এবার কোনো প্রশ্ন ছাড়াই পুঁজিবাজারে কালোটাকা বিনিয়োগ

এবার কোনো প্রশ্ন ছাড়াই পুঁজিবাজারে কালোটাকা বিনিয়োগ

‘এবার নতুন যে সুযোগটি দেয়া হয়েছে, সেটি হলো কোথা থেকে টাকা এসেছে, সে প্রশ্ন সরকারের কোনো সংস্থাই করবে না। বিদায়ী বাজেটে যে সুযোগ ছিল, তাতে টাকা কোথা থেকে এসেছে, সে প্রশ্নের উত্তর সুনির্দিষ্ট করে উল্লেখ করতে হতো। এবার সে ধরনের কিছুই করতে হবে না।’

কোনো প্রশ্ন ছাড়াই পুঁজিবাজারে কালোটাকা সাদা করা যাবে। তবে এবার কর দিতে হবে ২৫ শতাংশ। সেই সঙ্গে করের ওপর জরিমানা গুনতে হবে ৫ শতাংশ।

জাতীয় সংসদে মঙ্গলবার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বাজেট অধিবেশনে এই বিশেষ সুযোগ রেখে অর্থবিল ২০২১ পাস হয়।

৩ জুন জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ২০২১-২২ অর্থবছরের যে বাজেট প্রস্তাব করেছিলেন, তাতে পুঁজিবাজারে কালোটাকা সাদা করার সুযোগ ছিল না।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা (বিএসইসি), ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জসহ (সিএসই) বাজারসংশ্লিষ্টদের দাবির পরিপেক্ষিতে শেষ পর্যন্ত পুঁজিবাজারে কালোটাকা সাদা করার সুযোগ রেখে পাস হয় অর্থবিল।

সরকারের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন ডিএসইর পরিচালক শাকিল রিজভী। এ সুযোগ পুঁজিবাজারের জন্য ‘খুবই ভালো’ হবে বলেও মনে করছেন তিনি।

নিউজবাংলাকে তিনি বলেন, ‘এবার নতুন যে সুযোগটি দেয়া হয়েছে, সেটি হলো কোথা থেকে টাকা এসেছে, সে প্রশ্ন সরকারের কোনো সংস্থাই করবে না। বিদায়ী বাজেটে যে সুযোগ ছিল, তাতে টাকা কোথা থেকে এসেছে, সে প্রশ্নের উত্তর সুনির্দিষ্ট করে উল্লেখ করতে হতো। এবার সে ধরনের কিছুই করতে হবে না।

‘কেউ যদি টাকা ডাকাতি করেও আনে, তাতে কোনো সমস্যা নেই; সেই টাকা দিয়ে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে পারবে।

‘আর সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, বিশাল অঙ্কের এই কালোটাকা তো অর্থনীতির মূলধারায় নিয়ে আসতে হবে। ইউরোপ-আমেরিকার মতো দেশে ১০০ বছর আগে এই সুযোগ দেয়া হয়েছে।’

সার্বিকভাবে এই সুযোগ পুঁজিবাজারে আরও ভালো ফল বয়ে আনবে বলে মনে করেন এই পুঁজিবাজার বিশ্লেষক।

৩০ জুন শেষ হতে যাওয়া ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে পুঁজিবাজারে কালোটাকা সাদা করার যে সুযোগ ছিল, তাতে ১০ শতাংশ কর দিতে হতো। তবে টাকা কোথা থেকে এসেছে, তার জবাব দিতে হতো।

১ জুলাই শুরু হওয়া ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে কালোটাকা সাদা রাখার সুযোগের বিষয়ে শাকিল রিজভী বলেন, ‘এবার কর বাড়লেও বাড়তি যে সুযোগ দেয়া হয়েছে, তাতে আরও বেশি টাকা পুঁজিবাজারে আসবে। বাজার আরও ভালো হবে। আর ৫ শতাংশ যে জরিমানা দিতে হবে, সেটি করের ওপর দিতে হবে। মোট হিসাবে খুব সামান্যই হবে সেটা।’

অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল ২০২১-২২ অর্থবছরের যে বাজেট প্রস্তাব সংসদে উপস্থাপন করেছিলেন, তাতে তিনি বলেছিলেন, পুঁজিবাজারে সাম্প্রতিক যে উত্থান, তার পেছনে কালোটাকার প্রভাব রয়েছে। পুঁজিবাজার চাঙা হয়েছে কালোটাকায়। এর ফলে পুঁজিবাজারে অর্থের প্রবাহও বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিনি বলেন, ‘এক বছর লকইনসহ কতিপয় শর্ত সাপেক্ষে পুঁজিবাজারে অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের আওতায় গত অর্থবছরের শুরু থেকে গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ৩১১ জন করদাতা অর্থ বিনিয়োগ করেছেন।

‘এই বিনিয়োগ থেকে সরকার ৪৩ কোটি ৫৪ লাখ ৫২ হাজার ৯৮ টাকা আয়কর পেয়েছে। যার ফলে দেশের পুঁজিবাজারে অর্থের প্রবাহ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং পুঁজিবাজার শক্তিশালী হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
কালোটাকা সাদাতে কর বাড়ছে
এবারও কালোটাকা সাদা করার সুযোগ রাখা হচ্ছে
টাকা সাদা করার সুযোগ জানতে ধৈর্য ধরুন
কালোটাকার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত এক মাস পর
কালোটাকা সাদা করার উদ্যোগ ভারতেও ব্যর্থ

শেয়ার করুন

মন্তব্য