নির্বাচনি সহিংসতা: প্রার্থীসহ ১১ জনের রিমান্ড

বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল কাদের। ছবি: নিউজবাংলা।

নির্বাচনি সহিংসতা: প্রার্থীসহ ১১ জনের রিমান্ড

বুধবার বিকেলে আসামিদের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফি উদ্দিনের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হলে আদালত প্রত্যেককে তিন দিনের রিমান্ড দেন।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের সহিংসতায় নিহত আজগর আলী প্রকাশ বাবুল সর্দার হত্যা মামলায় বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী কাদের সহ ১১ জনেকে তিন দিনের রিমান্ড দিয়েছে আদালত।

বুধবার বিকেলে আসামিদের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফি উদ্দিনের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হলে আদালত প্রত্যেককে তিন দিনের রিমান্ড দেন।

কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল কাদের ছাড়া বাকী আসামিরা হলেন- হেলাল উদ্দিন প্রকাশ হেলাল, ওবাইদুল করিম মিন্টু, আসাদ রায়হান, ইমরান হোসেন ডলার, দিদার উল্লাহ, মিনহাজ হোসেন ফরহাদ, শহিদুল ইসলাম প্রকাশ সাহেদ, জাহিদুল আলম জাহিদ, শহিদুল ইসলাম এবং আবদুর রহমান।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক শাহাদাত হোসেন খান নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মঙ্গলবার রাতে নগরীর ডবলমুরিং থানাধীন মোগলটুলি মগপুকুরপাড় এলাকায় ২৮ নম্বর পাঠানটুলি ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুর এবং বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল কাদেরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে দুজন গুলিবিদ্ধ হন। গুলিবিদ্ধ দুজন কাউন্সিলর প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুরের সমর্থক।

পরে গুলিবিদ্ধ দুজনের মধ্যে আজগর আলী প্রকাশ বাবুল সর্দার নিহত হন।

এ ঘটনায় ওই রাতেই নিহতের ছেলে সেজান মাহমুদ বাদী হয়ে নগরীর ডাবলমুরিং থানায় কাউন্সিলর প্রার্থী কাদেরকে প্রধান আসামি করে ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

রাতেই নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে কাদের সহ ২৬ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এর মধ্যে প্রথমিক তদন্তে সংশ্লিষ্টতা না পাওয়ায় ১২ জনকে মুচলেখা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য