বিস্ফোরণ জমে থাকা গ্যাস থেকে: পুলিশ

বিস্ফোরণ জমে থাকা গ্যাস থেকে: পুলিশ

বিস্ফোরণের পর মগবাজারের ৩ তলা ভবনে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার তৎপরতা। ছবি: সাইফুল ইসলাম

ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘এখানে খুব সম্ভবত গ্যাস জমে ছিল। সেই গ্যাস বিস্ফোরণের কারণেই আশপাশের সাতটা বিল্ডিং ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। দুটি বাস ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত আমরা যে খবর পেয়েছি তাতে সাতজন মারা গেছেন। আমার কাছে নাশকতা মনে হচ্ছে না। নাশকতা হলে স্প্লিন্টার থাকত।’

মগবাজার বিস্ফোরণকে নাশকতা হিসেবে দেখছে না পুলিশ। বাহিনীটি বলছে, জমে থাকা গ্যাস থেকে এ বিস্ফোরণ ঘটতে পারে।

রোববার রাতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার শফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘এখানে খুব সম্ভবত গ্যাস জমে ছিল। সেই গ্যাস বিস্ফোরণের কারণেই আশপাশের সাতটা বিল্ডিং ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। দুটি বাস ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত আমরা যে খবর পেয়েছি তাতে সাতজন মারা গেছেন।

‘আমার কাছে নাশকতা মনে হচ্ছে না। নাশকতা হলে স্প্লিন্টার থাকত। স্প্লিন্টারের আঘাতে আশপাশের মানুষ ক্ষতবিক্ষত হয়ে পড়ত। আপনারা বাস দেখেছেন। বাসে কিন্তু কোনো স্প্লিন্টার নেই। সুতরাং এটা বলা যায় এখানে বোমার কোনো ঘটনা ছিল না। গ্যাস থেকেই এটা হয়েছে।’

ফায়ার সার্ভিস বলছে, মগ বাজারের বিস্ফোরণে আহতদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৩৯ জনকে এবং শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ১৭ জনকে ভর্তি করা হয়েছে। এ ছাড়া, আহতদের মধ্যে কয়েক জনকে মহানগর ও আদদ্বীন হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারির প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, ‘এখন পর্যন্ত বার্ন ইউনিটে ১৭ জন আসছেন। এর মধ্যে দুইজন মারা গেছেন। দুইজনকে আইসিইউতে রাখছি। তিনজনের অবস্থান খুবই খারাপ। তাদের অবস্থা বলা মুশকিল।

‘বাকি যারা ভর্তি রয়েছে তাদের কারো হাত কাটছে। কারো পা কাটছে। তাদের আমরা চিকিৎসা দিচ্ছি। এদের অবস্থা তেমন জটিল নয়। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে এদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে রোগীরা আগুনে পুড়েছে। আমরা বলতে পারি, তিন জন ছাড়া বাকিদের অবস্থা জটিল নয়।’

বিস্ফোরণ জমে থাকা গ্যাস থেকে: পুলিশ

রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মগবাজার ওয়্যারলেস এলাকার আড়ংয়ের শোরুম ও রাশমনো হাসপাতালের উল্টো দিকের মূল সড়ক লাগোয়া একটি ভবনে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে আগুনের ঝলকানি দেখা গেলেও তা অগ্নিকাণ্ডে রূপ নেয়নি। এ ঘটনায় আশপাশের ৭টি ভবন ও তিনটি বাস ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী গাড়িচালক মো. মিঠু নিউজবাংলাকে বলেন, ‘বিস্ফোরণটি বিকট শব্দের ছিল। আগুনের ঝলকানিও দেখছি। অনেকে আহত হয়েছেন। রক্তাক্ত অবস্থায় তাদের হাসপাতালে নিতে দেখেছি।’

আরও পড়ুন:
মগবাজার বিস্ফোরণে নিহত ৪, আহত ৪০
বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানো বন্ধের নির্দেশ আইজিপির
৬ শিশুর মৃত্যু: বেলুন বিক্রেতাসহ ২ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

শেয়ার করুন

মন্তব্য