20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
ব্রাজিলের টিকাদান কর্মসূচিতে চীনের টিকা

ব্রাজিলের টিকাদান কর্মসূচিতে চীনের টিকা

বিশ্বের যেসব দেশে করোনাভাইরাসের ভয়াবহ সংক্রমণ ঘটেছে ব্রাজিল তার মধ্যে একটি। জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির তথ্য অনুযায়ী, ব্রাজিলে ৫ কোটি ৩০ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।

ব্রাজিল তার জাতীয় টিকাদান কর্মসূচিতে চীনের তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা ব্যবহারের পরিকল্পনা করছে।

সাও পাওলোর গভর্নর জোয়াও ডোরিয়া মঙ্গলবার জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় সরকার চীনের কাছ থেকে ৪ কোটি ৬০ লাখ ডোজ টিকা কিনতে রাজি হয়েছে।

তিনি জানান, ২০২১ সালের জানুয়ারি মাসে এই টিকাদান কর্মসূচি শুরু হতে পারে যা করোনা মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে প্রথম প্রচেষ্টাগুলোর মধ্যে একটি।

বিশ্বের যেসব দেশে করোনাভাইরাসের ভয়াবহ সংক্রমণ ঘটেছে ব্রাজিল তার মধ্যে একটি। জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির তথ্য অনুযায়ী, ব্রাজিলে ৫ কোটি ৩০ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। সংক্রমণের দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের পরই দেশটির অবস্থান। আর মৃত্যুর দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পরই এর অবস্থান। এ পর্যন্ত ব্রাজিলে করোনায় এক লাখ ৫৫ হাজার মানুষ মারা গেছে।

দেশটির স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা অনুমোদন দিলে চীনা কোম্পানি সিনোভ্যাক বায়োটেক নির্মিত করোনাভ্যাক টিকা ব্রাজিলের জাতীয় টিকাদান কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্ত হতে যাওয়া দুটি টিকার মধ্যে একটি হবে।

দেশটি ইংল্যান্ডের অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি এবং বিখ্যাত ওষুধ কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকার যৌথভাবে তৈরি একটি টিকা অন্তর্ভুক্ত করারও পরিকল্পনা করছে।

চীনের এই টিকা সাও পাওলোর গবেষণা কেন্দ্র বুটানটান ইনস্টিটিউটে পরীক্ষা করা হচ্ছে। ইন্সটিটিউট সোমবার ঘোষণা করে যে, ক্লিনিকাল পরীক্ষায় দুই-ডোজ টিকা নিরাপদ বলে প্রমাণিত হয়েছে।

তবে সেই সঙ্গে তারা সতর্ক করে যে ফলাফলটি একেবারে প্রাথমিক পর্যায়ের। এ ব্যাপারে এখনো পরীক্ষা চলছে। পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত এই টিকা কীভাবে কার্যকর হবে তা প্রকাশ করা হবে না।

সূত্র: বিবিসি

শেয়ার করুন

মন্তব্য