নর্থ মেসিডোনিয়াকে গুঁড়িয়ে গ্রুপ সেরা নেদারল্যান্ডস

নর্থ মেসিডোনিয়াকে গুঁড়িয়ে গ্রুপ সেরা নেদারল্যান্ডস

নেদারল্যান্ডসের দ্বিতীয় গোলের পর মালেন, ডিপায় ও উইনালডামের উচ্ছ্বাস। ছবি: টুইটার

গ্রুপ সি-এর শেষ ম্যাচে নর্থ মেসিডোনিয়াকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করে অপরাজিত গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই পরের রাউন্ডে যায় ১৯৮৮ সালের চ্যাম্পিয়নরা।

আগের ম্যাচে অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে দারুণ জয়ে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের শেষ ১৬ নিশ্চিত করে নেদারল্যান্ডস। গ্রুপ সি-এর শেষ ম্যাচে নর্থ মেসিডোনিয়াকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করে অপরাজিত গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে পরের রাউন্ডে যায় ১৯৮৮ সালের চ্যাম্পিয়নরা।

নেদারল্যান্ডসের ঘর আমস্টার্ডাম অ্যারেনায় শুরুটা ভালো করে নবাগত নর্থ মেসিডোনিয়া। দেশটির ফুটবলের কিংবদন্তি ও অধিনায়ক গোরান প্যানডেভ ম্যাচের আগে জানান এটিই হতে যাচ্ছে জাতীয় দলের হয়ে তার শেষ লড়াই।

২০০১ সালে অভিষেক হওয়ার পর প্যানডেভ জাতীয় দলের জার্সিতে ২০ বছরের ক্যারিয়ারে ১২২টি ম্যাচ খেলেছেন।

অধিনায়কের সম্মানেই কিনা, ম্যাচে আগে জ্বলে ওঠে মেসিডোনিয়া। ১০ মিনিটেই প্যানডেভের বাড়ানো বলে শট নিয়ে গোল করে বসেন ইভান ট্রিচকোভস্কি।

পুরো দল যখন উচ্ছ্বাসে মেতেছে তখনই বেরসিকের মতো বেজে ওঠে রেফারির বাঁশি। ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্টের সাহায্য নিয়ে অফসাইডের কারণে গোল বাতিল করে দেন তিনি। থেমে যায় মেসিডোনিয়ার উৎসবের প্রস্তুতি।

শুরুতে ধাক্কা খেয়ে নড়েচড়ে বসে নেদারল্যান্ডস। ২৪ মিনিটে লিড নেয় তারা মেমফিস ডিপায়ের গোলে।

আক্রমণটা শুরু হয় নেদারল্যান্ডসের বক্স থেকে। ডেলি ব্লিন্ড ট্যাকল করে বল ছাড়িয়ে নেন প্যানডেভের কাছ থেকে। সেখান থেকে বল পেয়ে যান রায়ান গ্রাফেনবার্চ। বেশিক্ষণ বল নিজের কাছে না রেখে ডনিয়েল মালেনের উদ্দেশে বাড়ান এই মিডফিল্ডার।

বল নিয়ে এক ছুটে হাফওয়ে লাইন পার হবার পর মালেন ওয়ান টু ওয়ান করেন ডিপায়ের সঙ্গে। বক্সের ভেতর থেকে ঠান্ডা মাথায় ফিনিশিং টাচ দেন দুই দিন আগে বার্সেলোনায় যোগ দেয়া ডিপায়।

এগিয়ে যাবার পর মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার চেষ্টা করে নেদারল্যান্ডস। মেসিডোনিয়াকে প্রথমার্ধে তেমন কোনো সুযোগ দেয়নি তারা।

দূর থেকে ভাগ্য পরীক্ষা করেন ইজিয়ান আলিওস্কি ও ট্রিচকোভস্কি। কিন্তু বিফলে যায় তাদের প্রচেষ্টা। ১-০ গোলে এগিয়েই টানেলে ফেরে স্বাগতিক দল।

বিরতি থেকে ফিরে প্রতিপক্ষকে দাঁড়াতেই দেয়নি নেদারল্যান্ডস। দ্বিতীয়ার্ধের পাঁচ মিনিটের মাথায় ব্যবধান দ্বিগুণ করে দেন জর্জিনিয়ো উইনালডাম। বাঁ প্রান্ত থেকে অ্যাসিস্ট ছিল ডিপায়ের।

২-০ ব্যবধানে এগিয়ে যাওয়ার পর ম্যাচভাগ্য নিশ্চিত করতে খুব বেশি সময় নেয়নি ওরানিয়ে। মিনিট দশেকের মধ্যেই ম্যাচ নর্থ মেসিডোনিয়ার ধরাছোঁয়ার বাইরে নিয়ে যায় তারা।

এবারের আক্রমণের উৎস, ডিপায়কে বাড়ানো মালেনের পাস। মেসিডোনিয়ান গোলকিপার স্টোল দিমিত্রোভস্কি ডিপায়ের নেয়া শট ঠেকিয়ে দিলে রিবাউন্ডে বল পেয়ে যান উইনালডাম। কাছ থেকে লক্ষ্যভেদ করতে কোনো ভুল করেননি ডাচ অধিনায়ক।

৫৮ মিনিটে স্কোরলাইন ৩-০ হয়ে যাওয়ার পর মেসিডোনিয়ার সামনে আর কোনো আশা ছিল না। বাকি আধঘণ্টায় তারা চেষ্টা করে বার দুয়েক। কিন্তু ব্যবধান কমাতে পারেনি।

বড় জয়ে সি-গ্রুপ থেকে অপরাজিত হয়ে শেষ ১৬ নিশ্চিত করে নেদারল্যান্ডস। তাদের সঙ্গে দ্বিতীয় হয়ে নক আউটে যাচ্ছে অস্ট্রিয়া।

গ্রুপের অন্য ম্যাচে ক্রিস্টফ বাউমগার্টনারের একমাত্র গোলে ইউক্রেনকে হারায় তারা।

আরও পড়ুন:
পাঁচ গোলের রোমাঞ্চ জিতে নিল ডাচরা
তুর্কিদের উড়িয়ে ইতালির শুভসূচনা
লকডাউনে অবৈধ পথে ইউরোপে সাড়ে ৪ হাজার বাংলাদেশি

শেয়ার করুন

মন্তব্য