কোপায় আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় চ্যালেঞ্জ উরুগুয়ে

কোপায় আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় চ্যালেঞ্জ উরুগুয়ে

চিলির বিপক্ষে গোল করার পর উচ্ছ্বসিত লিওনেল মেসি। ছবি: এএফপি

ব্রাসিলিয়ার জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায়। মেসিদের টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় ম্যাচ হলেও, উরুগুয়ের প্রথম ম্যাচ এটি।

কোপা আমেরিকায় নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শনিবার উরুগুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামছে আর্জেন্টিনা। ব্রাসিলিয়ার জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায়। মেসিদের টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় ম্যাচ হলেও, উরুগুয়ের প্রথম ম্যাচ এটি।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে চিলির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করার পর দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের জন্য মুখিয়ে আর্জেন্টিনা। উরুগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচের আগে লিওনেল স্কালোনির জন্য সুখবর, চোট থেকে সেরে উঠেছেন ডিফেন্ডার ক্রিস্টিয়ান রোমেরো।

মিডফিল্ডার লিয়ান্দ্রো পারেদেস খেলছেন না ম্যাচে। তার জায়গায় ম্যাচ শুরু করতে পারেন গিদো রদ্রিগেস।

এছাড়া প্রথম ম্যাচে জ্বলে উঠতে না পারা নিকোলাস গনসালেসের জায়গায় আক্রমণভাগে দেখা যেতে পারে অভিজ্ঞ আনহেল দি মারিয়াকে। লিওনেল মেসির স্ট্রাইক পার্টনার হিসেবে ম্যাচ শুরু করতে পারেন ইন্টার মিলানের তারকা লাউতারো মার্তিনেস।

জাতীয় দলের জার্সি গায়ে ওপেন প্লে-থেকে প্রায় দেড় বছর গোল নেই মেসির। উরুগুয়ের বিপক্ষে সেই বৃত্ত ভাঙ্গার চেষ্টা করবেন মেসি।

উরুগুয়ের হয়ে ম্যাচ শুরু করবেন তাদের সেরা দুই তারকা লুইস সুয়ারেস ও এদিনসন কাভানি। মেসিকে আটকাতে বাড়তি একজন মিডফিল্ডার খেলানোর কথা ভাবছেন উরুগুয়ে কোচ অস্কার তাবারেস। তার পরিকল্পনা অনুযায়ী ডিফেন্ডার জোভানি গনসালেসকে মাঝমাঠে খেলবেন ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হিসেবে।

তবে মেসিকে ম্যান মার্কিং করে আটকানোর বিপদ জানেন তাবারেস। ম্যাচের আগে সংবাদমাধ্যমকে এই মাস্টার ট্যাকটিশিয়ান বলেন, ‘মেসি কোন ম্যাচে কেমন খেলে সেটা আমরা মাথায় রাখছি। আর্জেন্টিনা ও বার্সেলোনার হয়ে মেসির অসংখ্য ম্যাচ আমি দেখেছি। নিজের প্রতিভা দিয়ে প্রতিপক্ষকে সবসময়ই সে চমকে দেয়। ওকে একা ডিফেন্ড করা যাবে না। অনেক দলই সেটা চেষ্টা করে দেখেছে।’

কোপায় আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় চ্যালেঞ্জ উরুগুয়ে
উরুগুয়ের অনুশীলনে সতীর্থদের সঙ্গে লুইস সুয়ারেস। ছবি: টুইটার



মেসির বার্সেলোনা সতীর্থ হিসেবে সুয়ারেস কাম্প ন্যুয়ে খেলেছেন পাঁচ মৌসুম। ছয়বারের ব্যলন ডরজয়ী তারকার কৌশল ও খেলার ধরন সম্বন্ধে পরিষ্কার ধারণা আছে গত মৌসুমে আতলেতিকো মাদ্রিদের হয়ে লিগ শিরোপা জেতা সুয়ারেসের। ৩৪ বছর বয়সী সুয়ারেস আগেই ঘোষণা দিয়েছেন যে এটিই তার শেষ কোপা আমেরিকা হতে যাচ্ছে।

দুই দলই সবচেয়ে বেশিবার করে জিতেছে দক্ষিণ আমেরিকার এই ফুটবল টুর্নামেন্ট। সবচেয়ে বেশি জিতেছে উরুগুয়ে- ১৫ বার। আর্জেন্টিনা জিতেছে ১৪ বার।

সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ১৯৪ বার একে অপরের মুখোমুখি হয়েছে আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়ে। যা আন্তর্জাতিক ফুটবলে রেকর্ড। আর্জেন্টিনা জিতেছে ৮৯ ম্যাচ, উরুগুয়ে জিতেছে ৫৯টি। ড্র হয়েছে ৪৬ ম্যাচ।

আরও পড়ুন:
মেসি-সুয়ারেস বন্ধুত্বে ইতিহাসের দেয়াল
রোনালডোকে বদনাম নয়, মেসি বিশ্বের সেরা: দেল বস্কে
‘আমাদের মাথা ঠান্ডা ছিল না’

শেয়ার করুন

মন্তব্য