শীতে ত্বক সুস্থ রাখার ৭ কৌশল

শীতে ত্বক সুস্থ রাখার ৭ কৌশল

সাধারণত গ্রীষ্মের সময় সবাই সানস্ক্রিন ব্যবহার করে থাকেন। তবে শীতের সময়ও ঘাড়, কান এবং চিবুকের নিচের অংশে সানস্ক্রিন ব্যবহার করা জরুরি। কেননা ত্বকের এ অঞ্চলগুলো উম্মুক্ত থাকে প্রায় সবসময়; চলাফেরার সময় শীতের আদ্রতার ছোঁয়া পায়।

শীতের সময়ে ত্বকের প্রয়োজন বাড়তি যত্ন। রেড বিউটি সেলুনের রূপ বিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন ত্বক ফেটে যাওয়া বা খসখসে ভাব দূরে রাখতে জানিয়েছেন সাতটি উপায়।

১. প্রথম সমাধানটা খুব সহজ। বেশি করে পানি পান করুন। এ সময় গরম চায়ে লেবু আর আদা দিয়েও পান করলে উপকার পাবেন। পানি বেশি পান করলে আরামদায়ক অনুভূতি থাকবে সারা দিন।

২. ক্লিনজার ব্যবহারে সতর্ক হোন। অনেক ক্লিনজার আছে যাতে রাসায়নিক উপাদান থাকে, যা থেকে ত্বকের ক্ষতি বেশি হয়। কিছু ক্লিনজারে অ্যালকোহল বা সুগন্ধি থাকে। এটি ত্বকের ফাটল সমস্যা তৈরি করে। তাই এ সময়ে ক্লিনজারের ক্ষেত্রে ক্রিম জাতীয়গুলোই ব্যবহার করা ভালো।

৩. শীতে মেকআপ তোলার ক্ষেত্রে বাড়তি যত্ন নিন। ত্বকের যত্নে এক্সফোলিয়েট করুন। শুষ্ক ও চুলকানিযুক্ত ত্বকে এক্সফোলিয়েট করা জরুরি। এটি শুষ্ক আর মৃত ত্বককে সারিয়ে ফেলার পাশাপাশি নতুন কোষ তৈরিতেও সাহায্য করবে।

৪. আপনার ত্বকে প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে গন্ধযুক্ত জেরানিয়াম বা কমলা দিয়ে স্ক্রাব করুন। আবার এক্সফোলিয়েট স্ক্রাবগুলো সংগ্রহ করতে পারেন রান্নাঘরেরই নানা উপাদান দিয়ে।

৫. স্নানের প্রসঙ্গে আসি। শীতের এ সময়ে অনেকে স্নানে গরম পানি ব্যবহার করেন। দীর্ঘ সময় ধরে গরম পানিতে থাকলে তা ত্বকের প্রয়োজনীয় তেল কমিয়ে ফেলে। গরম পানি ত্বক শুষ্কও করে দেয়। তাই স্নানের সময়টা বেশিক্ষণ না হওয়ার কথাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

৬. প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। ত্বকে লোশন বা ময়েশ্চারাইজার পানি শুকানোর আগেই দিতে হবে। হাত-পা থেকে শুরু করে সবখানে প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহার করুন। নারিকেল তেলও ভালো কাজে দেবে।

৭. সঙ্গে রাখুন প্রয়োজনীয় শীতের প্রসাধনী। বাইরের আদ্রতা থেকে লিপ বাম দিয়ে ঠোঁটের যত্ন নিয়ে নিতে পারবেন। সঙ্গে রাখুন স্কার্ফ ও হ্যান্ড গ্লাভস, যা দিয়ে নাজুক ত্বক ঢেকে রাখতে পারবেন অনায়াসে। পোশাকের ক্ষেত্রে ত্বকে যেন রেশ না হয়, এ ধরনের আরামদায়ক কাপড় ব্যবহার করুন।

বাড়তি টিপস: সাধারণত গ্রীষ্মের সময় সবাই সানস্ক্রিন ব্যবহার করে থাকেন। তবে শীতের সময়ও ঘাড়, কান এবং চিবুকের নিচের অংশে সানস্ক্রিন ব্যবহার করা জরুরি। কেননা ত্বকের এ অঞ্চলগুলো উম্মুক্ত থাকে প্রায় সবসময়; চলাফেরার সময় শীতের আদ্রতার ছোঁয়া পায়। এর ফলে শুষ্ক হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

শীতকালের রোদে যে ক্ষতিকারক অতিবেগুনি রশ্মি থাকে, তা থেকেও রক্ষা করে। এ সময় এসপিএফ ৩০ সানস্ক্রিন ব্যবহার করা বেশি ভালো।

শেয়ার করুন

মন্তব্য