20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
প্রথম উপন্যাসেই বুকার

প্রথম উপন্যাসেই বুকার

৪৪ বছর বয়সেই ৫০ হাজার পাউন্ড মূল্যের সাহিত্যের সম্মানজনক পুরস্কারটি জিতলেন ডগলাস। মাত্র দ্বিতীয় স্কটিশ হিসেবে বুকার জিতলেন তিনি।

নিজের প্রথম উপন্যাসেই বাজিমাত করলেন ডগলাস স্টুয়ার্ট। ‘শাগি বেইন’ নামের উপন্যাসটিতে এবারের বুকার পুরস্কার জিতে নিয়েছেন এই স্কটিশ লেখক।

বিচারকেরা বলছেন, ১৯৮০ এর দশকে গ্লাসগো শহরের ভালোবাসা ও মাদকতার চিত্র অসাধারণভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন স্টুয়ার্ট, যা উপন্যাসটিকে ক্লাসিক করে তুলেছে।

৪৪ বছর বয়সেই ৫০ হাজার পাউন্ড মূল্যের সাহিত্যের সম্মানজনক পুরস্কারটি জিতলেন ডগলাস। রয়টার্সের খবরে বলা হয়, মাত্র দ্বিতীয় স্কটিশ হিসেবে বুকার জিতলেন তিনি।

নিজের শৈশবকালের স্মৃতিচারণায় উপন্যাসটি নিখেছেন স্টুয়ার্ট। একজন তরুণ যুবক গ্লাসগোতে মাদকাসক্ত মায়ের সঙ্গে কিভাবে বেড়ে উঠছে তার বর্ণনাই সুচারুভাবে তুলে এনেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, স্টুয়ার্টের বয়স যখন ষোলো তখন তার মায়ের মৃত্যু হয়।

‘আমি এটা স্পষ্ট করেছি যে, এই বইয়ের প্রত্যেকটি পৃষ্ঠায় আমার মায়ের কথা আছে। তাকে ছাড়া আমি এখানে আসতাম না এবং আমার কাজ এখানে উঠে আসতো না।’- বলেন স্টুয়ার্ট।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন, ‘দুর্ভাগ্যক্রমে আমার মা মাদকাআসক্তিতে ভুগছিলেন এবং সেই আসক্তি থেকে তিনি বাঁচতে পারেননি।

ইংল্যান্ডে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে লকডাউন চলছে। ফলে এবারের বুকার পুরস্কারের অনুষ্ঠানটি ছিল ভার্চুয়াল।

স্টুয়ার্ট আরও বলেন, ‘আমি ৩০টা বছর প্রিয়জন হারানো, ভালোবাসা ও বেদনার মতো ভয়াবহ এক অভিজ্ঞতা বহন করেছি। এই সময়টায় বিচিত্র গ্লাসগোয় বেড়ে ওঠা কেমন আমি কেবল সে গল্পই বলতে চেয়েছি।’

‘শাগি বেইন’ ছাড়াও এবারের বুকার প্রাইজের জন্য মনোনীত বইগুলির মধ্যে ছিল- অবনি দোশির ‘বার্নট সুগার’, যে বই ভারতে প্রকাশিত হয়েছে ‘গার্ল ইন হোয়াইট কটন’ নামে।

এ ছাড়া ছিল ডায়ানে কুকের ‘দ্য নিউ উইল্ডারনেস’, সিৎসি ডাংগারেম্বাগারের ‘দ্য মোর্নেবল বডি, মাজা মেনজিসতের ‘দ্য শ্যাডো কিং’ ও ব্র্যান্ডন টেলরের ‘রিয়েল লাইফ’।

ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, ব্রিটিশ প্রিন্স চার্লসের স্ত্রী ক্যামিলিয়া, সাবেক বুকারজয়ী কাজু ইশিগুরু, মার্গারেট অ্যাটউড ও বের্নারদিনে এভারিস্তো।

অনুষ্ঠানে বুকার পুরস্কারের প্রধান বিচারক মার্গারেট বাসবি বলেন, ‘শুগি বেইন’ উপন্যাসের লেখনি আকর্ষণীয় ও শক্তিশালী, যা উপন্যাসটিকে ক্লাসিক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য