× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

আন্তর্জাতিক
Who are the Palestinians freed from Israeli prisons on Friday?
google_news print-icon

ইসরায়েলের কারাগার থেকে শুক্রবার মুক্ত ফিলিস্তিনি কারা

ইসরায়েলের-কারাগার-থেকে-শুক্রবার-মুক্ত-ফিলিস্তিনি-কারা
পশ্চিম তীরের রামাল্লাহতে রেড ক্রস দপ্তরের বাইরে গত ২১ নভেম্বর অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন ইসরায়েলি কারাগারে বন্দি ফিলিস্তিনিদের স্বজন ও সমর্থকরা। ছবি: এএফপি
ফিলিস্তিনি বন্দিদের ইসরায়েলি কারাগার থেকে দখলকৃত পশ্চিম তীরে দেশটির নিয়ন্ত্রিত ওফার কারাগারে আনা হয় শুক্রবার সন্ধ্যায়। সেখান থেকে স্থানীয় সময় রাত আটটায় তাদের মুক্তি দিয়ে রেড ক্রসের কাছে হস্তান্তর করে ইসরায়েল।

টানা সাত সপ্তাহ ধরে যুদ্ধ চলার পর স্থানীয় সময় শুক্রবার সকালে চার দিনের বিরতি শুরু করেছে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকার শাসক দল হামাস। এ যুদ্ধবিরতি চুক্তি অনুযায়ী শুক্রবার ৩৯ ফিলিস্তিনি নারী ও শিশুকে মুক্তি দেয় ইসরায়েল।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়, ইসরায়েলের কারাগার থেকে গতকাল মুক্তি পাওয়া ৩৯ ফিলিস্তিনির মধ্যে ১৭ জন অপ্রাপ্তবয়স্ক। তারা হলো রামাল্লাহর ইউসেফ মোহাম্মদ মুস্তাফা, বেথলেহেমের কুসাই হানি আলি আহমাদ, কালকিলাইয়ার জিবরিল ঘাসসান ইসমাইল জিবরিল, আল-খলিল এলাকার মোহাম্মদ আহমাদ সুলেইমান আবু রজব, রামাল্লাহর আহমাদ নু’মান আহমাদ আবু না’ইম, আল-খলিলের বারা বিলাল মাহমদু রাবি, কালকিলাইয়ার আবান ইয়াদ মোহাম্মদ সাইদ হাম্মাদ, আল-খলিলের মোয়াতাজ হাতেম মুসা আবু আরাম, জেরুজালেমের ইয়াদ আবদুল কাদের মোহাম্মদ খাতিব, রামাল্লাহর হাজমা লাইত খলিল ওসমান ওসমান, রামাল্লাহর মোহাম্মদ মাহমুদ আইয়ুব দার দারবিশ, আরিহার জামাল খলিল জামাল বারাহমেহ, নাবলুসের জামাল ইউসেফ জামাল আবু হামদান, একই এলাকার মোহাম্মদ আনিস সলিম তারাবি, জেরুজালেমের আবদুল রহমান আবদুল রহমান সুলেইমান রিজক, একই এলাকার জেইনা রাইদ আবদু এবং নাবলুসের নুর মোহাম্মদ হাফিজ আল-তাহির।

উল্লিখিত ১৭ জনের মধ্যে জেইনা ও নুর মেয়ে। বাকিরা ছেলে।

যুদ্ধবিরতির মধ্যে প্রথম দফায় মুক্ত হওয়া বাকি ২২ ফিলিস্তিনি হলেন নারী। তাদের মধ্যে রয়েছেন রামাল্লাহর রাওয়ান নাফিজ মোহাম্মদ আবু মাতার, জেরুজালেমের মারাহ জুদাত মুসা বাকির, একই এলাকার মালাক মোহাম্মদ ইউসেফ সুলেইমান, আমানি খালেদ নু’মান হাশিম, নিহায়া খাদের হুসেইন সাওয়ান, ফাইরুজ ফায়েজ মাহমুদ আল-বো, নাবলুসের তাহরির আদনান মোহাম্মদ আবু সুরিয়া, ফালাস্তিন ফরিদ আবদুল লতিফ নাজম, তুলকারেমের ওয়ালা খালেদ ফাওজি তানজা, নাবলুসের মারিয়াম খালেদ আবদুল মাজিদ আরাফাত, একই এলাকার আসিল মুনির ইব্রাহিম আল-তাইতি, জেরুজালেমের আজহার সাইর বকর আসাফ, তুলকারেমের রাঘদ নাশাত সালাহ আল-ফান্নি, জেরুজালেমের ফাতিমা নু’মান আলি বদর, বেথলেহেমের রাওদা মুসা আবদুল কাদের আবু উজাইমা, নাবলুসের আরা আইমান আবদুল আজিজ আবদুল্লাহ আল-সুওয়েইসা, বেথলেহেমের ফাতিমা ইসমাইল আবদুল রহমান শাহিন, জেরুজালেমের সামিরা আবদুল হারবাউয়ি, কালকিলাইয়ার সামাহ বিলাল আবদুল রহমান সউফ, নাবলুসের ফাতিমা বকর মুসা আবু শালাল, রামাল্লাহর হানান সালেহ আবদুল্লাহ আল-বারঘুতি ও জেনিনের ফাতিমা নাসর মোহাম্মদ আমারনাহ।

ফিলিস্তিনি এ বন্দিদের ইসরায়েলি কারাগার থেকে দখলকৃত পশ্চিম তীরে দেশটির নিয়ন্ত্রিত ওফার কারাগারে আনা হয় শুক্রবার সন্ধ্যায়। সেখান থেকে স্থানীয় সময় রাত আটটায় তাদের মুক্তি দিয়ে রেড ক্রসের কাছে হস্তান্তর করে ইসরায়েল।

আরও পড়ুন:
আল-শিফা হাসপাতালের পরিচালকসহ কয়েকজন চিকিৎসক গ্রেপ্তার
গাজায় যুদ্ধবিরতি শুক্রবারের আগে না
যুদ্ধবিরতি শুরুর সময় জানাল হামাস
গাজায় যুদ্ধবিরতিকে স্বাগত জানাল ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধে থাকা রাশিয়া
গাজায় ৪ দিনের যুদ্ধবিরতি চুক্তি

মন্তব্য

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক
One for every 75 people in Gaza is killed

গাজার প্রতি ৭৫ জনে একজন নিহত

গাজার প্রতি ৭৫ জনে একজন নিহত গাজা উপত্যকার মধ্যাঞ্চলীয় দেইর এল-বালাহ এলাকায় গত ১৮ ফেব্রুয়ারি ইসরায়েলি বিমান হামলার পর ধ্বংসস্তূপের নিচে হতাহত লোকজনের সন্ধানে স্থানীয়রা। ছবি: এএফপি
ওসিএইচএর ডেটা অনুযায়ী, প্রায় ২৩ লাখ মানুষের উপত্যকা গাজায় প্রতি ৭৫ জনের মধ্যে একজনের প্রাণ গেছে ইসরায়েলের হামলায়।

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় প্রায় পাঁচ মাস ধরে ইসরায়েলের হামলায় ৩০ হাজার ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে আল জাজিরা।

জাতিসংঘের মানবিক বিষয়াবলী সমন্বয় দপ্তর ওসিএইচএর ২৯ ফেব্রুয়ারির ডেটার বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমটির খবরে বলা হয়, গাজায় কমপক্ষে ৩০ হাজার মানুষের প্রাণহানি হয়েছে, যাদের মধ্যে প্রায় সাড়ে ১২ হাজার শিশু।

ওসিএইচএর ডেটা অনুযায়ী, প্রায় ২৩ লাখ মানুষের উপত্যকা গাজায় প্রতি ৭৫ জনের মধ্যে একজনের প্রাণ গেছে ইসরায়েলের হামলায়।

সংস্থাটি আরও জানায়, গাজার আট হাজারের বেশি মানুষ নিখোঁজ রয়েছে, যাদের অনেকে ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে আছে।

ইসরায়েলে ঢুকে গত বছরের ৭ অক্টোবর হামলা চালায় গাজার শাসক দল হামাস। ওই হামলায় ১ হাজার ১৩৯ ইসরায়েলি নিহত ও কমপক্ষে ৮ হাজার ৭৩০ জন আহত হয়।

হামাসের হামলার জবাবে ওই দিন থেকেই গাজায় বোমাবর্ষণ শুরু করে ইসরায়েল, যার সঙ্গে পরবর্তী সময়ে যোগ হয় স্থল হামলাও। সে হামলার পাঁচ মাস হতে চললেও সংঘাত বন্ধে এখন পর্যন্ত কোনো চুক্তি করতে পারেনি হামাস ও ইসরায়েল।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়, ইসরায়েলের হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন গাজার আট হাজার ৪০০ নারী। দেশটির বিমান ও স্থল হামলায় আহত হয় উপত্যকার ৭০ হাজার ৪৫৭ জনের বেশি বাসিন্দা, যাদের মধ্যে আট হাজার ৬৬৩ শিশু ও ছয় হাজার ৩২৭ জন নারী।

আরও পড়ুন:
গাজায় ‘গণহত্যার’ ঘটনায় পদত্যাগ ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রীর
ইসরায়েলি দূতাবাসের সামনে গায়ে ‍আগুন যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী সদস্যের
গাজায় মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেয়ার মিশরকে ধন্যবাদ জানাল বাংলাদেশ
ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ২৯ হাজার ৪১০
ইসরায়েলের দখলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ শীর্ষ আদালতে শুনানি শুরু

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
30000 killed in Israeli attack on Gaza

গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৩০ হাজার ছুঁইছুঁই

গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৩০ হাজার ছুঁইছুঁই গাজায় ইসরায়েলি হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত ভবন ও ধ্বংসাবশেষ। ছবি: এপি
ইসরায়েলের হামলায় গুঁড়িয়ে গেছে গাজার বিপুলসংখ্যক স্থাপনা। দীর্ঘ সময় ধরে যুদ্ধ চলায় উপত্যকায় সৃষ্টি হয়েছে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়।

গাজা উপত্যকায় প্রায় পাঁচ মাস ধরে ইসরায়েলের হামলায় নিহত ফিলিস্তিনির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩০ হাজারে।

এ সময়ে ইসরায়েলি বাহিনীর হাতে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৭০ হাজার ৩২৫ ফিলিস্তিনি।

গাজায় ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আল জাজিরা বৃহস্পতিবার এসব তথ্য জানায়।

সংবাদমাধ্যমটির খবরে বলা হয়, গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহতের সংখ্যা কমপক্ষে ২৯ হাজার ৯৫৪।

গত বছরের ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চলে ঢুকে হামলা চালায় গাজার শাসক দল হামাস। ওই হামলায় নিহত হন ১ হাজার ১৩৯ ইসরায়েলি।

হামাসের হামলার জবাবে ৭ অক্টোবর থেকেই গাজায় বিমান হামলা শুরু করে ইসরায়েল। পরবর্তী সময়ে স্থল অভিযানও শুরু করে দেশটি।

ইসরায়েলের হামলায় গুঁড়িয়ে গেছে গাজার বিপুলসংখ্যক স্থাপনা। দীর্ঘ সময় ধরে যুদ্ধ চলায় উপত্যকায় সৃষ্টি হয়েছে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়।

গাজায় আল জাজিরার এক প্রতিবেদক জানান, উপত্যকায় খাদ্য সহায়তার জন্য অপেক্ষারত ফিলিস্তিনিদের ওপর গুলি চালিয়েছে ইসরায়েল, যাতে অনেকেই হতাহত হয়েছেন।

সংবাদমাধ্যমটির সর্বশেষ খবরে বলা হয়, নুসেইরাত, বুরেইজ ও খান ইউনিস শরণার্থী শিবিরে ইসরায়েলি বিমান হামলা ও গোলায় কমপক্ষে ৩০ জন নিহত হন।

এমন বাস্তবতায় আন্তর্জাতিক বেসরকারি সংস্থা সেভ দ্য চিল্ড্রেন বলেছে, গাজায় ধীরগতিতে গণহারে শিশুদের হত্যা দেখছে বিশ্ব।

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলি দূতাবাসের সামনে গায়ে ‍আগুন যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী সদস্যের
গাজায় মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেয়ার মিশরকে ধন্যবাদ জানাল বাংলাদেশ
ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ২৯ হাজার ৪১০
ইসরায়েলের দখলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ শীর্ষ আদালতে শুনানি শুরু
ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা ২৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Canada plans to airlift aid to Gaza

গাজায় বিমান থেকে ত্রাণসামগ্রী ফেলার চিন্তা কানাডার

গাজায় বিমান থেকে ত্রাণসামগ্রী ফেলার চিন্তা কানাডার গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফাহতে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ত্রাণসামগ্রী ফেলে জর্ডানের বিমান। ছবি: রয়টার্স
গাজায় ইসরায়েলের স্থল অভিযান শুরুর পর উপত্যকার জনগণের সহায়তায় ১০ কোটি কানাডিয়ান ডলার দিয়েছে অটোয়া। দেশটি শুধু জানুয়ারিতেই দিয়েছে চার কোটি ডলার।

ইসরায়েলের সঙ্গে গাজার শাসক দল হামাসের যুদ্ধে অবরুদ্ধ উপত্যকাটিতে বিমান থেকে মানবিক সহায়তার সামগ্রী ফেলার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন কানাডার আন্তর্জাতিক উন্নয়ন মন্ত্রী আহমেদ হুসেন।

মন্ত্রীর বরাত দিয়ে আল জাজিরা বৃহস্পতিবার জানায়, জর্ডানের মতো সমমনা দেশকে সঙ্গে নিয়ে গাজায় আকাশ থেকে ত্রাণসামগ্রী ছুড়তে চায় উত্তর আমেরিকার দেশটি।

সংবাদমাধ্যমটির খবরে জানানো হয়, গত সপ্তাহে মিসর ও জর্ডান সফর করা হুসেন বলেন, মিসরের রাফাহ সীমান্তে ত্রাণসামগ্রীবাহী ট্রাককে প্রয়োজনের বেশি সময় ধরে আটকে রাখছে ইসরায়েল, যার অর্থ হলো গাজায় প্রয়োজনের ধারেকাছেও সহায়তা প্রবেশ করছে না।

গাজায় ইসরায়েলের স্থল অভিযান শুরুর পর উপত্যকার জনগণের সহায়তায় ১০ কোটি কানাডিয়ান ডলার দিয়েছে অটোয়া। দেশটি শুধু জানুয়ারিতেই দিয়েছে চার কোটি ডলার।

কানাডার আন্তর্জাতিক উন্নয়ন মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি মাত্র ওই অঞ্চল (মধ্যপ্রাচ্য) থেকে ফিরে এসেছি এবং কানাডার সহায়তা ব্যবধান গড়ছে।’

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ২৯ হাজার ৪১০
ইসরায়েলের দখলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ শীর্ষ আদালতে শুনানি শুরু
ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা ২৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে
রাফাহতে ইসরায়েলের আসন্ন অভিযানকে ‘আমাদের’ বললেন বাইডেন
গাজায় নিহত বেড়ে ২৮ হাজার ৩৪০

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Famine imminent in northern Gaza UN

উত্তর গাজায় দুর্ভিক্ষ আসন্ন: জাতিসংঘ

উত্তর গাজায় দুর্ভিক্ষ আসন্ন: জাতিসংঘ যুদ্ধবিধ্বস্ত গাজায় দুর্ভিক্ষ আসন্ন বলে সতর্ক করেছে জাতিসংঘ। ছবি: রয়টার্স
ডাব্লিউএফপির ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর কার্ল স্কাউ বলেছেন, যদি কিছুই পরিবর্তন না হয়, উত্তর গাজায় একটি দুর্ভিক্ষ আসন্ন।

যুদ্ধবিধ্বস্ত গাজায় পাঁচ লাখের বেশি মানুষ দুর্ভিক্ষ থেকে ‘এক ধাপ দূরে’ রয়েছে বলে সতর্ক করেছে জাতিসংঘ।

উত্তর গাজায় ২৩ জানুয়ারি থেকে কোনো প্রকার মানবিক সহায়তা পাঠানো সম্ভব হয়নি। এমন অবস্থায় গাজায় ইসরায়েলি হামলা চলমান থাকলে খুব দ্রুতই দুর্ভিক্ষ দেখা দেবে।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডাব্লিউএফপি) বরাত দিয়ে এনডিটিভির বুধবারের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

ডাব্লিউএফপির ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর কার্ল স্কাউ জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে বলেছেন, যদি কিছুই পরিবর্তন না হয়, উত্তর গাজায় একটি দুর্ভিক্ষ আসন্ন।

জাতিসংঘের অফিস ফর দ্য কোঅর্ডিনেশন অফ হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাফেয়ার্সের (ইউএনওসিএইচএ) কোঅর্ডিনেশন ডিরেক্টর রমেশ রাজাসিংহাম বলেন, ‘আমরা এখন ফেব্রুয়ারির শেষে। গাজায় অন্তত পাঁচ লাখ ৭৬ হাজার লোক যা জনসংখ্যার এক-চতুর্থাংশ হবে- দুর্ভিক্ষ থেকে এক ধাপ দূরে আছে। এদিকে উত্তর গাজার দুই বছরের কম বয়সী ছয়জন শিশুর মধ্যে একজন তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে।’

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) ডেপুটি মহাপরিচালক মৌরিজিও মার্টিনা সতর্ক করেছেন, গাজার প্রায় ৯৭ শতাংশ ভূগর্ভস্থ পানি মানুষের ব্যবহারের জন্য অনুপযুক্ত এবং সেখানে কৃষি উৎপাদন ধসে পড়তে শুরু করেছে।’

তবে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের একজন মুখপাত্র মঙ্গলবার বলেছেন, সীমান্তে সাহায্য প্রস্তুত আছে এবং গাজায় প্রবেশের জন্য অপেক্ষা করছে।

ডব্লিউএফপির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গাজার সীমান্তে তাদের যে পরিমাণ খাদ্য রয়েছে তা কিছু শর্ত মেনে তারা উপত্যকাজুড়ে ২২ লাখ মানুষকে সরবরাহ করতে পারবে।

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় গত বছরের ৭ অক্টোবর থেকে ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৯ হাজার ছাড়িয়েছে।

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলের দখলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ শীর্ষ আদালতে শুনানি শুরু
ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা ২৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে
রাফাহতে ইসরায়েলের আসন্ন অভিযানকে ‘আমাদের’ বললেন বাইডেন
গাজায় নিহত বেড়ে ২৮ হাজার ৩৪০
রাফাহতে ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৩৭, দুই বন্দিকে মুক্ত করার দাবি

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Biden hopes for a ceasefire in Gaza soon

গাজায় শিগগিরই যুদ্ধবিরতির আশা বাইডেনের

গাজায় শিগগিরই যুদ্ধবিরতির আশা বাইডেনের ফিলিস্তিনের গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফাহতে ইসরায়েলি বোমায় গুঁড়িয়ে যাওয়া আল-ফারুক মসজিদের পাশ দিয়ে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি যাচ্ছিল গাধাচালিত একটি গাড়ি। ছবি: এএফপি
নিউ ইয়র্কে সফরের সময় বাইডেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা আমাকে বলেছেন যে, আমরা (চুক্তির) কাছাকাছি। আমরা কাছাকাছি। আমরা এখনও সম্পন্ন করতে পারিনি।’

ফিলিস্তিনের গাজায় উপত্যকার শাসক দল হামাসের সঙ্গে ইসরায়েলের যুদ্ধে আগামী শনি থেকে সোমবারের মধ্যে বিরতি শুরু হওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

কাতারে যুদ্ধবিরতি ও হামাসের হাতে বন্দি ইসরায়েলিদের মুক্তির আলোচনায় বিবাদমান দুটি পক্ষ চুক্তির কাছাকাছি পৌঁছার মধ্যে সোমবার এ আশার কথা জানান যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপ্রধান।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, কাতারে একই শহরে মধ্যস্থতাকারীদের সঙ্গে ইসরায়েল ও হামাসের আলাদা আলাদা বৈঠকের অর্থ হলো দরকষাকষি যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি এগিয়েছে।

এর আগে ফেব্রুয়ারির শুরুতে যুদ্ধবিরতি নিয়ে বড় ধরনের তৎপরতা শুরু হয়। সে সময় সাড়ে চার মাস যুদ্ধবিরতির জন্য হামাসের দেয়া প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ইসরায়েল।

বাইডেন বলেন, তার আশা কয়েক দিনের মধ্যেই যুদ্ধবিরতি শুরু হবে।

যুদ্ধবিরতি কখন শুরু হতে পারে, তা নিয়ে করা প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি আশা করি সপ্তাহান্তের শুরুতে (শনিবার), সপ্তাহান্ত শেষে (সোমবার)।’

নিউ ইয়র্কে সফরের সময় বাইডেন সাংবাদিকদের আরও বলেন, ‘আমার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা আমাকে বলেছেন যে, আমরা (চুক্তির) কাছাকাছি। আমরা কাছাকাছি। আমরা এখনও সম্পন্ন করতে পারিনি।

‘আমার আশা আগামী সোমবারের মধ্যে আমরা যুদ্ধবিরতি দেখতে পাব।’

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা ২৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে
রাফাহতে ইসরায়েলের আসন্ন অভিযানকে ‘আমাদের’ বললেন বাইডেন
গাজায় নিহত বেড়ে ২৮ হাজার ৩৪০
রাফাহতে ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৩৭, দুই বন্দিকে মুক্ত করার দাবি
ইসরায়েলি হামলা থেকে বাঁচতে চাওয়া শিশুর মরদেহ উদ্ধার

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
Palestinian prime minister resigns over Gaza massacre

গাজায় ‘গণহত্যার’ ঘটনায় পদত্যাগ ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রীর

গাজায় ‘গণহত্যার’ ঘটনায় পদত্যাগ ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রীর ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের কাছে সোমবার পদত্যাগপত্র জমা দেন প্রধানমন্ত্রী শাতাইয়াহ। ছবি: রয়টার্স
পদত্যাগপত্রে শাতাইয়াহ লিখেন, ‘পশ্চিম তীর ও জেরুজালেমে (সহিংসতার) নজিরবিহীন বৃদ্ধি এবং গাজা ‍উপত্যকায় যুদ্ধ, গণহত্যা ও অনাহারের আলোকে পদত্যাগের সিদ্ধান্তটি এসেছে।’

ইসরায়েলের দখলকৃত পশ্চিম তীরে সহিংসতা বৃদ্ধি ও গাজায় ‘গণহত্যার’ বিষয়টি উল্লেখ করে পদত্যাগপত্র জমা দেয়ার কথা জানিয়েছেন ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ শাতাইয়াহ।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়, ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের কাছে সোমবার পদত্যাগপত্র জমা দেন প্রধানমন্ত্রী।

পদত্যাগপত্রে শাতাইয়াহ লিখেন, ‘পশ্চিম তীর ও জেরুজালেমে (সহিংসতার) নজিরবিহীন বৃদ্ধি এবং গাজা ‍উপত্যকায় যুদ্ধ, গণহত্যা ও অনাহারের আলোকে পদত্যাগের সিদ্ধান্তটি এসেছে।’

ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষে (পিএ) বড় ধরনের পরিবর্তন আনার পাশাপাশি যুদ্ধ পরবর্তী ফিলিস্তিন রাষ্ট্র পরিচালনায় নতুন কাঠামো তৈরিতে প্রেসিডেন্ট আব্বাসের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের বর্ধিষ্ণু চাপের মধ্যে উল্লিখিত মন্তব্য করেন শাতাইয়াহ। যদিও আব্বাসের নেতৃত্বাধীন পিএর হাতে গাজাসহ গোটা ফিলিস্তিনের নিয়ন্ত্রণ ছাড়ার আহ্বান বিভিন্ন সময়ে নাকচ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

গত সপ্তাহে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের যেকোনো ‘একতরফা’ স্বীকৃতির বিরুদ্ধে নেতানিয়াহুর অবস্থানকে সমর্থন দেন ইসরায়েলি আইনপ্রণেতারা।

যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ ফিলিস্তিনিদের জন্য আলাদা রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাকে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংকটের সমাধান হিসেবে দেখে, যেটি ‘টু স্টেট সল্যুশন’ (দুই রাষ্ট্র সমাধান) হিসেবে পরিচিত। নব্বইয়ের দশকের শুরুতে সই হওয়া অসলো চুক্তির পর দুই রাষ্ট্র সমাধানের পথে অগ্রগতি খুবই সামান্য।

আরও পড়ুন:
ইসরায়েলি দূতাবাসের সামনে গায়ে ‍আগুন যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী সদস্যের
গাজায় মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেয়ার মিশরকে ধন্যবাদ জানাল বাংলাদেশ
ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত বেড়ে ২৯ হাজার ৪১০
ইসরায়েলের দখলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ শীর্ষ আদালতে শুনানি শুরু
ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা ২৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে

মন্তব্য

আন্তর্জাতিক
US and UK warplanes hit 18 Houthi sites in Yemen

এবার হুতিদের ১৮টি লক্ষ্যবস্তুতে হামলা যুক্তরাষ্ট্র যুক্তরাজ্যের

এবার হুতিদের ১৮টি লক্ষ্যবস্তুতে হামলা যুক্তরাষ্ট্র যুক্তরাজ্যের হুতিদের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার জন্য শনিবার প্রস্তুত করা যুক্তরাজ্যের রয়্যাল এয়ার ফোর্সের একটি টাইফুন বিমান। ছবি: রয়টার্স
সর্বশেষ হামলা নিয়ে পেন্টাগনের যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, ইয়েমেনের আটটি অবস্থানে হুতি সংশ্লিষ্ট ১৮টি লক্ষ্যবস্তুতে প্রয়োজনীয় ও আনুপাতিক হামলা চালানো হয়েছে। হামলার লক্ষ্যবস্তুর মধ্যে ছিল হুতিদের ভূগর্ভস্থ অস্ত্র মজুত স্থাপনা, ক্ষেপণাস্ত্র মজুত স্থাপনা, ড্রোন, আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ও হেলিকপ্টার।

ইয়েমেনে সশস্ত্র গোষ্ঠী হুতিদের ১৮টি অবস্থান লক্ষ্য করে শনিবার যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের যুদ্ধবিমান হামলা চালিয়েছে বলে জানিয়েছে আমেরিকার প্রতিরক্ষা সদরদপ্তর পেন্টাগন।

এ নিয়ে দুই দেশ চতুর্থবারের মতো হুতিদের ওপর যৌথ অভিযান চালিয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

যুক্তরাষ্ট্রের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমটির খবরে বলা হয়, হুতিদের বিভিন্ন সরঞ্জাম মজুতের স্থাপনা, ড্রোন, আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা, রাডার ও হেলিকপ্টারকে লক্ষ্য করে গতকালের হামলাটি চালানো হয়েছে।

যুক্তরাজ্য বলেছে, হুতিদের সামর্থ্য আরও খর্ব করতে মিত্র দুই রাষ্ট্র অভিযান চালিয়েছে।

সামুদ্রিক বাণিজ্যের গুরুত্বপূর্ণ পথ লোহিত সাগর দিয়ে চলাচলকারী জাহাজের ওপর সাম্প্রতিক দিনগুলোতে বেশ কিছু হামলা চালিয়েছে হুতিরা।

ইয়েমেনের রাজধানী সানাসহ বিশাল অংশের দখল নেয়া গোষ্ঠীটির দাবি, গাজায় ইসরায়েলি হামলার জবাবে ফিলিস্তিনিদের প্রতি সংহতি জানানোর অংশ হিসেবে তারা জাহাজগুলোকে লক্ষ্যবস্তু বানাচ্ছে।

হুতিদের এসব হামলার জবাবে এর আগে তিনবার ইয়েমেনে বিমান হামলা চালায় পশ্চিমা বন্ধু দুই রাষ্ট্র যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য।

সর্বশেষ হামলা নিয়ে পেন্টাগনের যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, ইয়েমেনের আটটি অবস্থানে হুতি সংশ্লিষ্ট ১৮টি লক্ষ্যবস্তুতে প্রয়োজনীয় ও আনুপাতিক হামলা চালানো হয়েছে। হামলার লক্ষ্যবস্তুর মধ্যে ছিল হুতিদের ভূগর্ভস্থ অস্ত্র মজুত স্থাপনা, ক্ষেপণাস্ত্র মজুত স্থাপনা, ড্রোন, আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ও হেলিকপ্টার।

আরও পড়ুন:
প্রতারণা মামলায় ট্রাম্পকে সাড়ে ৩৫ কোটি ডলার জরিমানা
কানসাস সিটিতে বন্দুক হামলায় একজন নিহত, আহত ২১
ভিসা নীতির পরিবর্তন হয়নি, ড. ইউনূসকে ভয় দেখানো হচ্ছে: যুক্তরাষ্ট্র
হুতিদের ওপর ফের হামলা যুক্তরাষ্ট্রের
এবার হুতিদের ওপর হামলা যুক্তরাষ্ট্র যুক্তরাজ্যের

মন্তব্য

p
উপরে