মুজিব জন্মশতবর্ষে নান্দাইলে ২৭ রোগীকে অর্থ সহায়তা

মুজিব জন্মশতবর্ষে নান্দাইলে ২৭ রোগীকে অর্থ সহায়তা

স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গরিব, দুঃখী ও অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে রাত-দিন কাজ করে যাচ্ছেন। এরই অংশ হিসেবে ২৭ জন রোগীর চিকিৎসার জন্য এই অর্থ সহায়তা দেয়া হয়েছে।’

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ময়মনসিংহের নান্দাইলে ২৭ জন রোগীর মাঝে চেক বিতরণ করা হয়েছে।

উপজেলা সমাজসেবা অফিসের আয়োজনে শুক্রবার দুপুরে তাদের মাঝে ১৩ লাখ ৫০ হাজার টাকার চেক বিতরণ করা হয়।

সমাজসেবা কর্মকর্তা ইনসান আলী বলেন, ‘আমার অফিসে রোগীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে যাচাই-বাছাই শেষে ক্যান্সার, কিডনি, লিভার সিরোসিস, থ্যালাসেমিয়া, স্ট্রোকে প্যারালাইজড এবং জন্মগত হৃদরোগে আক্রান্ত ২৭ রোগীকে এই চেক দেয়া হয়।’

রোগীদের হাতে চেক তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন।

তিনি বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গরিব, দুঃখী ও অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে রাত-দিন কাজ করে যাচ্ছেন। এরই অংশ হিসেবে ২৭ জন রোগীর চিকিৎসার জন্য এই অর্থ সহায়তা দেয়া হয়েছে।’

এই অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র মো. রফিকউদ্দিন ভূঁইয়া, ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান আবু বকর সিদ্দিক, মোহাম্মদ আলী।

আরও পড়ুন:
মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে ৩৪ কিলোমিটার পদযাত্রা
শোভাযাত্রায় বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য
বাংলাদেশের ৫০
স্বাধীনতার ৫০ বছর : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা 

শেয়ার করুন

মন্তব্য

জেলের জালে ১৫ কেজির বোয়াল

জেলের জালে ১৫ কেজির বোয়াল

শুক্রবার ভোরে স্থানীয় মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির লোকজন হালতি বিলে মাছ ধরতে নামে। এরই এক পর্যায়ে তাদের জালে বোয়ালটি আটকা পড়ে। পরে তারা মাছটি বিক্রির জন্য আড়তে আনেন।

নাটোরে জেলেদের জালে ধরা পড়েছে ১৫ কেজি ওজনের একটি বোয়াল মাছ।

শুক্রবার ভোরে হালতি বিলে মাছটি ধরা পড়ে। পরে মাছটি সিংড়া মৎস আড়তে আনা হলে তা দেখতে ভিড় জমায় উৎসুক জনতা।

মাছটি সেখানে ২০ হাজার ৫৫০ টাকায় বিক্রি হয়।

সিংড়া জনতা মৎস্য আড়তের স্বত্বাধিকারী আব্দুস সালাম নিউজবাংলাকে জানান, শুক্রবার ভোরে স্থানীয় মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির লোকজন হালতি বিলে মাছ ধরতে নামে। একপর্যায়ে তাদের জালে বোয়ালটি আটকা পড়ে। পরে তারা মাছটি বিক্রির জন্য তার আড়তে আনেন।

মাছটি বেশ কয়েকজন কিনতে চান। পরে হয় নিলাম। এতে সর্বোচ্চ দর হেঁকে মাছটি কিনে নেন আতাহার আলী নামে এক মাছ ব্যবসায়ী।

চলনবিল জীববৈচিত্র্য রক্ষা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, ‘এক সময় হালতি বিল ও চলনবিলসহ ছোট বড় বিলে প্রায়শই বিশাল আকৃতির বোয়ালসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ জেলেদের জালে ধরা পড়ত। তবে খাল-বিলে পানি শুকিয়ে যাওয়ায় হারিয়ে গেছে দেশীয় প্রজাতির অনেক মাছ। বড় আকারের বোয়াল জেলেদের জালে ধরা পড়ায় আবারও আশার সঞ্চার হয়েছে।’

বিলে পানি থাকাসহ মাছের অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারলে আবার বড় আকৃতির মাছ পাওয়া যাবে বলে আশাবাদী এই পরিবেশবাদী।

আরও পড়ুন:
মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে ৩৪ কিলোমিটার পদযাত্রা
শোভাযাত্রায় বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য
বাংলাদেশের ৫০
স্বাধীনতার ৫০ বছর : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা 

শেয়ার করুন

প্রতি সপ্তাহে সৌখিন পায়রার হাট

প্রতি সপ্তাহে সৌখিন পায়রার হাট

আহম্মেদপুরে সৌখিন পায়রার হাট। ছবি: নিউজবাংলা

এই হাটে সিরাজী, বোম্বাই, বোখারা, ফিলব্যাক, কিং, মং, আউল, সার্টিন পোটার, বিউটি, লক্ষা, মুক্ষি, ডাউন ফেইস, ইন্ডিয়ান ফান্টেল, সট ফেইস, রেসার, মুন্ডিয়ানসহ দেশি বিদেশি নানা জাতের কবুতর এসেছে।

নাটোরের আহম্মেদপুরে সৌখিন পায়রার সাপ্তাহিক হাট উদ্বোধন করা হয়েছে।

স্থানীয় ব্যবসায়ী মোশাররফ হোসেন মিঠু বৃহস্পতিবার হাট উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধন শেষে মিঠু জানান, সৌখিন কবুতর পালনকারীদের বাণিজ্যিক খামারে উৎসাহিত করতে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।এখানে সিরাজী, বোম্বাই, বোখারা, ফিলব্যাক, কিং, মং, আউল, সার্টিন পোটার, বিউটি, লক্ষা, মুক্ষি, ডাউন ফেইস, ইন্ডিয়ান ফান্টেল, সট ফেইস, রেসার, মুন্ডিয়ানসহ দেশি বিদেশি নানা জাতের কবুতর এসেছে।

জাতভেদে এক জোড়া কবুতরের দাম পড়বে এক হাজার থেকে এক লাখ টাকা পর্যন্ত।

চাঁচকৈড় পায়রা পালক সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত এই হাট এখন থেকে প্রতি বৃহস্পতিবার আহম্মেদপুরে বসবে।

আরও পড়ুন:
মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে ৩৪ কিলোমিটার পদযাত্রা
শোভাযাত্রায় বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য
বাংলাদেশের ৫০
স্বাধীনতার ৫০ বছর : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা 

শেয়ার করুন

শিক্ষা জাতীয়করণের দাবিতে বরিশালে মানববন্ধন

শিক্ষা জাতীয়করণের দাবিতে বরিশালে মানববন্ধন

বক্তারা জানান, ১৯৭৩ সালের যুদ্ধ বিধ্বস্ত স্বাধীন বাংলাদেশে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের প্রাথমিক শিক্ষাকে জাতীয়করণ করেছিলেন। সম্প্রতি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব নিবন্ধিত হওয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারি আওতায় এনেছেন। এখন সময়ের দাবি শিক্ষা জাতীয়করণ করা।

শিক্ষা জাতীয়করণের এক দফা দাবিতে বরিশালে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতির বরিশাল বিভাগীয় কমিটি।

এই দাবিতে মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে কিছুক্ষণ অবস্থানও নেন আয়োজকরা। এরপর প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে স্মারকলিপি দেন তারা।

নগরীর অশ্বিনী কুমার হলের সামনে রোববার দুপুরে এই কর্মসূচি পালন করেন সংগঠনের সদস্যরা।

এসময় সংগঠনের নেতারা অভিযোগ করেন, বেসরকারি স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার প্রায় ৫ লাখ শিক্ষক-কর্মচারী অনেকদিন ধরে নানা অব্যবস্থাপণার কারণে বৈষম্যের শিকার।

তারা বলেন, বেসরকারি শিক্ষকদের জন্য উৎসব ভাতা মূল বেতনের মাত্র ৫০ ভাগ। ঘর ভাড়া বাবদ মাত্র এক হাজার টাকা ও চিকিৎসা ভাতা মাত্র ৫০০ টাকা দেয়া হয়। বৃদ্ধ বয়সে নিরাপত্তার জন্য নেই পেনশন-গ্রাচুইটির কোনো ব্যবস্থা, নাই কোনো সামাজিক মর্যাদা।

বক্তারা জানান, ১৯৭৩ সালের যুদ্ধ বিধ্বস্ত স্বাধীন বাংলাদেশে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের প্রাথমিক শিক্ষাকে জাতীয়করণ করেছিলেন। সম্প্রতি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব নিবন্ধিত হওয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারিকরণ করেছেন। এখন সময়ের দাবি শিক্ষা জাতীয়করণ করা।

তাই স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিব জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে শিক্ষা জাতীয়করণের দাবি জানান সংগঠনের নেতারা।

আরও পড়ুন:
মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে ৩৪ কিলোমিটার পদযাত্রা
শোভাযাত্রায় বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য
বাংলাদেশের ৫০
স্বাধীনতার ৫০ বছর : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা 

শেয়ার করুন

মহানন্দার তীরে ঘুড়ি উৎসব

মহানন্দার তীরে ঘুড়ি উৎসব

ঘুড়ি উৎসবের উদ্বোধন করেন অতিথিরা।

‘ঘুড়ি উৎসবের সময়টা বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত না রেখে দিনব্যাপী করা যেত। আর আয়োজনটা আরেকটু গোছানো হতে পারত। আশাকরি আগামীতে আরও বড় পরিসরে এমন উৎসব হবে।’

চাঁপাইনবাবগঞ্জের মহানন্দায় হয়ে গেল ঘুড়ি উৎসব।

বারোঘরিয়া ইউনিয়নে নদীতীরে দৃষ্টিনন্দন পার্কে শনিবার বিকেলে ঘুড়ি উৎসব উদ্বোধন করেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিবের সহধর্মিনী রওনক আরা খানম। উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মঞ্জরুল হাফিজসহ আরও অনেকে।

ঘুড়ি উড়াতে আসে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র ফাইম। তিনি বলেন, ‘বিকেলে নদীর তীরে মাঝেমধ্যে আসি। গতকাল এসে জানতে পারি ঘুড়ি উৎসবের কথা। তাই ঘুড়ি নিয়ে এসেছি। উড়াতে ভালই লাগছে।’

ফকির পাড়ার বাসিন্দা হাবিবুর রহমান কলি বলেন, ‘ছোটবেলায় ঘুড়ি উড়াতাম। অনেকদিন উড়ানোর সুযোগ পায়নি। আজকে সুযোগ পেয়ে ঘুড়ি নিয়ে আসলাম’।


বারোঘরিয়া ইউনিয়নের মহানন্দার তীরে এমনিতেই দর্শনার্থীদের আনাগোনা থাকে। ঘুড়ি উৎসব ঘিরে শনিবার মানুষের উপস্থিতি ছিল কিছুটা বেশি।

ঘুরতে আসা বাবুল আক্তার বলেন, ঘুড়ি উৎসবের সময়টা বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত না রেখে দিনব্যাপী করা যেত। আর আয়োজনটা আরেকটু গোছানো হতে পারত। আশাকরি আগামীতে আরও বড় পরিসরে এমন উৎসব হবে।

ঘুড়ি উৎসবে বাড়তি মাত্রা যোগ করে গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী ঝান্ডি গান।

আরও পড়ুন:
মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে ৩৪ কিলোমিটার পদযাত্রা
শোভাযাত্রায় বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য
বাংলাদেশের ৫০
স্বাধীনতার ৫০ বছর : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা 

শেয়ার করুন

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে বইয়ের উৎসব

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে বইয়ের উৎসব

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনে সৈয়দপুরে বই বিনিময় উৎসবের আয়োজন করেন স্থানীয় তরুণ-তরুণীরা।

রেজওয়ান হাবিব রাফসান বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর ব্যক্তিগত লাইব্রেরির সংগ্রহ ছিল অনেক সমৃদ্ধ। বছরের পর বছর তিনি কারাগারে কাটিয়েছেন। সেই নিঃসঙ্গ দিনগুলোতে তার সঙ্গী ছিল বই। আমরা মনে করি বইয়ের প্রচার মানেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রচার।’

খোলা মাঠে শামিয়ানা টাঙিয়ে বিভিন্ন জায়গায় রাখা হয়েছে বই। সেখান থেকে নিজেদের পছন্দমতো বই বেছে নিচ্ছেন আগতরা। অনেকে নিজের বই রেখে দিচ্ছেন আরেকজনের জন্য।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘বঙ্গবন্ধু বই বিনিময় উৎসব-২০২১’ নামে এমন ব্যতিক্রমী আয়োজন করেছিলেন নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের কিছু তরুণ-তরুণী। আয়োজনে সহযোগী হিসেবে ছিল উপজেলা প্রশাসন।

বুধবার সৈয়দপুরের বিমানবন্দর সড়কের স্মৃতিসৌধ চত্বরে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত হওয়া এই উৎসবে অংশ নেন শহরের কয়েক শ মানুষ। এদের বড় অংশই ছিলেন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী।

বই-NB
বই বিনিময় উৎসবে পাঠকদের ভিড়

সকাল ১০টায় উৎসব উদ্বোধন করেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য রাবেয়া আলীম।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিন, পৌরসভা মেয়র রাফিকা আকতার জাহান এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসিম আহমেদ।

বই-NB
বই বিনিময় উৎসবে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অতিথিরা

আয়োজকদের একজন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রেজওয়ান হাবিব রাফসান বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর জীবন থেকে আমরা দেখেছি যে তিনি কতটা বই অনুরাগী ছিলেন, তার ব্যক্তিগত লাইব্রেরির সংগ্রহ ছিল অনেক সমৃদ্ধ। বছরের পর বছর তিনি কাটিয়েছিলেন কারাগারে, সেই নিঃসঙ্গ দিনগুলোতে তার সঙ্গী ছিল বই। আমরা মনে করি বইয়ের প্রচার মানেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রচার।’

তিনি বলেন, ‘বই বিনিময়ের এই উৎসব করে আমরা বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথেই হাঁটার চেষ্টা করেছি। প্রতি বছরই এই উৎসব আয়োজনের চেষ্টা থাকবে।’

আরও পড়ুন:
মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে ৩৪ কিলোমিটার পদযাত্রা
শোভাযাত্রায় বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য
বাংলাদেশের ৫০
স্বাধীনতার ৫০ বছর : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা 

শেয়ার করুন

বেসরকারি খাতে প্রতিবন্ধী অন্তর্ভুক্তিমূলক দক্ষতা ও কর্মসংস্থান নিয়ে ওয়েবিনার

বেসরকারি খাতে প্রতিবন্ধী অন্তর্ভুক্তিমূলক দক্ষতা ও কর্মসংস্থান নিয়ে ওয়েবিনার

ব্রিটিশ সরকারের ফরেইন কমনওয়েলথ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অফিসের (এফসিডিও) অর্থায়নে পরিচালিত ইনোভেশন টু ইনক্লুশন (আইটুআই) প্রকল্প বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে এ ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ বিজনেস অ্যান্ড ডিজ্যাবিলিটি নেটওয়ার্ক (বিবিডিএন) এবং চট্টগ্রাম চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (সিসিসিআই) মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) যৌথভাবে একটি ওয়েবিনারের আয়োজন করে, যার শিরোনাম: “বেসরকারি খাতে প্রতিবন্ধী অন্তর্ভুক্তিমূলক দক্ষতা ও কর্মসংস্থানের সুযোগ”।

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী, এমপি। এতে অংশ নেন চট্টগ্রাম চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির শিল্পমালিক ও ব্যবসায়ী নেতারা।

ব্রিটিশ সরকারের ফরেইন কমনওয়েলথ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অফিসের (এফসিডিও) অর্থায়নে পরিচালিত ইনোভেশন টু ইনক্লুশন (আইটুআই) প্রকল্প বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে এ ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়।

ওয়েবিনারে আলোচক হিসেবে অংশ নেন বিবিডিএন-এর চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন কাশেম খান, সিসিসিআই-এর প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম, অ্যাসকেসিবিলিটি, অ্যাসপায়ার টু ইনোভেট (এটুআই)-এর জাতীয় কনসালটেন্ট ভাস্কর ভট্টাচার্য্য, বিবিডিএন-এর সিইও মুর্তেজা রাফি খান, লিওনার্স চেশায়ারের কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ জহির বিন সিদ্দীক ও বিবিডিএন-এর নির্বাহী কিমিটির ট্রাস্টি ও চেয়ার সাদাফ সাজ সিদ্দিকী। ওয়েবিনার সঞ্চালনা করেন বিবিডিএনের হেড অফ অপারেশন আজিজা আহমেদ।

লিওনার্দ চেশায়ারের কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ জহির বিন সিদ্দিক আলোচনার সূত্রপাত ঘটিয়ে ইনোভেশন টু ইনক্লুশন (আইটুআই)-এর কর্মকাণ্ডের একটি সার্বিক ধারণা তুলে ধরেন। বিবিডিএন-এর সিইও মুর্তেজা রাফি খান বিবিডিএন-এর কর্মকাণ্ড তুলে ধরে বলেন, এটি প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ও নিয়োগকারীদের মধ্যে একটি সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করছে।

অ্যাকসেসিবিলিটি, অ্যাসপায়ার টু ইনোভেশন (এটুআই)-এর জাতীয় কনসালটেন্ট ভাস্কর ভট্টাচার্য্য বলেন, বেসরকারি খাত যদি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ওপর আস্থা রাখে, তাহলে এটি এই কমিউনিটির মনোবল দৃঢ় করবে এবং তাদের অঙ্গীকার নিশ্চিত করবে।

বিবিডিএন চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন কাশেম খান বলেন, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সাংবিধানিক অধিকার নিশ্চিত করতে এবং সার্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি জোরদার করতে বেসরকারি খাত, এনজিও এবং সরকারের উচিৎ একটি টিম হিসেবে সমন্বিতভাবে কাজ করা।

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, প্রতিবন্ধিতার বিভিন্ন দিক শিক্ষাক্রমে অন্তর্ভুক্ত করার জন্যে সরকার নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে। একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক ভবিষ্যতের জন্যে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ব্যাপারে মানসিক ও সাংস্কৃতিক পরিবর্তনের ওপর জোর দেন তিনি।

সমাপনী বক্তব্যে বিবিডিএন-এর ট্রাস্টি ও নির্বাহী কমিটির চেয়ার সাদাফ সাজ সিদ্দিকী বলেন, বাংলাদেশে দারিদ্র্য বিমোচন মডেলের মতোই আমরা স্বল্প সম্পদের পরিবেশেও অন্তর্ভুক্তির একটি মডেল হয়ে উঠতে পারি।

আরও পড়ুন:
মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে ৩৪ কিলোমিটার পদযাত্রা
শোভাযাত্রায় বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য
বাংলাদেশের ৫০
স্বাধীনতার ৫০ বছর : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা 

শেয়ার করুন