শাস্তির চেয়ে সচেতনতায় মনোযোগী সেনাবাহিনী

শাস্তির চেয়ে সচেতনতায় মনোযোগী সেনাবাহিনী

রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে সেনাবাহিনীর চেকপোস্ট। ছবি: নিউজবাংলা

বেলা আড়াইটা থেকে রাজধানীর শাহবাগে আধা ঘণ্টা স্থায়ী চেকপোস্টে সরকারের নির্দেশনা অমান্যকারীদের কোনো শাস্তি দিতে দেখা যায়নি সেনাবাহিনীকে। শাস্তির পরিবর্তে সচেতনতা বৃদ্ধিতে পথচারীদের বুঝিয়েছে তারা।

বৃষ্টি আর সাপ্তাহিক ছুটিতে ভিন্ন এক মাত্রা পেয়েছে শাটডাউনের দ্বিতীয় দিন। খুব কম মানুষই বের হচ্ছেন ঘরের বাইরে। ফলে অলস সময় কাটাতে দেখা যায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদেরও।

বেলা বাড়ার সঙ্গে বৃহস্পতিবারের মতো তাদের বেশ কিছু তৎপরতা দেখা যায়। দুপুরে রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে ঝটিকা চেকপোস্ট বসিয়ে সড়কে চলাচলকারীদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে দেখা যায় সেনাবাহিনীর একটি দলকে।

বেলা আড়াইটা থেকে আধা ঘণ্টা স্থায়ী এই চেকপোস্টে সরকারের নির্দেশনা অমান্যকারীদের কোনো শাস্তি দিতে দেখা যায়নি তাদের। শাস্তির পরিবর্তে সচেতনতা বৃদ্ধিতে পথচারীদের বুঝিয়েছে তারা।

শাহবাগ মোড়ে তিন ভাগে ভাগ হয়ে তিন সড়কে দাঁড়ান সেনাসদস্যরা। চলাচলকারী প্রতিটি গাড়ি থামিয়ে বের হওয়ার কারণ জিজ্ঞাসা করা হয়। এ সময় মাস্ক না পরে চলাচল করছে এমন কয়েকজনকে পাওয়া যায়। বাইরে বের হওয়ার যৌক্তিক কারণ দেখাতে না পারায় তাদের সামনে যেতে না দিয়ে ফিরিয়ে দেয়া হয়।

সেনাবাহিনীর এ দলটির দায়িত্বে ছিলেন মেজর হাসান চৌধুরী। নিউজবাংলাকে তিনি জানান, মূল সড়কের তুলনায় অলিগলিতে সাধারণ মানুষের চলাচল বেশি। তবে গতবারের তুলনায় এবার মানুষের ঘর থেকে বের হওয়ার প্রবণতা কম।

শাস্তির চেয়ে সচেতনতায় মনোযোগী সেনাবাহিনী

‘সরকারের সিদ্ধান্তকে মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিয়েছে। নির্দেশনা মেনে ঘর থেকে কম বের হচ্ছে। তারপরও যারা আইন মানছে না তাদের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের মাধ্যমে আইনের আওতায় আনছি।’

লকডাউন নিয়ে সাধারণ মানুষের ইতিবাচক মনোভাব রয়েছে বলে জানান মেজর হাসান।

আরও পড়ুন:
অমান্য শাটডাউন, ফরিদপুরে একদিনে ৯ মৃত্যু
সড়ক ফাঁকা, বাজারে গাদাগাদি
শাটডাউনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য: ঢাকায় আটক বেড়ে ৫৫০
শাটডাউনে লুকোচুরির কাঁচাবাজার
শাটডাউনের প্রথম দিনেই আয়হীন

শেয়ার করুন

মন্তব্য