাভিনিউ এলাকার বড় পুকুর পাড়ে শাহাজাদের ওপর হামলা চালায়। তাকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়, মারা হয় লাঠি দিয়ে। এর পর তার কাছ থেকে ব্যবসার কাজের ৮০ হাজার টাকা ও ২ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে পালিয়ে যায় আসামিরা।

শাহাজাদ জানান, স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। কিছুটা সুস্থ হয়ে তিনি মামলা করতে আসেন।

আরও পড়ুন:
মৃতের বিরুদ্ধে মারামারির অভিযোগে মামলা
‘ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে চাঁদা’, পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা
চোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩
নড়াইলে খালেদা-গয়েশ্বরের বিরুদ্ধে পরোয়ানা
রাবি শিক্ষার্থী সিফাত হত্যা মামলা: স্বামী আসিফের জামিন

শেয়ার করুন

মন্তব্য

জুড়ীতে উচ্ছেদ অভিযান, নোটিশ না দেয়ার অভিযোগ

জুড়ীতে উচ্ছেদ অভিযান, নোটিশ না দেয়ার অভিযোগ

মরা জুড়ী নদীর জায়গা দখলদার মুক্ত করতে উচ্ছেদঃ অভিযান চালায় জেলা প্রশাসন। ছবি: নিউজবাংলা

পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী মো. আল আমিন বলেন, ‘নোটিশ দিয়েই অভিযান শুরু করা হয়েছে। দখলদারদের যথেষ্ঠ সময়ও দেয়া হয়েছিল নিজেরা ভেঙে ফেলতে। কিন্তু তারা তা করেননি।’

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলা সদরের ভেতর দিয়ে প্রবাহিত ‘মরা জুড়ী নদীতে’ উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসন। এসময় নদীর জায়গায় ঘর তুলে থাকা ব্যক্তিরা অভিযোগ করেছেন, উচ্ছেদের আগে কোনো নোটিশ পাননি তারা।

বুধবার দুপুর ১টা থেকে জুড়ির জাঙ্গালিয়া মৌজার হরিরামপুর এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান চালায় জেলা প্রশাসন। এ সময় প্রায় ১০ একর জায়গা দখলমুক্ত করা হয়।

উচ্ছেদ অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজেস্ট্রেট অর্ণব মালাকার ও জুড়ির এসিল্যান্ড মুস্তাফিজুর রহমান। এসময় পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

উচ্ছেদ অভিযানের সময় নোটিশ না পাওয়ার অভিযোগ করেন কয়েক জন স্থানীয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ব্যক্তিরা জানান, থাকার মতো কোনো জায়গা না থাকায় স্থানীয় এক ব্যক্তির কাছ থেকে জায়গা কিনে বসবাস করছিলেন। কিন্তু নোটিশ না দিয়েই তাদের উচ্ছেদে অভিযান চালানো হচ্ছে।

আবু জাহের নামে এক ব্যক্তি জানান, মাত্র ১৫ ফুট বাই ১৫ ফুট জায়গায় একটি ঘর নির্মাণ করে বসবাস করছিলেন। কিন্তু সেটি ভেঙে ফেলায় পরিবার নিয়ে যাওয়ার মতো আর কোথাও জায়গা নেই।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী মো. আল আমিন বলেন, ‘নোটিশ দিয়েই অভিযান শুরু করা হয়েছে। দখলদারদের যথেষ্ঠ সময়ও দেয়া হয়েছিল নিজেরা ভেঙে ফেলতে। কিন্তু তারা তা করেননি।’

নির্বাহী ম্যাজেস্ট্রেট অর্ণব মালাকার বলেন, ‘প্রথমে ১-২ ফেব্রুয়ারি উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। এরপরে ২২ দিন সময় দিয়ে নোটিশ দিয়ে ও মাইকিং করে জানানো হলেও দখল ছেড়ে না দেয়ায় অভিযান চালানো হয়েছে।

উচ্ছেদ করার জন্য মোট ৮০টি স্থাপনা চিহ্নিত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন:
মৃতের বিরুদ্ধে মারামারির অভিযোগে মামলা
‘ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে চাঁদা’, পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা
চোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩
নড়াইলে খালেদা-গয়েশ্বরের বিরুদ্ধে পরোয়ানা
রাবি শিক্ষার্থী সিফাত হত্যা মামলা: স্বামী আসিফের জামিন

শেয়ার করুন

স্বর্ণালংকার চুরি: পালানোর সময় ধরা নারী ইউপি সদস্য

স্বর্ণালংকার চুরি: পালানোর সময় ধরা নারী ইউপি সদস্য

কক্সবাজারের চকরিয়া থানার ঢেমুশিয়া ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত নারী সদস্য মোসা. আরজ খাতুন ও তার দুই সহযোগী।

এ ঘটনায় ইউপি সদস্য ছাড়াও তার দুই সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদের পাঠানো হয়েছে জেলহাজতে।

এক মাস আগে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা সদরে আপন অর্নামেন্টস নামের একটি দোকানে স্বর্ণালংকার চুরি হয়। দোকানি বিষয়টি টের পান রাতে। ক্রেতা সেজে সেই চোরের দল আবার আসে সোমবার। দুজন নারী ও এক তরুণ মিলে।

তারা স্বর্ণালংকার কেনার আগ্রহ দেখান। দোকানি একে একে স্বর্ণালংকার দেখান। কিন্তু কোনোটিই তাদের পছন্দ হয় না। একপর্যায়ে কৌশলে একটি আংটি ও একটি নাকফুল সরিয়ে ফেলেন। দোকানি তখনও টের পাননি। এরপর দলটি দোকান থেকে বেরিয়ে কিছু দূর যায়। স্বর্ণালংকার গুছিয়ে রাখতে গিয়ে দোকানি টের পান দুটি খোয়া গেছে। পড়িমরি করে ধাওয়া দিয়ে ধরে আনেন ওই তিনজনকে।

তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করেন তারই দোকানের সোনার নাকফুল ও আংটি। পরে তিনজনকে পুলিশে সোপর্দ করেন। ঠুকে দেন মামলা।

ওই মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়। তারা হলেন কক্সবাজারের চকরিয়া থানার ঢেমুশিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) প্যানেল চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত নারী সদস্য মোসা. আরজ খাতুন এবং তার সহযোগী একই এলাকার শাহাদত হোসেন ও কুমিল্লা নগরীর কালিয়াজুরি এলাকার পাখি বেগম।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ১৯ জানুয়ারি বেলা ১১টার দিকে দেবিদ্বার উপজেলা সদরের আপন অর্নামেন্টসে ৩ ভরি ওজনের দুটি স্বর্ণের চেইন ও ১ জোড়া কানের দুল চুরি হয়। ওই দিন রাতে স্টক হিসাব করতে গিয়ে গরমিল ধরা পড়ে। পরে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে অপরিচিত এক নারী চোরকে শনাক্ত করেন দোকানটির মালিক। তবে তার কোনো হদিস পাননি।

ওই ঘটনার এক মাস পর সোমবার আবারও একই দোকানে আসে চোরের দল। তবে এবার চুরি করে পালিয়ে যাওয়ার সময় ধরা পড়ে।

পরে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে এক মাস আগের চুরির সঙ্গে তাদের জড়িত থাকার বিষয়টিও নিশ্চিত হন দোকানি।

এ ঘটনায় দোকানমালিক জয়নাল আবেদীন আপন দেবিদ্বার থানায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন।

এ বিষয়ে দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহিরুল আনোয়ার জানান, এরা একটি সংঘবদ্ধ চোরচক্রের সদস্য। সিসিটিভির ফুটেজ দেখে এক মাস আগের ওই চুরির ঘটনায় এই তিনজনের জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে ‍পুলিশ। মঙ্গলবার বিকেলে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
মৃতের বিরুদ্ধে মারামারির অভিযোগে মামলা
‘ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে চাঁদা’, পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা
চোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩
নড়াইলে খালেদা-গয়েশ্বরের বিরুদ্ধে পরোয়ানা
রাবি শিক্ষার্থী সিফাত হত্যা মামলা: স্বামী আসিফের জামিন

শেয়ার করুন

পিকআপের সঙ্গে সংঘর্ষে অটোরিকশা চালক নিহত

পিকআপের সঙ্গে সংঘর্ষে অটোরিকশা চালক নিহত

দুর্ঘটনায় নিহত অটোরিকশা চালক রানা। ছবি: নিউজবাংলা

বাকেরগঞ্জ থানার ওসি আলাউদ্দিন জানান, পটুয়াখালী থেকে বরিশাল যাওয়ার পথে কাঠেরঘর এলাকায় পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে সংঘর্ষে অটোরিকশাটি উল্টে যায়। এতে গুরুতর আহত চারজনকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে অটোরিকশা চালক রানাকে মৃত ঘোষনা করেন চিকিৎসক।

বরিশালের বাকেরগঞ্জে পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে সংঘর্ষে মো. রানা নামে এক অটোরিকশা চালক নিহত হয়েছেন। গুরুতর আহত হয়েছে অটোরিকশায় থাকা একই পরিবারের তিন সদস্য।

উপজেলার বোয়ালিয়া বাজার সংলগ্ন কাঠেরঘর এলাকায় বুধবার রাত ১০টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনায় নিহত সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক রানা বরিশাল নগরীর বিএম কলেজ রোড এলাকার বাসিন্দা। তবে আহত তিনজনের পরিচয় জানা যায়নি।

বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলাউদ্দিন মিলন জানান, পটুয়াখালী থেকে বরিশাল যাওয়ার পথে কাঠেরঘর এলাকায় পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে সংঘর্ষে সিএনজিচালিত অটোরিকশাটি উল্টে যায়। এতে গুরুতর আহত সিএনজিচালকসহ চারজনকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে রানাকে মৃত ঘোষনা করেন চিকিৎসক।

দুর্ঘটনায় পরই পিকআপ ভ্যানের চালক পালিয়ে যায়। দুর্ঘটনা কবলিত পিকআপ ভ্যান ও অটোরিকশাটি হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুন:
মৃতের বিরুদ্ধে মারামারির অভিযোগে মামলা
‘ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে চাঁদা’, পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা
চোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩
নড়াইলে খালেদা-গয়েশ্বরের বিরুদ্ধে পরোয়ানা
রাবি শিক্ষার্থী সিফাত হত্যা মামলা: স্বামী আসিফের জামিন

শেয়ার করুন

প্রতিবেশীর ঘরে গৃহবধূর বস্তাবন্দি মরদেহ

প্রতিবেশীর ঘরে গৃহবধূর বস্তাবন্দি মরদেহ

দুর্গাপুর থানার ওসি জানান, শুক্লার শরীরে শ্বাসরোধে হত্যার আলামত রয়েছে। তার শরীরে থাকা বিভিন্ন স্বর্ণালংকারও পাওয়া যাচ্ছে না। কী কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে, তা তদন্ত করা হচ্ছে।

নেত্রকোণার দুর্গাপুরে প্রতিবেশীর ঘর থেকে এক গৃহবধূর বস্তাবন্দি মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার দুই জনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে সাড়ে পাঁচটার দিকে ঝানজাইল বাজার এলাকায় কংশ নদীর তীরের একটি ঘর থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। নিহত শুক্লা সাহা ওই এলাকার সুকুমার সাহার স্ত্রী।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ নূর জানান, মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে শুক্লা বাড়ির কাছে কংশ নদীতে গোসল করতে যান। অনেকক্ষণ পরও না ফিরলে পরিবার ও স্থানীয়রা বিভিন্নস্থানে তাকে খোঁজাখুজি করেন।

ওসি আরও জানান, বিকেলে প্রতিবেশী রুবিনাকে নিজ ঘরে তালা দিয়ে বসে থাকতে দেখে সন্দেহ হয় স্থানীয়দের। পরে তালা খুলে খাটের পাশে শুক্লার বস্তাবন্দি মরদেহ পাওয়া যায়।

রুবিনা ও তার ছেলে হৃদয়কে আটক করে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা। পরে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার ও ওই দুইজনকে আটক করে থানায় নেয়।

পুলিশের এ কর্মকর্তা বলেছেন, শুক্লার শরীরে শ্বাসরোধে হত্যার আলামত রয়েছে। তার শরীরে থাকা বিভিন্ন স্বর্ণালংকারও পাওয়া যাচ্ছে না। স্বর্ণালংকার হাতিয়ে নেয়া, না অন্য কোনো কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে, তা তদন্ত করা হচ্ছে।

ওসি শাহ নূর জানান, নিহতের ছেলে জয় সাহা সাতজনকে আসামি করে মামলা করেছেন। এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বুধবার আদালতের মাধ্যমে রুবিনা ও তার ছেলে হৃদয়কে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
মৃতের বিরুদ্ধে মারামারির অভিযোগে মামলা
‘ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে চাঁদা’, পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা
চোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩
নড়াইলে খালেদা-গয়েশ্বরের বিরুদ্ধে পরোয়ানা
রাবি শিক্ষার্থী সিফাত হত্যা মামলা: স্বামী আসিফের জামিন

শেয়ার করুন

টিকা নিয়ে রাজনীতি করতে গিয়ে ব্যর্থ বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী

টিকা নিয়ে রাজনীতি করতে গিয়ে ব্যর্থ বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন তথ্যমন্ত্রী।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, সাধারণ মানুষকে টিকা নিতে দেখে বিএনপি নেতা ও তাদের বুদ্ধিজীবীরা টিকা নিতে শুরু করেছেন। ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, রুহুল কবির রিজভীও টিকা নিয়েছেন। এখন বিএনপি নেতারা প্রকাশ্যে-অপ্রকাশ্যে টিকা নিচ্ছেন।

করোনার টিকা নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের চেষ্টায় বিএনপি ব্যর্থ হয়েছে বলে মনে করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

পাবনার ফরিদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন উপলক্ষে বুধবার দুপুরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, সাধারণ মানুষকে টিকা নিতে দেখে বিএনপি নেতা ও তাদের বুদ্ধিজীবীরা টিকা নিতে শুরু করেছেন। ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, রুহুল কবির রিজভীও টিকা নিয়েছেন। এখন বিএনপি নেতারা প্রকাশ্যে-অপ্রকাশ্যে টিকা নিচ্ছেন।

সরকারের ধারাবাহিক উন্নয়নে বাংলাদেশ উন্নয়নের মডেল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘এখন অনেকই নৌকায় উঠতে চাইছে। কিন্তু সবাইকে নৌকায় তুলে ডুবানোর দরকার নেই।’

দলের নেতাকর্মীদের সংযত আচরণ করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, যারা দলের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছেন তাদের মূল্যায়ন করা হবে।

উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি খলিলুর রহমান সরকারের সভাপতিত্বে সম্মেলন উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রেজাউল রহিম লাল।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী আশরাফুল কবিরের পরিচালনায় সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা মেরিনা জাহান কবিতা, সৈয়দ আব্দুল আওয়াল শামীম, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ ফিরোজ কবিরসহ অনেকে।

আরও পড়ুন:
মৃতের বিরুদ্ধে মারামারির অভিযোগে মামলা
‘ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে চাঁদা’, পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা
চোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩
নড়াইলে খালেদা-গয়েশ্বরের বিরুদ্ধে পরোয়ানা
রাবি শিক্ষার্থী সিফাত হত্যা মামলা: স্বামী আসিফের জামিন

শেয়ার করুন

পুকুরে ডুবে যমজ দুই ভাইয়ের মৃত্যু

পুকুরে ডুবে যমজ দুই ভাইয়ের মৃত্যু

নিহতদের চাচা আবদুল হাই বকুল জানান, বিকেলে জুনায়েদ ও জুবায়ের বাড়ির সামনে খেলা করছিল। সন্ধ্যার দিকে তাদের না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। পরে বাড়ির কাছের পুকুরে তাদের মরদেহ ভাসতে দেখেন স্থানীয় লোকচন।

দিনাজপুর সদর উপজেলায় একটি পুকুরে ডুবে যমজ দুই ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে।

উপজেলার কমলপুর ইউনিয়নের মাঝাপাড়ায় বাড়ির পাশের পুকুর থেকে বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত দুই শিশু হলো ওই এলাকার মিজানুর রহমানের ৪ বছরের যমজ দুই ছেলে জুনায়েদ ও জুবায়ের।

নিহতদের চাচা আবদুল হাই বকুল জানান, বিকেলে জুনায়েদ ও জুবায়ের বাড়ির সামনে খেলা করছিল। সন্ধ্যার দিকে শিশু দুটির মা তাদের আনতে যায়। তবে সেখানে তাদের না পেলে খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। পরে সন্ধ্যা ৬টার দিকে বাড়ির কাছের পুকুরে তাদের মরদেহ ভাসতে দেখেন স্থানীয় লোকজন।

আরও পড়ুন:
মৃতের বিরুদ্ধে মারামারির অভিযোগে মামলা
‘ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে চাঁদা’, পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা
চোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩
নড়াইলে খালেদা-গয়েশ্বরের বিরুদ্ধে পরোয়ানা
রাবি শিক্ষার্থী সিফাত হত্যা মামলা: স্বামী আসিফের জামিন

শেয়ার করুন

নিখোঁজের ২ দিন পর গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

নিখোঁজের ২ দিন পর গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

সোমবার বিকেলে আব্দুস সালাম ও তারজিনা খাতুন তাদের বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর আর ফিরে আসেননি। এখনও আব্দুস সালামের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে নিখোঁজ হওয়ার দুই দিন পর এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে জীবননগর উপজেলার উথলী গ্রামের কোমরপাড়ার একটি আখ ক্ষেত ওই মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

মৃত তারজিনা খাতুন একই উপজেলার শিংনগর গ্রামের মেহেরপাড়ার আব্দুস সালামের স্ত্রী।

তারজিনার মাথা, গলাসহ শরীরের একাধিক স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জীবননগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ফেরদৌস ওয়াহিদ জানান, সোমবার বিকেলে আব্দুস সালাম ও তারজিনা খাতুন তাদের বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর আর ফিরে আসেননি। এখনও আব্দুস সালামের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

তিনি আরও জানান, বুধবার সন্ধ্যায় উথলী গ্রামের কয়েকজন কৃষক মাঠে ঘাস কাটতে যাওয়ার সময় কোমরপাড়া মাঠের একটি আখ ক্ষেতে এক নারীর মরদেহ দেখতে পেয়ে তাদের খবর দেয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মরদেহটি তারজিনার বলে শনাক্ত করে এলাকাবাসী।

শিংনগর গ্রামের বাসিন্দা ইমরুল হাসান রাজু জানান, সালাম ও তার স্ত্রী তারজিনা অন্যের জমিতে কাজ করতেন। গত সোমবার বিকেলে কাজ শেষে বাড়ি ফেরেননি ওই দম্পতি।

পরিদর্শক ফেরদৌস জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
মৃতের বিরুদ্ধে মারামারির অভিযোগে মামলা
‘ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে চাঁদা’, পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা
চোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩
নড়াইলে খালেদা-গয়েশ্বরের বিরুদ্ধে পরোয়ানা
রাবি শিক্ষার্থী সিফাত হত্যা মামলা: স্বামী আসিফের জামিন

শেয়ার করুন

ad-close 103.jpg