চুক্তিভিত্তিক বিয়ে কি বৈধ?

চুক্তিভিত্তিক বিয়ে কি বৈধ?

আইনি সুবিধাবঞ্চিত আর্থিকভাবে অসহায় ভুক্তভোগীরা এই অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে আইনি সহায়তা চাইলে তাদের পাশে দাঁড়াবে নিউজবাংলার ‘আমার আইন, আমার অধিকার’।

সব ধরনের আইনি পরামর্শ ও সহায়তা দিতে নিউজবাংলার নিয়মিত আয়োজন ‘আমার আইন, আমার অধিকার’-এ এবারের বিষয়: চুক্তিভিত্তিক বিয়ে কি বৈধ? প্রচারিত হবে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।

শবনম ফারিয়ার সঞ্চালনায় শনিবার এ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার হবে নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকমের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।

আলোচনায় বিশেষজ্ঞ হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ব্যারিস্টার মিতি সানজানা ও কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের আইন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত প্রধান মেহেরবা সাবরীন। অনুষ্ঠানটি সম্প্রচার হবে পদ্মা ব্যাংকের সৌজন্যে।

‘আমার আইন, আমার অধিকার’ সম্পর্কে নিউজবাংলার এক মুখপাত্র বলেন, ‘আইন জানা নাগরিকের জন্য একান্ত প্রয়োজন। আইন ও আইনজীবী এই শব্দগুলো নিয়ে একধরনের ভীতি কাজ করে। তবে আইনের আশ্রয় লাভ করা একজন নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার।

‘নিজের আইনগত অধিকার সম্পর্কে না জানলে যে কেউ কোনো বিষয়ে ভুল পরামর্শ দিয়ে আপনাকে ভুল পথে পরিচালিত করতে পারে। কোনো নাগরিক রাষ্ট্রের কাছে কী কী সুযোগসুবিধার অধিকারী, সেটি যদি তিনি না জানেন, তাহলে তিনি ন্যায্য দাবি আদায় করতে পারবেন না।’

তিনি বলেন, ‘নাগরিকের আইনি অধিকার ও সুরক্ষার বিষয়টি সহজভাবে জানাতে কাজ করবে “আমার আইন, আমার অধিকার”। দেয়া হবে পরামর্শ। প্রয়োজনে তৃণমূল পর্যায়ে নাগরিকের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সরাসরি আইনি সহায়তাও দেয়া হবে।’

আইনি সুবিধাবঞ্চিত আর্থিকভাবে অসহায় ভুক্তভোগীরা এই অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে আইনি সহায়তা চাইলে তাদের পাশে দাঁড়াবে নিউজবাংলার ‘আমার আইন, আমার অধিকার’।

বিনা মূল্যে আইনি পরামর্শ এবং সহায়তা পেতে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চোখ রাখুন নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকমের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।

অনুষ্ঠান চলাকালে ফোন করুন ০২৫৫২৮৯ নম্বরে। এ ছাড়া সমস্যা জানাতে ০১৯৫৮০৫৬৬৬৮ নম্বরে ফোন করুন যেকোনো সময়। হোয়াটসঅ্যাপে প্রশ্ন ভিডিও করেও পাঠাতে পারেন একই নম্বরে।

নিউজবাংলার ফেসবুক পেজ https://www.facebook.com/nwsbn24 এবং ই-মেইল [email protected] এ মেসেজ পাঠানোরও সুযোগ রয়েছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

‘আমার আইন, আমার অধিকার’-এ ‘কর্মক্ষেত্রে হয়রানি রোধে আইনের প্রয়োগ’

‘আমার আইন, আমার অধিকার’-এ ‘কর্মক্ষেত্রে হয়রানি রোধে আইনের প্রয়োগ’

‘আমার আইন, আমার অধিকার’ সম্পর্কে নিউজবাংলার এক মুখপাত্র বলেন, আইন জানা নাগরিকের জন্য একান্ত প্রয়োজন। আইন ও আইনজীবী- এই শব্দগুলো নিয়ে একধরনের ভীতি কাজ করে। তবে আইনের আশ্রয় লাভ করা একজন নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার।

সব ধরনের আইনি পরামর্শ ও সহায়তা দিতে নিউজবাংলার নিয়মিত আয়োজন ‘আমার আইন, আমার অধিকার’-এ এবারের বিষয়: কর্মক্ষেত্রে হয়রানি রোধে আইনের প্রয়োগ’। প্রচার হবে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।

শবনম ফারিয়ার সঞ্চালনায় শনিবার এ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার হবে নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকমের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।

আলোচনায় বিশেষজ্ঞ হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ব্যারিস্টার মিতি সানজানা ও আমেরিকান-বাংলাদেশ সেন্টার ফর ডেভেলপমেন্ট এক্সিলেন্স-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং ফাউন্ডার কাজী রাকিবউদ্দীন আহমেদ। অনুষ্ঠানটি সম্প্রচার হবে শাহ্‌ সিমেন্টের সৌজন্যে।

‘আমার আইন, আমার অধিকার’ সম্পর্কে নিউজবাংলার এক মুখপাত্র বলেন, আইন জানা নাগরিকের জন্য একান্ত প্রয়োজন। আইন ও আইনজীবী- এই শব্দগুলো নিয়ে একধরনের ভীতি কাজ করে। তবে আইনের আশ্রয় লাভ করা একজন নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার।

নিজের আইনগত অধিকার সম্পর্কে না জানলে যে কেউ কোনো বিষয়ে ভুল পরামর্শ দিয়ে আপনাকে ভুল পথে পরিচালিত করতে পারে। কোনো নাগরিক রাষ্ট্রের কাছে কী কী সুযোগ-সুবিধার অধিকারী, সেটি যদি তিনি না জানেন, তাহলে তিনি ন্যায্য দাবি আদায় করতে পারবেন না।

তিনি বলেন, নাগরিকের আইনি অধিকার ও সুরক্ষার বিষয়টি সহজভাবে জানাতে কাজ করবে ‘আমার আইন, আমার অধিকার’। দেয়া হবে পরামর্শ। প্রয়োজনে তৃণমূল পর্যায়ে নাগরিকের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সরাসরি আইনি সহায়তাও দেয়া হবে।

আইনি সুবিধাবঞ্চিত আর্থিকভাবে অসহায় ভুক্তভোগীরা এই অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে আইনি সহায়তা চাইলে তাদের পাশে দাঁড়াবে নিউজবাংলার ‘আমার আইন, আমার অধিকার’।

বিনা মূল্যে আইনি পরামর্শ এবং সহায়তা পেতে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চোখ রাখুন নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকমের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।

অনুষ্ঠান চলাকালে ফোন করুন ০২৫৫০৫৫২৮৯ নম্বরে। এ ছাড়া সমস্যা জানাতে ০১৯৫৮০৫৬৬৬৮ নম্বরে ফোন করুন যেকোনো সময়। হোয়াটসঅ্যাপে প্রশ্ন ভিডিও করেও পাঠাতে পারেন একই নম্বরে।

নিউজবাংলার ফেসবুক পেজ https://www.facebook.com/NewsBangla24.Official এবং ই-মেইল [email protected]এ মেসেজ পাঠানোরও সুযোগ রয়েছে।

শেয়ার করুন

শিখর-আয়েশার বিচ্ছেদ

শিখর-আয়েশার বিচ্ছেদ

ভারতীয় ক্রিকেট তারকা শিখর ধাওয়ান ও বক্সার আয়েশা মুখোপাধ্যায়। ছবি: সংগৃহীত

শিখর ধাওয়ানের সঙ্গে বিচ্ছেদের কথা জানিয়ে সামাজিক যোগযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে মঙ্গলবার একটি পোস্ট দেন আয়েশা মুখোপাধ্যায়। একটি বড়সড় পোস্টে তার দ্বিতীয় বিচ্ছেদের অনুভূতির কথা জানিয়েছেন তিনি।

আট বছরের সংসারজীবনের ইতি টেনেছেন ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলের তারকা শিখর ধাওয়ান ও বক্সার আয়েশা মুখোপাধ্যায়।

সামাজিক যোগযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রাম পোস্টে মঙ্গলবার বিচ্ছেদের কথা জানান আয়েশা মুখোপাধ্যায়। একটি বড়সড় পোস্টে তার দ্বিতীয়বারের মতো বিচ্ছেদের অনুভূতির কথা জানিয়েছেন।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, ২০০৯ সালে তাদের বাগদান হলে তার তিন বছর পর ২০১২ সালে বিয়ে করেন শিখর ধাওয়ান-আয়েশা মুখোপাধ্যায়। তাদের একটি ছেলে রয়েছে। যার বয়স এখন সাত বছর।

আয়েশা অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে থাকেন। তিনি একজন অপেশাদার বক্সার। এর আগে তিনি অস্ট্রেলিয়ার এক ব্যবসায়ীকে বিয়ে করেছিলেন। সে পক্ষের দুই মেয়ে রয়েছে। যার দায়িত্ব নিয়েছিলেন শিখর ধাওয়ান।

যদিও এখন পর্যন্ত বিচ্ছেদ নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো মন্তব্য বা বিবৃতি দেননি আয়েশা কিংবা শিখর ধাওয়ান।

শিখরের সঙ্গে আয়েশার সম্পর্ক বেশ কিছুদিন থেকেই খারাপ যাচ্ছিল। শোনা যাচ্ছিল, তারা একে অপরকে ইনস্টাগ্রাম থেকে আনফলোও করেছিলেন। শুধু তাই নয়, নিজের নিউজফিড থেকে শিখরের সব ধরনের ছবিও সরিয়ে ফেলেন আয়েশা।

সামনেই আইপিএল ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ঠিক তার আগে আগেই এমন খবরে কতটা প্রস্তুতি নিতে পারবেন শিখর ধাওয়ান তা দেখার অপেক্ষায়।

শেয়ার করুন

‘আমার আইন, আমার অধিকার’-এ এবার ‘মুসলিম আইনে তালাক’

‘আমার আইন, আমার অধিকার’-এ এবার ‘মুসলিম আইনে তালাক’

‘নিজের আইনগত অধিকার সম্পর্কে না জানলে যে কেউ কোনো বিষয়ে ভুল পরামর্শ দিয়ে আপনাকে ভুল পথে পরিচালিত করতে পারে। কোনো নাগরিক রাষ্ট্রের কাছে কী কী সুযোগ-সুবিধার অধিকারী, সেটি যদি তিনি না জানেন, তাহলে তিনি ন্যায্য দাবি আদায় করতে পারবেন না।’

সব ধরনের আইনি পরামর্শ ও সহায়তা দিতে নিউজবাংলার নিয়মিত আয়োজন ‘আমার আইন, আমার অধিকার’-এ এবারের বিষয়: মুসলিম আইনে তালাক’।

অনুষ্ঠানটি প্রচার করা হবে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।

শবনম ফারিয়ার সঞ্চালনায় এ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করা হবে নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকমের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।

আলোচনায় বিশেষজ্ঞ হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ব্যারিস্টার মিতি সানজানা ও কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের আইন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত প্রধান মেহেরবা সাবরীন। অনুষ্ঠানটি সম্প্রচার করা হবে শাহ্‌ সিমেন্টের সৌজন্যে।

‘আমার আইন, আমার অধিকার’ সম্পর্কে নিউজবাংলার এক মুখপাত্র বলেন, ‘আইন জানা নাগরিকের একান্ত প্রয়োজন। আইন ও আইনজীবী শব্দগুলো নিয়ে এক ধরনের ভীতি কাজ করে। তবে আইনের আশ্রয় লাভ করা একজন নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার।

‘নিজের আইনগত অধিকার সম্পর্কে না জানলে যে কেউ কোনো বিষয়ে ভুল পরামর্শ দিয়ে আপনাকে ভুল পথে পরিচালিত করতে পারে। কোনো নাগরিক রাষ্ট্রের কাছে কী কী সুযোগ-সুবিধার অধিকারী, সেটি যদি তিনি না জানেন, তাহলে তিনি ন্যায্য দাবি আদায় করতে পারবেন না।’

তিনি বলেন, নাগরিকের আইনি অধিকার ও সুরক্ষার বিষয়টি সহজভাবে জানাতে কাজ করবে ‘আমার আইন, আমার অধিকার’; দেয়া হবে পরামর্শ। প্রয়োজনে তৃণমূল পর্যায়ে নাগরিকের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সরাসরি আইনি সহায়তাও দেয়া হবে।

সুবিধাবঞ্চিত, অসহায় ভুক্তভোগীরা এ অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে আইনি সহায়তা চাইলে তাদের পাশে দাঁড়াবে নিউজবাংলার ‘আমার আইন, আমার অধিকার’।

বিনা মূল্যে আইনি পরামর্শ ও সহায়তা পেতে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চোখ রাখুন নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকমের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।

অনুষ্ঠান চলাকালে ফোন করুন ০২৫৫০৫৫২৮৯ নম্বরে। এ ছাড়া সমস্যা জানাতে ০১৯৫৮০৫৬৬৬৮ নম্বরে ফোন করুন যেকোনো সময়। হোয়াটসঅ্যাপে প্রশ্ন ভিডিও করেও পাঠাতে পারেন একই নম্বরে।

নিউজবাংলার ফেসবুক পেজ https://www.facebook.com/nwsbn24 এবং ই-মেইল [email protected]এ মেসেজ পাঠানোরও সুযোগ রয়েছে।

শেয়ার করুন

‘মশা যাক, মানুষ থাক’

‘মশা যাক, মানুষ থাক’

২০২১ সালের ২৭ মার্চ তরুণদের সমন্বয়ে সাইক্লিস্ট সোসাইটি যাত্রা শুরু করে। এটি  স্বেচ্ছাসেবী, অরাজনৈতিক ও অলাভজনক সংগঠন। বর্তমানে এই সংগঠনে শতাধিক সদস্য রয়েছেন।

ডেঙ্গু নিয়ে সচেতনা তৈরিতে ‘মশা যাক, মানুষ থাক’ স্লোগানে বরগুনায় সাইকেল র‌্যালি করেছে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

মঙ্গলবার দুপুরে বরগুনা পৌর শহরে সাইক্লিস্ট সোসাইটি এ র‍্যালির আয়োজন করে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে র‍্যালি শুরু হয়ে শহরের অগ্নিঝরা একাত্তর, টাউনহল ব্রিজ ও জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রদক্ষিণ শেষে একাডেমির গোল চত্বরে শেষ হয়।

র‍্যালি শেষে সাইক্লিস্ট সোসাইটি প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সাইফ জানান, ২০২১ সালের ২৭ মার্চ তরুণদের সমন্বয়ে সাইক্লিস্ট সোসাইটি যাত্রা শুরু করে। এটি স্বেচ্ছাসেবী, অরাজনৈতিক ও অলাভজনক সংগঠন। বর্তমানে এই সংগঠনে শতাধিক সদস্য রয়েছেন।

জেলার বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বিষয়ে এ সংগঠন অবদান রাখছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এরই মধ্যে উপকূলের বেড়িবাঁধ রক্ষায় বাঁধের দুপাশে এক লাখ খেজুরের বীজ রোপন করা হয়েছে।

‘অসহায়দের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচিতে সহায়তা এবং কোভিড-১৯ সচেতনতায় জেলা প্রশাসনের সঙ্গে মাঠপর্যায়ে কাজ করেছে সংগঠনের সদস্যরা। এরই ধারবাহিকতায় আমরা আজকে এ কর্মসূচি করেছি।’

শেয়ার করুন

তালেবানের হাত থেকে আফগানদের রক্ষায় ফেসবুক, টুইটারের নীতি বদল

তালেবানের হাত থেকে আফগানদের রক্ষায় ফেসবুক, টুইটারের নীতি বদল

আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর তালেবান যোদ্ধারা। ছবি: এএফপি

গ্লেইচার এক টুইটে বলেন, ‘আফগানিস্তানের জনগণের জন্য আমরা এক ক্লিকে কীভাবে নিজেদের নিরাপত্তা আরও জোরদার করতে পারবেন সে ব্যবস্থা নিয়েছি। যখন তাদের প্রোফাইল লক থাকে, যে সব ব্যক্তি তাদের বন্ধু তালিকায় নেই তারা সেটি ডাউনলোড বা শেয়ার করতে পারবেন না। এমন কি টাইমলাইনে শেয়ার করা কোনো পোস্টও দেখতে পাবেন না।’

দীর্ঘ দুই দশক পর ক্ষমতা দখলের পর আফগানিস্তানের শাসনভার নিয়েছে তালেবান। আফগান নাগরিকদের লক্ষ্য করে নানা ধরনের প্রতিশোধ নেয়ার তথ্য উঠে এসেছে সংবাদমাধ্যমে।

এরই মধ্যে গত সপ্তাহে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, টুইটার ও লিঙ্কডইন ঘোষণা দিয়েছে নতুন সুরক্ষার নীতিমালা।

বিবিসির খবরে বলা হয়, ফেসবুক আফগানিস্তানের নাগরিকদের অ্যাকাউন্ট টার্গেট করে বন্ধু তালিকা দেখার ও সেখানে বন্ধুদের খুঁজে বের করার ক্ষমতা সরিয়ে দিচ্ছে।

ফলে আফগানিস্তানের ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কোনো পোস্ট অপরিচিত কেউ দেখতে পারেবন না।

পেশাদারদের নেটওয়ার্কিং সাইট লিঙ্কডইনও বলছে, তারা দেশটিতে একে অন্যের সঙ্গে সাইটটিতে যে সম্পর্ক তা দেখার অপশন লুকিয়ে ফেলেছে।

একই ধরনের নিরাপত্তা ও সুরক্ষার কথা জানিয়েছে টুইটার কর্তৃপক্ষ।

সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করে কোনো নির্দিষ্ট আফগান নাকরিককে খুঁজে বের করার বিষয়ে যে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে সেটি এর মাধ্যমে বন্ধ করা যাবে।

মূলত তালেবানের নাজরদারি এড়াতে এমন ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন মাধ্যমগুলো।

বৃহস্পতিবার ফেসবুকের নিরাপত্তা নীতিমালার প্রধান নাথানিয়েল গ্লেইচার নিরাপত্তা ও সুরক্ষার জন্য এই নীতিমালা ঘোষণা করেন।

গ্লেইচার এক টুইটে বলেন, ‘আফগানিস্তানের জনগণের জন্য আমরা এক ক্লিকে কীভাবে নিজেদের নিরাপত্তা আরও জোরদার করতে পারবেন সে ব্যবস্থা নিয়েছি। যখন তাদের প্রোফাইল লক থাকে, যে সব ব্যক্তি তাদের বন্ধু তালিকায় নেই তারা সেটি ডাউনলোড বা শেয়ার করতে পারবেন না। এমন কি টাইমলাইনে শেয়ার করা কোনো পোস্টও দেখতে পাবেন না।’

একইভাবে ইনস্টাগ্রামের জন্যও এমন সুরক্ষা ও নিরাপত্তা আনার কথা জানিয়েছেন গ্লেইচার।

আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন ন্যাটোর সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়ে একে একে দেশটির বিভিন্ন শহর দখলে নিতে মুরু করে তালেবান যোদ্ধারা।

১৫ আগস্ট রাজধানীর কাবুল দখলের মধ্য দিয়ে ক্ষমতা নেয় তালেবান। এরপর দিন ফেসবুক জানায়, তারা তালেবানের কোনো কনটেন্ট ও তাদের উপস্থিতি ফেসবুকে দেখাবে না।

প্ল্যাটফর্মটিতে তালেবানের এবং গোষ্ঠীটির সমর্থনে সব ধরনের পোস্টও নিষিদ্ধ করা হয়। বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়, তালেবানকে সন্ত্রাসী সংগঠন বিবেচনায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে ফেসবুক।

এ জন্য প্রতিষ্ঠানটি নিজেদের প্ল্যাটফর্মে তালেবানবিষয়ক কনটেন্টে নজরদারি, যাচাই-বাছাই ও প্রয়োজনে মুছে দেয়ার জন্য আফগান বিশেষজ্ঞ দলও নিয়োগ দেয়। তারা আফগানিস্তানের আঞ্চলিক দারি ও পশতু ভাষায় দক্ষ এবং স্থানীয় বিষয় সম্পর্কে ওয়াকিবহাল।

গ্লেইচার জানান, তারা দেশটির খাত সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি, সুশীল সমাজ ও বৈধ সরকারের প্রতিনিধিদের নিয়ে কাজ শুরু করেছেন।

শেয়ার করুন

‘আমার আইন, আমার অধিকার’-এ ‘ট্রেডমার্ক আইন: লঙ্ঘন, শাস্তি ও প্রতিকার’

‘আমার আইন, আমার অধিকার’-এ ‘ট্রেডমার্ক আইন: লঙ্ঘন, শাস্তি ও প্রতিকার’

‘আমার আইন, আমার অধিকার’ সম্পর্কে নিউজবাংলার এক মুখপাত্র বলেন, আইন জানা নাগরিকের জন্য একান্ত প্রয়োজন। আইন ও আইনজীবী-এই শব্দগুলো নিয়ে একধরনের ভীতি কাজ করে। তবে আইনের আশ্রয় লাভ করা একজন নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার।

সব ধরনের আইনি পরামর্শ ও সহায়তা দিতে নিউজবাংলার নিয়মিত আয়োজন ‘আমার আইন, আমার অধিকার’-এ এবারের বিষয়: ট্রেডমার্ক আইন: লঙ্ঘন, শাস্তি ও প্রতিকার’। প্রচার হবে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।

ব্যারিস্টার সায়ারা খানের সঞ্চালনায় শনিবার এ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার হবে নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকমের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।

আলোচনায় বিশেষজ্ঞ হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ব্যারিস্টার মিতি সানজানা ও ইউনিলিভার বাংলাদেশের লিগ্যাল ডিরেক্টর অ্যান্ড কোম্পানি সেক্রেটারি ব্যারিস্টার রাশেদুল কাইউম অনুষ্ঠানটি সম্প্রচার হবে শাহ্‌ সিমেন্টের সৌজন্যে।

‘আমার আইন, আমার অধিকার’ সম্পর্কে নিউজবাংলার এক মুখপাত্র বলেন, আইন জানা নাগরিকের জন্য একান্ত প্রয়োজন। আইন ও আইনজীবী-এই শব্দগুলো নিয়ে একধরনের ভীতি কাজ করে। তবে আইনের আশ্রয় লাভ করা একজন নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার।

নিজের আইনগত অধিকার সম্পর্কে না জানলে যে কেউ কোনো বিষয়ে ভুল পরামর্শ দিয়ে আপনাকে ভুল পথে পরিচালিত করতে পারে। কোনো নাগরিক রাষ্ট্রের কাছে কী কী সুযোগ-সুবিধার অধিকারী, সেটি যদি তিনি না জানেন, তাহলে তিনি ন্যায্য দাবি আদায় করতে পারবেন না।

তিনি বলেন, নাগরিকের আইনি অধিকার ও সুরক্ষার বিষয়টি সহজভাবে জানাতে কাজ করবে ‘আমার আইন, আমার অধিকার’। দেয়া হবে পরামর্শ। প্রয়োজনে তৃণমূল পর্যায়ে নাগরিকের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সরাসরি আইনি সহায়তাও দেয়া হবে।

আইনি সুবিধাবঞ্চিত আর্থিকভাবে অসহায় ভুক্তভোগীরা এই অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে আইনি সহায়তা চাইলে তাদের পাশে দাঁড়াবে নিউজবাংলার ‘আমার আইন, আমার অধিকার’।

বিনা মূল্যে আইনি পরামর্শ এবং সহায়তা পেতে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চোখ রাখুন নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকমের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।

অনুষ্ঠান চলাকালে ফোন করুন ০২৫৫০৫৫২৮৯ নম্বরে। এ ছাড়া সমস্যা জানাতে ০১৯৫৮০৫৬৬৬৮ নম্বরে ফোন করুন যেকোনো সময়। হোয়াটসঅ্যাপে প্রশ্ন ভিডিও করেও পাঠাতে পারেন একই নম্বরে।

নিউজবাংলার ফেসবুক পেজ https://www.facebook.com/nwsbn24 এবং ই-মেইল [email protected]এ মেসেজ পাঠানোরও সুযোগ রয়েছে।

শেয়ার করুন

ফেসবুকে তালেবানবিষয়ক কনটেন্ট নিষিদ্ধ

ফেসবুকে তালেবানবিষয়ক কনটেন্ট নিষিদ্ধ

তালেবান ইস্যুতে ফেসবুকের সবশেষ এ নীতিমালা প্রতিষ্ঠানটির মালিকানাধীন অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া নেটওয়ার্ক ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে। সতর্ক অবস্থানে আছে টুইটার, ইউটিউবসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমও।

আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করা সশস্ত্র সংগঠন তালেবানকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। ফলে অনলাইন প্ল্যাটফর্মটিতে তালেবানের এবং গোষ্ঠীটির সমর্থনে সব ধরনের পোস্টও নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো জয়, তালেবানকে সন্ত্রাসী সংগঠন বিবেচনায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে ফেসবুক।

প্রতিষ্ঠানটি নিজেদের প্ল্যাটফর্মে তালেবানবিষয়ক কনটেন্টে নজরদারি, যাচাইবাছাই ও প্রয়োজনে মুছে দেয়ার জন্য আফগান বিশেষজ্ঞ দলও নিয়োগ দিয়েছে। তারা আফগানিস্তানের আঞ্চলিক দারি ও পশতু ভাষায় দক্ষ এবং স্থানীয় বিষয় সম্পর্কে ওয়াকিবহাল।

বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের আশ্রয় নিয়ে অনেক বছর ধরেই নিজেদের আদর্শগত বার্তা দিয়ে আসছে তালেবান। অবিশ্বাস্য দ্রুততায় গোষ্ঠীটির আফগানিস্তান দখলের পর তালেবানবিষয়ক কনটেন্ট মোকাবিলা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্যেও বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ফেসবুকের এক মুখপাত্র বিবিসিকে বলেন, “যুক্তরাষ্ট্রের আইনে তালেবান সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে নিষিদ্ধ। আমরাও আমাদের ‘বিপজ্জনক সংগঠন’ নীতিমালার আওতায় সব ধরনের সেবা থেকে গোষ্ঠীটিকে নিষিদ্ধ করেছি।

“এর অর্থ হলো- তালেবান ও তালেবানের পক্ষে পরিচালিত অ্যাকাউন্টগুলো আমরা মুছে দেবো। একই সঙ্গে তালেবানের প্রশংসা, তাদের প্রতি সমর্থন বা তাদের প্রতিনিধিত্বকারীদেরও নিষিদ্ধ করা হবে।’

আফগানিস্তানের সরকার হিসেবে তালেবানকে বা যে কোনো দেশের সরকারকে স্বীকৃতি দেয়ার বিষয়ে ফেসবুক কোনো সিদ্ধান্ত নেয় না বলেও জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। বরং এ বিষয়ে বিশ্ব সম্প্রদায়ের কর্তৃত্বই অনুসরণ করে তারা।

তালেবান ইস্যুতে ফেসবুকের সবশেষ এ নীতিমালা প্রতিষ্ঠানটির মালিকানাধীন অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া নেটওয়ার্ক ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে।

তবে তালেবান সদস্যরা যোগাযোগের জন্য এখনও হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করছে বলে খবর মিলেছে।

তালেবান ইস্যুতে সতর্ক অবস্থানে আছে টুইটার, ইউটিউবসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমও।

শেয়ার করুন