মহামারি মোকাবিলার দ্বিতীয় বাজেট নিয়ে আসছেন অর্থমন্ত্রী

মহামারি মোকাবিলার দ্বিতীয় বাজেট নিয়ে আসছেন অর্থমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ফাইল ছবি

করোনাভাইরাস মহামারির উৎকণ্ঠা ও আতঙ্কের মধ্যে গতবারের মতো এবারও ভিন্ন প্রেক্ষাপটে অর্থমন্ত্রী সংসদে বাজেট উপস্থাপন করবেন। বৃহস্পতিবার বেলা ৩টায় জাতীয় সংসদে ২০২১-২২ অর্থবছরের এই প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করবেন তিনি।

স্বাধীন বাংলাদেশে তাজউদ্দীন আহমদ ৭৮৬ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করে ১৯৭২ সালে যে যাত্রার সূচনা করেছিলেন, সেই পথ ধরে বাংলাদেশের ৫০তম বাজেট বৃহস্পতিবার উপস্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

যার আকার হতে পারে ৬ লাখ কোটি টাকার কিছু বেশি। এই হিসাবে ৫০ বছরে বাংলাদেশের সরকারি ব্যয়ের ফর্দ বাড়ছে ৭৭০ গুণ।

করোনাভাইরাস মহামারির উৎকণ্ঠা ও আতঙ্কের মধ্যে গতবারের মতো এবারও ভিন্ন প্রেক্ষাপটে অর্থমন্ত্রী সংসদে বাজেট উপস্থাপন করবেন।

বৃহস্পতিবার বেলা ৩টায় জাতীয় সংসদে ২০২১-২২ অর্থবছরের এই প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করবেন মুস্তফা কামাল। তা পাস হবে ৩০ জুন। ১ জুলাই শুরু হবে নতুন অর্থবছর।

বুধবার শুরু হয়েছে বাজেট অধিবেশন। এবারও এই অধিবেশন হবে সংক্ষিপ্ত। ভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে বয়স্ক সংসদ সদস্যরা যথাসম্ভব অধিবেশনে কম উপস্থিত থাকবেন।

স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে এর আগে বিভিন্ন সরকারের ১২ জন অর্থমন্ত্রী (অথবা অর্থ উপদেষ্টা অথবা সামরিক শাসক) ৪৭টি বাজেট উপস্থাপন করেছেন।

মুস্তফা কামাল ২০১৯ সালের ১৩ জুন তার প্রথম বাজেট (২০১৯-২০ অর্থবছর) উপস্থাপন করেন। ২০২০ সালের ১১ জুন উপস্থাপন করেন দ্বিতীয় বাজেট। বৃহস্পতিবার উপস্থাপন করবেন তৃতীয় বাজেট।

সংসদের সমান ১২ বার বাজেট পেশের রেকর্ড রয়েছে এম সাইফুর রহমান এবং আবুল মাল আবদুল মুহিতের। তবে টানা ১০টি বাজেট দেয়ার রেকর্ড শুধু মুহিতের।

শেখ হাসিনার সরকারের অর্থমন্ত্রী হিসেবে টানা ১০টিসহ মোট ১২টি বাজেট পেশ করেছেন মুহিত। এর আগে তিনি এইচ এম এরশাদের সামরিক সরকারের অর্থমন্ত্রী হিসেবে ১৯৮২-৮৩ ও ১৯৮৩-৮৪ এই দুই অর্থবছরের বাজেট দেন।

বুধবার অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে প্রাধিকার পাবে দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠী।

‘জীবন-জীবিকায় প্রাধান্য দিয়ে সুদৃঢ় আগামীর পথে বাংলাদেশ’ শিরোনামে এবারের বাজেট প্রণয়ন হয়েছে সরকারের অতীতের অর্জন এবং উদ্ভূত পরিস্থিতির সমন্বয়ে।

বাজেটে সংগত কারণেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে স্বাস্থ্য খাতে। কোভিড-১৯ মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজগুলোর বাস্তবায়ন, কৃষি খাত, খাদ্য উৎপাদন ও ব্যবস্থাপনাকে অধিক গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

অর্থবছরের পুরো সময়েই থাকবে সরকারের নানা ধরনের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি, বাড়ানো হবে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতা।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাজেটকে অধিকতর অংশগ্রহণমূলক করার লক্ষ্যে অর্থ বিভাগের ওয়েবসাইট www.mof.gov.bd-এ বাজেটের সব তথ্য ও গুরুত্বপূর্ণ দলিল যেকোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান পাঠ ও ডাউনলোড করতে পারবে এবং দেশ-বিদেশ থেকে ওই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফিডব্যাক ফরম পূরণ করে বাজেট সম্পর্কে মতামত ও সুপারিশ দেয়া যাবে।

প্রাপ্ত সব মতামত ও সুপারিশ বিবেচনা করা হবে। ব্যাপকভিত্তিক অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নিম্নলিখিত সরকারি ওয়েবসাইটেও বাজেটসংক্রান্ত তথ্য পাওয়া যাবে-

https://nbr.gov.bd

https://plandiv.gov.bd

https://imed.gov.bd

https://www.dpp.gov.bd

https://pmo.gov.bd

বাজেটোত্তর সংবাদ সম্মেলন শুক্রবার

প্রথা অনুযায়ী বাজেট উপস্থাপনের পরদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন অর্থমন্ত্রী।

এর অংশ হিসেবে ৪ জুন শুক্রবার বেলা ৩টায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেবেন তিনি।

বাজেটোত্তর ওই সংবাদ সম্মেলনে সরকারের অন্যান্য মন্ত্রী, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর এবং অর্থ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

আরও পড়ুন:
কৃষিতে ভর্তুকি বাড়ানোর দাবি ময়মনসিংহে
বাজেট দিতে অধিবেশনে সংসদ
‘লক্ষ্য থাকবে মানুষকে বাঁচানো, ব্যবসায়ীদের বাঁচানো’
আখের গোছায় ব্যক্তি, সুদ গোনে সরকার
১৭ লাখ কোটি টাকার বিকল্প বাজেট অর্থনীতি সমিতির

শেয়ার করুন

মন্তব্য