একে-৪৭-এর চেয়ে বড় কী আছে আ.লীগ নেতার কাছে

একে-৪৭-এর চেয়ে বড় কী আছে আ.লীগ নেতার কাছে

জনসভায় বক্তব্য দিচ্ছেন বাজিতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন। ছবি: নিউজবাংলা

আওয়ামী লীগ নেতার কাছে একে-৪৭ আছে কি না বা এর চেয়ে বড় কিছু তার সংগ্রহে আছে কি না, এই প্রশ্নের জবাব পেতে গত কয়েক দিন ধরেই চেষ্টা করে যাচ্ছে নিউজবাংলা। কিন্তু সেই নেতাকে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি ফোন ধরছেন না। তার স্বজন, রাজনৈতিক সহকর্মীরা কিছু বলতে চাইছেন না। আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা বলেছেন, ভোটের পরিবেশ নিয়ে তিনি সন্তুষ্ট। সেই বক্তব্যের পর এলাকায় নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলায় একটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে হঠাৎ জাতীয় গণমাধ্যমের দৃষ্টি স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার বক্তব্যে।

হুমাইপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী রফিকুল ইসলাম ধনু মিয়ার পক্ষে জনসভায় বক্তব্য দিতে গিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুনের বক্তব্য তুমুল আলোচনা তৈরি করেছে।

সেদিন তিনি বলে বসেন, তাদের প্রার্থীর পক্ষে ভোটের মাঠে জোরালো অবস্থান নেবেন। ভোটের দিন প্রয়োজনে একে-৪৭-এর চেয়ে বড় কিছু নিয়ে আসবেন তিনি।

আওয়ামী লীগ নেতার কাছে একে-৪৭ আছে কি না বা এর চেয়ে বড় কিছু তার সংগ্রহে আছে কি না, এই প্রশ্নের জবাব পেতে গত কয়েক দিন ধরেই চেষ্টা করে যাচ্ছে নিউজবাংলা।

কিন্তু সেই নেতাকে পাওয়া যাচ্ছে না। তার স্বজন, রাজনৈতিক সহকর্মীরা কিছু বলতে চাইছেন না।

গত ৫ নভেম্বর হুমাইপুর ইউনিয়নের টান গোসাইপুর ইসলামিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসার মাঠে জনসভায় দেয়া বক্তব্যের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশ হলে আর ওই এলাকায় যাননি আওয়ামী লীগ নেতা আল মামুন।

তার মোবাইল ফোন নম্বরটি চালু আছে। তবে পরিচিত নম্বর না হলে তিনি কল ধরছেন না।

আল মামুনের বাসা বাজিতপুর পৌর এলাকার বসন্তপুরে। তার ঘনিষ্ঠ ওই এলাকার এক বাসিন্দা নিউজবাংলাকে বলেন, ‘কোন কথা থেকে কোন কথা জিজ্ঞেস করে ফেলে, পরে আবার কোনভাবে প্রচার করে, তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন তিনি।’

ফেসবুক পোস্টে সেই বক্তব্যের ব্যাখ্যা

প্রকাশ্যে না এলেও বা ফোন না ধরলেও গত ৯ নভেম্বর রাতে নিজের ফেসবুক আইডিতে সেই জনসভায় বলা কথা নিয়ে নিজের বক্তব্য তুলে ধরেন আওয়ামী লীগ নেতা।

তিনি দাবি করেন, নির্বাচনী পথসভায় তার বক্তব্যটি ছিল ২৫ মিনিটের। সে বক্তব্যের কিছু কিছু অংশ তুলে ধরে কথা বিকৃত করা হয়েছে।

তিনি লেখেন, এই পথসভার আগের দিন ‘স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি’ ও কিছু দুষ্কৃতকারী আওয়ামী লীগের প্রতীক নৌকা পুড়িয়ে ফেলে এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের অস্ত্রের ভয় দেখায়।

তিনি লেখেন, এই ইউনিয়নের একজন বিশেষ ব্যক্তির কাছ থেকে একটি একে-৪৭ উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ফলে একে-৪৭ নামক শব্দটি উচ্চারণ করা হয় এবং বলা হয় আওয়ামী লীগ সমর্থকদের এসব ভয়ভীতি দেখিয়ে লাভ নেই।

আল মামুন লেখেন, ‘আমি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নেতা-কর্মীদের মানসিক শক্তিসহ নৌকার পক্ষে করার জন্য অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য প্রদান করি। আমি তাদের সর্বশক্তি দিয়ে নৌকার পক্ষে কাজ করার নির্দেশ দিই।

‘প্রসঙ্গক্রমে আমি তাও বলি, সরকার আমাদের, প্রশাসন আমাদের, আমাদের দলীয় মনোনীত প্রার্থীকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখুন।’

অভিযোগ নেই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বিএনপি নেতার

হুমাইপুর ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মানিক মিয়া গত নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ প্রতীকে ভোটে অংশ নেন। তার দল ভোট বর্জন করায় তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। তিনি সেই বক্তব্যের পরও ভোটের পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ জানিয়েছেন।

নিউজবাংলাকে বিএনপি নেতা বলেন, নির্বাচনের পরিবেশ এখন খুবই শান্ত ও সুন্দর। কোনো প্রকার বাধাবিপত্তি ছাড়াই প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন তিনি।

আপনি কিছুদিন আগে পরিবেশ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছিলেন। এখন পরিবেশ শান্ত ও সুন্দর বলছেন। কারণ কী- এমন প্রশ্নে মানিক বলেন, ‘সেই বক্তব্যের ভিডিও বিভিন্ন মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই এমপি সাহেব আর প্রশাসনের ঠেলায় মামুনও ঠান্ডা, এলাকার পরিবেশও ঠান্ডা।

‘এই বক্তব্যের পর নির্বাচনি প্রচারণার কাজে বিভিন্ন নেতা-কর্মী হুমাইপুর ইউনিয়নে গেলেও আবদুল্লাহ আল মামুনকে আর দেখা যায়নি। এই বক্তব্যের আগে মামুন সব সময়ই এমপি আফজাল হোসেনের সাথে থাকতেন। নৌকায় ভোট নিতে নির্বাচনের দিন একে-৪৭-এর চেয়ে বড়কিছু নিয়ে আসার হুমকি দেওয়ার পর থেকে তাকে আর এমপি সাহেবের সঙ্গেও দেখা যায়নি৷’

বিএনপি নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী বলেন, ‘মামুনের এই বক্তব্যে আমার জন্য ভালো হইছে৷ সাধারণ জনগণের মধ্যে কিছু লোক আমার উল্টা ছিল, কিন্তু এখন আমার পক্ষে কাজ করছে। এমনকি ভোটও দেবে।’

গত ইউপি নির্বাচনেও মানিক মিয়া ও আওয়ামী লীগের বর্তমান প্রার্থী রফিকুল ইসলাম ধনুর মধ্যে লড়াই হয়েছে।

মানিক মিয়া বলেন, ‘তিনি গত নির্বাচনেও নৌকা প্রতীক নিয়েই আমার কাছে ২০০ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছিলেন। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না।’

আরেক প্রার্থীর লিখিত অভিযোগ

বিএনপি নেতার অভিযোগ না থাকলেও একই ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে লড়াই করা আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়নাল আবেদীন খান ৮ নভেম্বর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। এতে তিনি আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আবেদন করেন।

ইউএনও মোরশেদা খাতুন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগ পেয়ে এলাকায় নজরজারি বাড়ানো হয়েছে। কেউ যেন ভোটের পরিবেশ নষ্ট না করতে পারে, সেদিকেও খেয়াল রাখা হচ্ছে।

‘তা ছাড়া ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনার, নির্বাচন কমিশনের সচিব, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, রিটার্নিং কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অভিযোগের অনুলিপি দেয়া হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
ইউপি নির্বাচন: কেন্দ্রে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম
চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপি নির্বাচন ২৩ ডিসেম্বর
কালকিনিতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০
নৌকার অফিসে ‘ভাঙচুর-আগুন’, পেট্রোল বোমা উদ্ধারে মামলা
বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকের হামলায় আ.লীগের ৮ কর্মী আহত

শেয়ার করুন

মন্তব্য

বল ভেবে ককটেল হাতে নিয়েছিল শিশুটি

বল ভেবে ককটেল হাতে নিয়েছিল শিশুটি

শরীয়তপুরে কুড়িয়ে পাওয়া ককটেল বিস্ফোরণে আঙুল হারিয়েছে শিশুটি। ছবি: নিউজবাংলা

দুপুরে বাড়ির পাশের ক্ষেতে খেলতে যায় ৬ বছরের মাহিম। এ সময় লাল স্কচটেপে মোড়ানো ককটেলটিকে বল ভেবে কুড়িয়ে নেয় সে। বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছালে সেটি বিস্ফোরিত হয়। আশপাশের লোকজন ও তার বাবা-মা গিয়ে তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নেয়।

শরীয়তপুরে কুড়িয়ে পাওয়া ককটেল বিস্ফোরণে এক শিশু আহত হয়েছে। তার একটি হাত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে আঙ্গুল, দগ্ধ হয়েছে শরীরের কিছু অংশ।

সদর উপজেলার আংগারিয়া ইউনিয়নের দাদপুর গ্রামে বুধবার দুপুরে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

শিশুটির নাম মাহিম বলে জানান পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকতার হোসেন।

স্থানীয়দের বরাতে তিনি জানান, দুপুরে বাড়ির পাশের ক্ষেতে খেলতে যায় ৬ বছরের মাহিম। এ সময় লাল স্কচটেপে মোড়ানো ককটেলটিকে বল ভেবে কুড়িয়ে নেয় সে। বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছালে সেটি বিস্ফোরিত হয়। আশপাশের লোকজন ও তার বাবা-মা গিয়ে তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নেয়।

ওসি বলেন, ‘বিস্ফোরণে শিশুটির ডান হাতের একটি আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হয়েছে। হাতের বিভিন্ন অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্তে কাজ শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন:
ইউপি নির্বাচন: কেন্দ্রে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম
চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপি নির্বাচন ২৩ ডিসেম্বর
কালকিনিতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০
নৌকার অফিসে ‘ভাঙচুর-আগুন’, পেট্রোল বোমা উদ্ধারে মামলা
বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকের হামলায় আ.লীগের ৮ কর্মী আহত

শেয়ার করুন

ছাত্রীকে ‘ধর্ষণচেষ্টা’, মাদ্রাসাশিক্ষক কারাগারে

ছাত্রীকে ‘ধর্ষণচেষ্টা’, মাদ্রাসাশিক্ষক কারাগারে

বাদী বলেন, ‘মেয়ে আমার স্ত্রীকে জানায়, মাদ্রাসায় যাওয়ার ২০ মিনিট পর পাঁচতলার একটি কক্ষে নিয়ে রাকিবুল ধর্ষণের চেষ্টা করে। সে পালিয়ে বের হয়। ঘটনা শুনেই আমি ৯৯৯ এ কল দিয়ে পুলিশকে জানাই।’

নারায়ণগঞ্জ বন্দরে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মাদ্রাসাশিক্ষকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

তাকে বুধবার বিকালে নারায়ণগঞ্জের জ্যেষ্ট বিচারিক হাকিম আদালতে তোলা হলে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক বিচারক নুর নাহার ইয়াসমিন।

আদালত পুলিশের পরির্দশক মো. আসাদুজ্জামান নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শিশুটিকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে তার বাবা মাদ্রাসাশিক্ষক রাকিবুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

বাদী বলেন, ‘আমার মেয়ে বন্দরের ওই মাদ্রাসায় চতুর্থ শ্রেণিতে লেখাপড়া করে। মঙ্গলবার সকালে আমি মেয়েকে মাদ্রাসায় নামিয়ে দিয়ে কাজে যাই। আমার প্রতিবেশীর মেয়েও ওই মাদ্রাসায় পড়ে।

‘বেলা ১১ টার দিকে আমার প্রতিবেশী তার মেয়েকে আনতে গেলে দেখেন আমার মেয়ে কান্নাকাটি করছে। তাকে বাড়ি নিয়ে আসলে মেয়ে আমার স্ত্রীকে জানায়, মাদ্রাসায় যাওয়ার ২০ মিনিট পর পাঁচতলার একটি কক্ষে নিয়ে রাকিবুল ধর্ষণের চেষ্টা করে। সে পালিয়ে বের হয়। ঘটনা শুনেই আমি ৯৯৯ এ কল দিয়ে পুলিশকে জানাই।’

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিপক চন্দ্র সাহা জানান, গত রাতে ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে ওই ব্যক্তি ঘটনাটি জানান। পুলিশ গিয়ে ওই মাদ্রাসা থেকে রাকিবুলকে আটক করে। পরে তার নামে মামলা হয়।

আরও পড়ুন:
ইউপি নির্বাচন: কেন্দ্রে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম
চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপি নির্বাচন ২৩ ডিসেম্বর
কালকিনিতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০
নৌকার অফিসে ‘ভাঙচুর-আগুন’, পেট্রোল বোমা উদ্ধারে মামলা
বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকের হামলায় আ.লীগের ৮ কর্মী আহত

শেয়ার করুন

এবার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় পথচারী আহত

এবার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় পথচারী আহত

পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাদেকুর রহমান নিউজবাংলাকে জানান, সুজন নামের ওই পথচারী দুই পায়ে ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত পেয়েছেন। আহতাবস্থায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তবে তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় দুজনের প্রাণহানির রেশ কাটতে না কাটতেই এবার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় এক পথচারী আহত হয়েছেন।

নগরীর দেওয়ানহাট সেতুর নিচে বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতের নাম মো. সুজন, তবে তার বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া যায়নি। তার আনুমানিক বয়স ৬০ বছর।

পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাদেকুর রহমান নিউজবাংলাকে জানান, সুজন নামের ওই পথচারী দুই পায়ে ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত পেয়েছেন। আহতাবস্থায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তবে তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

সিটি করপোরেশনের গাড়িটি সড়ক বাতি সংস্কারের কাজে নিয়োজিত ছিল বলেও জানান তিনি।

নিরাপদ সড়ক আন্দোলন নিয়ে এমনিতেই এখন উত্তাল দেশ। ঘটনার শুরু গত ২৪ নভেম্বর রাজধানীর গুলিস্তানে হল মার্কেটের কাছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের নাঈম হাসান নামে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে।

সেই ঘটনার বিচার দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই ২৫ নভেম্বর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির চাপায় প্রাণ যায় আহসান কবির খান নামে আরেক ব্যক্তির।

এরপর নিরাপদ সড়কের দাবিতে সড়কে নামে শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন সংগঠন। এর মধ্যেই আজ দেশের দ্বিতীয় প্রধান নগরীতে সরকারি প্রতিষ্ঠানের গাড়ির ধাক্কায় আহত হলেন একজন।

আরও পড়ুন:
ইউপি নির্বাচন: কেন্দ্রে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম
চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপি নির্বাচন ২৩ ডিসেম্বর
কালকিনিতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০
নৌকার অফিসে ‘ভাঙচুর-আগুন’, পেট্রোল বোমা উদ্ধারে মামলা
বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকের হামলায় আ.লীগের ৮ কর্মী আহত

শেয়ার করুন

বহুতল ভবন থেকে পড়ে প্রাণ গেল শ্রমিকের

বহুতল ভবন থেকে পড়ে প্রাণ গেল শ্রমিকের

চট্টগ্রামে বহুতল ভবন থেকে পড়ে নিহত রিয়াদ হোসাইন রনি। ছবি: নিউজবাংলা

রনির বড় ভাই কাইছার হোসেন নিউজবাংলাকে জানান, বেলা ১১টার দিকে চুনতি এলাকায় পাঁচতলা একটি ভবনে রঙের কাজ করার সময় নিচে পড়ে আহত হন রনি। তাকে উদ্ধার করে পরে আমিরাবাদের একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় বহুতল ভবন থেকে পড়ে রিয়াদ হোসাইন রনি নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

উপজেলার চুনতি এলাকায় বুধবার বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ২২ বছরের রনির বাড়ি একই উপজেলার আমিরাবাদ এলাকায়।

রনির বড় ভাই কাইছার হোসেন নিউজবাংলাকে জানান, বেলা ১১টার দিকে চুনতি এলাকায় পাঁচতলা একটি ভবনে রঙের কাজ করার সময় নিচে পড়ে আহত হন রনি। তাকে উদ্ধার করে পরে আমিরাবাদের একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত রনির বন্ধু আব্দুর রহিম বলেন, ‘পারিবারিক অভাব-অনটনের কারণে পড়াশোনা বন্ধ করে রনি রঙের কাজ করত। চলতি মাসে তার দুবাই চলে যাওয়ার কথা ছিল। সব কিছু সম্পন্ন হয়েছে, শুধু ফ্লাইটের তারিখ ফিক্সড হয়নি। এর মধ্যেই এই দুর্ঘটনা ঘটে গেল।’

লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির হোসেন নিউজবাংলাকে জানান, তারা এমন কোনো তথ্য পাননি। নিহতের পরিবার থেকেও তাদের কিছু জানানো হয়নি।

আরও পড়ুন:
ইউপি নির্বাচন: কেন্দ্রে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম
চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপি নির্বাচন ২৩ ডিসেম্বর
কালকিনিতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০
নৌকার অফিসে ‘ভাঙচুর-আগুন’, পেট্রোল বোমা উদ্ধারে মামলা
বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকের হামলায় আ.লীগের ৮ কর্মী আহত

শেয়ার করুন

বাঁশখালীতে ফের মৃত হাতি

বাঁশখালীতে ফের মৃত হাতি

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে আবারও মিলল মৃত হাতি। ছবি: নিউজবাংলা

চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘একদল লোক ওই হাতিকে মাটিচাপা দিচ্ছিল। সেই খবর পেয়ে বনবিভাগের লোকজন সেখানে যায়। মাটি খুঁড়ে হাতির মৃতদেহটি তোলা হয়। তবে কাউকে সেখানে পাওয়া যায়নি।’ 

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর পাহাড়ি এলাকা থেকে আবারও একটি মৃত বন্যহাতি উদ্ধার করেছে বনবিভাগ।

বাঁশখালীর সাধনপুর ইউনিয়নের লটমনি এলাকা থেকে মঙ্গলবার দুপুরে হাতির মৃতদেহটি পাওয়া গেলে বুধবার বিকালে তা সংবাদমাধ্যমকে জানান বনবিভাগ কর্মকর্তারা।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘একদল লোক ওই হাতিকে মাটিচাপা দিচ্ছিল। সেই খবর পেয়ে বনবিভাগের লোকজন সেখানে যায়। মাটি খুঁড়ে হাতির মৃতদেহটি তোলা হয়। তবে কাউকে সেখানে পাওয়া যায়নি।

‘হাতিটির শরীরের আঘাতে চিহ্ন নেই। প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, বৈদ্যুতিক ফাঁদ ব্যবহার করে মেরে ফেলা হয়েছে। এরপর বিষয়টি গোপন করার জন্য মাটিতে পুতে ফেলা হচ্ছিল।’

হাতিটি মাঝবয়সী বলে জানান এই কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, ময়নাতদন্তের জন্য আলামত রেখে মৃতদেহটি মাটিচাপা দেয়া হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য ডুলাহাজরা সাফারি পার্ক থেকে চিকিৎসক আনা হয়েছে।

বন কর্মকর্তা বলেন, ‘সাধনপুর বিট কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন এই ঘটনায় বাঁশখালী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ময়নাতদন্ত রিপোর্টের পর আমরা পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেব।’

এই নভেম্বরেই শেরপুর, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে গুলিতে ও বিদ্যুতায়িত হয়ে ৮টি হাতি মারা গেছে।

আরও পড়ুন:
ইউপি নির্বাচন: কেন্দ্রে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম
চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপি নির্বাচন ২৩ ডিসেম্বর
কালকিনিতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০
নৌকার অফিসে ‘ভাঙচুর-আগুন’, পেট্রোল বোমা উদ্ধারে মামলা
বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকের হামলায় আ.লীগের ৮ কর্মী আহত

শেয়ার করুন

জাবিতে ভর্তি হতে ৪ লাখ টাকায় ‘চুক্তি’, সাক্ষাৎকারের সময় ধরা

জাবিতে ভর্তি হতে ৪ লাখ টাকায় ‘চুক্তি’, সাক্ষাৎকারের সময় ধরা

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা সুদীপ্ত শাহীন জানান, সুনির্দিষ্ট তথ্য পেয়ে কামালকে আটক করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিসে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি করার বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার জালিয়াতি করে ভর্তি হতে আসা এক শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে।

বুধবার বেলা ১১টার দিকে গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদে সাক্ষাৎকার দিতে আসা ওই শিক্ষার্থীকে আটক করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

আটক শিক্ষার্থীর নাম মোস্তফা কামাল উৎস। তার গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইল সদর উপজেলার উত্তর তারুটিয়া গ্রামে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা সুদীপ্ত শাহীন জানান, সুনির্দিষ্ট তথ্য পেয়ে কামালকে আটক করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিসে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি করার বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

জিজ্ঞাসাবাদে কামাল জানিয়েছেন, তার দুই বন্ধু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ডি’ ইউনিটে জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মাধ্যমে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মেহেদী এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ ব্যাচের শিক্ষার্থী শামীম নামে দুজনের খোঁজ পান।

তিনি আরও জানান, দুই বন্ধুর মাধ্যমে পরে মেহেদী ও শামীমের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। তাদের সঙ্গে ৪ লাখ টাকার বিনিময়ে জাবিতে চান্স পাইয়ে দেয়ার চুক্তি হয় তার। পরে তার প্রবেশপত্র নিয়ে আরেকজন জাবির গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন। পরীক্ষায় তার মেধাক্রম আসে ৩০০। পরে চুক্তি অনুযায়ী পুরো টাকা শোধ করেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আশুলিয়া থানায় মামলা করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পরে পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। এ ছাড়া জালিয়াতি চক্রের বাকি সদস্যদের আটক করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’

আরও পড়ুন:
ইউপি নির্বাচন: কেন্দ্রে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম
চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপি নির্বাচন ২৩ ডিসেম্বর
কালকিনিতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০
নৌকার অফিসে ‘ভাঙচুর-আগুন’, পেট্রোল বোমা উদ্ধারে মামলা
বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকের হামলায় আ.লীগের ৮ কর্মী আহত

শেয়ার করুন

স্কুলছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণে যাবজ্জীবন

স্কুলছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণে যাবজ্জীবন

ঝিনাইগাতীর পাইকুড়া গ্রামের ওই স্কুলছাত্রীকে ২০১৫ সালের ২০ মে সন্ধ্যায় রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যায় আসামিরা। বিভিন্ন স্থানে নিয়ে একাধিকবার তাকে ধর্ষণ করে শফিকুল। ওই কিশোরীর বাবা পাঁচ দিন পর থানায় মামলা করেন। প্রায় দুই মাস পর কিশোরীকে উদ্ধার ও আসামিদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে স্কুলছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণের দায়ে এক আসামিকে যাবজ্জীবন এবং এ কাজে সহযোগিতা করায় আরেক আসামিকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান মঙ্গলবার বিকেলে এ রায় দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী গোলাম কিবরিয়া বুলু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

যাবজ্জীবন দণ্ড পাওয়া আসামি হলেন ঝিনাইগাতীর কালিনগর গ্রামের শফিকুল ইসলাম। তাকে সহযোগিতা করায় ১৪ বছরের কারাদণ্ড পেয়েছেন হাসলিগাঁও গ্রামের ছানা মিয়া।

ঝিনাইগাতীর পাইকুড়া গ্রামের ওই স্কুলছাত্রীকে ২০১৫ সালের ২০ মে সন্ধ্যায় রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যায় আসামিরা। বিভিন্ন স্থানে নিয়ে একাধিকবার তাকে ধর্ষণ করে শফিকুল।

ওই কিশোরীর বাবা পাঁচ দিন পর থানায় মামলা করেন। প্রায় দুই মাস পর কিশোরীকে উদ্ধার ও আসামিদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী গোলাম কিবরিয়া বুলু নিউজবাংলাকে জানান, ১১ জনের সাক্ষ্য নিয়ে বিচারক এই রায় দিয়েছেন।

আরও পড়ুন:
ইউপি নির্বাচন: কেন্দ্রে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম
চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপি নির্বাচন ২৩ ডিসেম্বর
কালকিনিতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০
নৌকার অফিসে ‘ভাঙচুর-আগুন’, পেট্রোল বোমা উদ্ধারে মামলা
বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকের হামলায় আ.লীগের ৮ কর্মী আহত

শেয়ার করুন