করোনার জাল সনদ বিক্রি: ৪ জন কারাগারে

করোনার জাল সনদ বিক্রি: ৪ জন কারাগারে

আসামিরা নিজেরাই ডাক্তার সেজে কোভিড-১৯-এর জাল সনদ তৈরিসহ বিদেশগামী যাত্রীদের কাছে তা বিক্রি করে নিজেরা লাভবান হওয়ার জন্য প্রতারণার মাধ্যমে টাকা আত্মসাৎ করতেন।

করোনা পরীক্ষার জাল সনদ বিক্রির অভিযোগে রাজধানীর তেজগাঁও এলাকা থেকে গ্রেপ্তার ৪ জনকে রিমান্ড ফেরত কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার ২ দিনের রিমান্ড শেষে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তেজগাঁও থানার এসআই হযরত আলী মিলন আসামিদের আদালতে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন।

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার মুখ্য মহানগর আদালতের (সিএমএম) হাকিম আবু সুফিয়ান মো. নোমান ওই ৪ জনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

কারাগারে পাঠানো আসামিরা হলেন, মো. ইলিয়াস, দীপক চন্দ্র বৈদ্য, জাকির হোসেন ও মো. নুরনবী।

বিষয়টি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই হযরত আলী নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেন।

গত ৮ জুন আসামিদের ২ দিন করে রিমান্ডে পাঠায় আদালত।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, আসামিরা নিজেরাই ডাক্তার সেজে কোভিড-১৯-এর জাল সনদ তৈরিসহ বিদেশগামী যাত্রীদের কাছে তা বিক্রি করে নিজেরা লাভবান হওয়ার জন্য প্রতারণার মাধ্যমে টাকা আত্মসাৎ করতেন।

জাল সনদকে আসল হিসেবে বিভিন্ন জনের কাছে বিক্রি করা হতো—এমন অভিযোগে গত ৮ জুন তেজগাঁও থানাধীন পুরাতন এয়ারপোর্ট রোডের বিজয় স্বরণীর ‘সিএসবিএফ হেলথ সেন্টার’ নামক প্রতিষ্ঠানের সামনে থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

এ ঘটনায় নায়েব সুবেদার সামসুল আলম তেজগাঁও থানায় ডাক্তারের ছদ্মবেশ ধারণ ও সনদ জালিয়াতির অভিযোগে মামলাটি করেন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য