আফগানদের বিপক্ষে গোলবারে কে?

ছবির বাম থেকে রাসেল মাহমুদ লিটন, আনিসুর রহমান জিকো ও শহীদুল আলম সোহেল। ছবি: বাফুফে

আফগানদের বিপক্ষে গোলবারে কে?

বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব

৩ জুন আফগানিস্তানের বিপক্ষে গোলবারের নিচে শেষ পর্যন্ত কে দাঁড়াচ্ছেন সেটা এখনই বলা মুশকিল। মূল একাদশে সুযোগ পাওয়া যাবে লিগ ও জাতীয় দলের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে।

আর একদিন পরেই বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইপর্বে নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচ খেলতে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। মূল মঞ্চের নামার আগে চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা দেবেন জেমি ডে। এমন গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টে বলার অপেক্ষা রাখে না অনেক বড় ভূমিকা পালন করতে হবে গোলকিপারকে।

৩ জুন আফগানিস্তানের বিপক্ষে গোলবারের নিচে শেষ পর্যন্ত কে দাঁড়াচ্ছেন সেটা এখনই বলা মুশকিল। মূল একাদশের টিকিট মিলবে লিগ ও জাতীয় দলের সাম্প্রতিক পারফরম্যানসে।

এবার জাতীয় দলের ক্যাম্পে ডাক পেয়েছিলেন তিন গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকো, শহীদুল আলম সোহেল ও আশরাফুল রানা। ইনজুরিতে মাঝপথেই ক্যাম্প ছেড়ে যেতে হয় রানাকে। দলে যোগ দেন সাবেক জাতীয় দলের গোলকিপার রাসেল মাহমুদ লিটন।

জিকো, সোহেল ও লিটনকে নিয়েই কাতারে উড়াল দেয় দল। তিন গোলকিপারকে নিয়ে দোহায় বেশ ঘাম ঝড়াতে হচ্ছে গোলকিপার কোচ লেস ক্লিভলিকে। এই ইংলিশ কোচের ওপর দায়িত্ব থাকছে মূল ম্যাচে কার গ্লাভসকে ভরসা করবেন জেমি ডে।

সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স আমলে নিলে, এবার লিগে আনিসুর রহমান জিকো ১৫টা ম্যাচ খেলেছেন বসুন্ধরা কিংসের হয়ে। তার মধ্যে জিকো গোল হজম করেছেন মাত্র ছয় ম্যাচে। নয় ম্যাচে ক্লিনশিট তার।

আবাহনীর জার্সিতে এবার ১৩ ম্যাচ খেলেছেন গোলকিপার সোহেল। তার মধ্যে ক্লিনশিট রাখতে পেরেছেন মাত্র পাঁচটিতে। আবাহনী গোল হজম করেছে আটটি ম্যাচে। আর লিটন ১৫ ম্যাচে ক্লিনশিট রাখতে পেরেছেন মাত্র দুটি ম্যাচে। আর তার দল রহমতগঞ্জ লিগে ড্র করেছে পাঁচ ম্যাচে।

এবার বিশ্বকাপ বাছাইয়ে চার ম্যাচে গোলবারের নিচে দাঁড়ান আশরাফুল রানা। একটি ম্যাচে গ্লাভস হাতে দাঁড়ান জিকো। সম্প্রতি নেপালের ত্রিদেশীয় সিরিজে জিকোর ওপর ভরসা রেখেছেন জেমি। সবশেষ জাতীয় দলের প্রস্তুতি ম্যাচের মূল একাদশে ছিলেন কিংসের এই গোলকিপার।

অবশ্য একই ম্যাচে দ্বিতীয়ার্ধে সোহেলকে গোলবারের নিচে বদলি নামান জেমি।

আফগানদের বিপক্ষে গোলবারে কে?
দেশের তিন গোলকিপারকে নিয়ে প্রশিক্ষক লেস ক্লিভলি।ছবি:বাফুফে

সবমিলে এবার মূলমঞ্চে এগিয়ে থাকবেন জিকো। তবে শেষ পর্যন্ত চূড়ান্ত দলে থাকছেন কে এমন প্রশ্নে এড়িয়ে গেছেন গোলকিপার কোচ লেস ক্লিভলি।

তিনি বলেন, ‘কঠিন পরীক্ষার সামনে আছি আমরা। সবাই ভালো ম্যাচ উপহার দিতে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছে। গোলকিপার রানার অবর্তমানে নতুন গোলকিপার এসেছে। সবাই ভালো উন্নতি করছে।’

পুরো দল নিয়ে আশাবাদী ক্লিভলি বলেন, ‘ছেলেরা অনেক পরিশ্রম করছে। জিমে অনেক সময় দিচ্ছে। কন্ডিশনিং কাজটাতেও মানিয়ে নিচ্ছে। যেভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছি তাতে ভালো একটা ম্যাচ উপহার দিব আশা করি।’

আফগানিস্তান ম্যাচ সামনে রেখে বুধবার ১৭ সদস্যের চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা দেবেন জেমি। মূল মঞ্চে গোলবারের সামনে কে দাঁড়াচ্ছেন ফাইনালি তা জানতে অপেক্ষা করতে হবে বৃহস্পতিবার ম্যাচ পর্যন্ত।

আরও পড়ুন:
ম্যাচ ভেন্যুতে অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছে না বাংলাদেশ
আফগানদের শক্তিমত্তা যাচাই করে নিচ্ছে বাংলাদেশ
কাতারে জিম-সুইমিংয়ে ফুরফুরে ফুটবলাররা
১২ দিন ‘ঘরবন্দী’ থেকে কাতারে ইব্রাহিম
ডিফেন্স সামলে কাউন্টার অ্যাটাকে শান দিচ্ছেন জেমি

শেয়ার করুন

মন্তব্য

মেসির রেকর্ডের ম্যাচে শেষ আটে আর্জেন্টিনা

মেসির রেকর্ডের ম্যাচে শেষ আটে আর্জেন্টিনা

ম্যাচের একমাত্র গোলের পর পাপু গোমেসের সঙ্গে মেসির উচ্ছ্বাস। ছবি: টুইটার

ব্রাসিলিয়ায় প্যারাগুয়েকে একমাত্র গোলে হারায় ১৪ বারের কোপা চ্যাম্পিয়ন দলটি। দলের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন আলেহান্দ্রো পাপু গোমেস। আর্জেন্টিনার হয়ে রেকর্ড ১৪৭তম ম্যাচ খেলতে নামেন লিওনেল মেসি।

টানা তিন ম্যাচে ড্র করার পর কোপা আমেরিকায় নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে উরুগুয়েকে হারিয়ে জয়ের মুখ দেখে আর্জেন্টিনা। নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে প্যারাগুয়েকে হারিয়ে সেই ধারা অব্যাহত রাখল তারা। এর মধ্য দিয়ে টুর্নামেন্টের শেষ আটে পৌঁছে গেল আলবিসেলেস্তেরা।

ব্রাসিলিয়ায় প্যারাগুয়েকে একমাত্র গোলে হারায় ১৪ বারের কোপা চ্যাম্পিয়ন দলটি। দলের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন আলেহান্দ্রো পাপু গোমেস।

ব্রাজিলের রাজধানীর মানে গারিঞ্চা স্টেডিয়ামে নতুন চেহারার এক আর্জেন্টিনা দলকে নামান কোচ লিওনেল স্কালোনি। আগের ম্যাচের রদরিগো দে পল, জোভানি লো সেলসো ও নিকোলাস ওতামেন্দিকে বদল করেন তিনি।

একাদশে আনেন পাপু গোমেস, সার্হিও আগুয়েরো ও আনহেল দি মারিয়াকে। তবে নিজের রেকর্ড ম্যাচে একাদশে থেকেই শুরু করেন দলের চালিকাশক্তি ও অধিনায়ক লিওনেল মেসি।

আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে এটি ছিল মেসির ১৪৭তম ম্যাচ। এতে করে জাতীয় দলের হয়ে হাভিয়ের মাশচেরানোর খেলা সর্বোচ্চ ১৪৭ ম্যাচের রেকর্ড ছুঁয়ে দিলেন তিনি।

পরের ম্যাচে মাঠে নামলেই রেকর্ডটিকে নিজের করে নেবেন ছয়বারের ব্যালন ডর জয়ী।

প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচে আগ্রাসীভাবেই শুরু করে আর্জেন্টিনা। আট মিনিটেই এগিয়ে যাওয়ার মোক্ষম সুযোগ পায় তারা।

ডিফেন্ডারদের ভুলে প্যারাগুয়ের বক্সে বল পেয়ে যান দেড় বছর পর জাতীয় দলের জার্সিতে নামা আগুয়েরো। কিন্তু একেবারে কাছ থেকেও শট পোস্টের বাইরে মারেন তিনি।

এর দুই মিনিট পরই অবশ্য গোলের দেখা পায় আলবিসেলেস্তেরা। দি মারিয়ার থ্রু বল পেনাল্টি বক্সের ভেতর পেয়ে যান পাপু গোমেস।

সেখান থেকে দুর্দান্ত এক চিপে প্যারাগুয়ের গোলকিপার আন্তোনি সিলভাকে পরাস্ত করেন সেভিয়ার এই স্ট্রাইকার।

এগিয়ে যাওয়ার পর প্রতিপক্ষের ওপর চড়াও হওয়ার চেষ্টা করে আর্জেন্টিনা। সুযোগও পায় একের পর এক। ১৮ মিনিটে মেসির নেয়া ফ্রি-কিক অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

মেসির রেকর্ডের ম্যাচে শেষ আটে আর্জেন্টিনা
প্যারাগুয়ের ডিফেন্সের সঙ্গে বল দখলের লড়াইয়ে লিওনেল মেসি। ছবি: টুইটার

তারপরও চাপ কমায়নি স্কালোনির দল। প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে আরেকবার স্কোর করেন গোমেস। দি মারিয়ার নেয়া শট আন্তোনিও সিলভ প্রতিহত করলে ফিরতি বল পেয়ে গোমেসের উদ্দেশে বাড়ান লিয়ান্দ্রো পারেদেস।

গোমেস কাছ থেকে লক্ষ্যভেদও করেন। তবে অফসাইডের কারণে রেফারি বাতিল করে দেন গোল।

ফলে এক গোলের লিডের বিরতিতে ফিরতে হয় আর্জেন্টিনাকে।

দ্বিতীয়ার্ধে কিছুটা ঝিমিয়ে পড়ে মেসির দল। আগুয়েরো-দি মারিয়ারা এই অর্ধে তেমন কিছুই করতে পারেননি। মেসিও নিষ্প্রভ ছিলেন ৪৫ মিনিট।

প্যারাগুয়ে তেমন কোনো বিপদে ফেলতে পারেনি আর্জেন্টিনাকে। এই অর্ধে তারা বলের পজেশন বেশি রাখলেও গোলে শট নিয়েছে মাত্র একবার।

শেষ পর্যন্ত ওই এক গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে আর্জেন্টিনা।

এই জয়ে গ্রুপ-‘এ’র শীর্ষে পৌঁছাল আর্জেন্টিনা। পরের রাউন্ডে যাওয়াও নিশ্চিত তাদের। আপাতত এক সপ্তাহের বিশ্রাম তাদের। মেসিরা ফিরছেন আর্জেন্টিনায় দলীয় ক্যাম্পে।

ব্রাজিলে করোনাভাইরাস মহামারির কারণে নিজ নিজ দেশে ক্যাম্প করছে দলগুলো। ম্যাচের দিন সকালে তারা পৌঁছাচ্ছে ব্রাজিলের ভেন্যুতে।

নিজেদের শেষ ম্যাচে ২৯ জুন বলিভিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবে মেসির দল। আর বৃহস্পতিবার চিলির বিপক্ষে খেলবে প্যারাগুয়ে।

আরও পড়ুন:
ম্যাচ ভেন্যুতে অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছে না বাংলাদেশ
আফগানদের শক্তিমত্তা যাচাই করে নিচ্ছে বাংলাদেশ
কাতারে জিম-সুইমিংয়ে ফুরফুরে ফুটবলাররা
১২ দিন ‘ঘরবন্দী’ থেকে কাতারে ইব্রাহিম
ডিফেন্স সামলে কাউন্টার অ্যাটাকে শান দিচ্ছেন জেমি

শেয়ার করুন

টানা তিন জয়ে নকআউটে অপ্রতিরোধ্য বেলজিয়াম

টানা তিন জয়ে নকআউটে অপ্রতিরোধ্য বেলজিয়াম

বেলজিয়ামের দ্বিতীয় গোলের পর ডি ব্রুইনা ও লুকাকুর উদযাপন ছবি: টুইটার

রাশিয়ার সেন্ট পিটারবুর্গ স্টেডিয়ামে ফিনল্যান্ডকে ২-০ গোলে হারায় বেলজিয়াম। আত্মঘাতী গোলে লিড নেয়ার পর লুকাকুর স্ট্রাইকে দুই গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বেলজিয়াম।

কোনো বাধাই যেন বেলজিয়ামের কাছে টিকছে না। চলমান ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথম দুই ম্যাচে জেতার পর গ্রুপের তৃতীয় ম্যাচে ফিনল্যান্ডকে হারাল লুকাকু-ব্রুইনারা। টানা তিন জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নকআউট নিশ্চিত করেছে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকা দলটি।

রাশিয়ার সেন্ট পিটারবুর্গ স্টেডিয়ামে ফিনল্যান্ডকে ২-০ গোলে হারায় বেলজিয়াম।

ডেনমার্ক ও রাশিয়াকে হারিয়ে উড়ন্ত জয়ে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে থাকা রবার্তো মার্টিনেজের শিষ্যরা এ ম্যাচেও পুরো শক্তির দল নিয়ে মাঠে নামে। আধিপত্য নিয়ে পুরো ম্যাচ খেলেছে লুকাকুরা।

তবে, প্রথমার্ধ পর্যন্ত বেলজিয়ামকে রুখে দেয় প্রথমবারের মতো ইউরোতে অংশ নেয়া ফিনল্যান্ড।

দ্বিতীয়ার্ধে আর আটকে রাখা সম্ভব হয়নি। ৭৪ মিনিটে আত্মঘাতী গোলে পিছিয়ে পড়ে ফিনল্যান্ড। কেভিন ডি ব্রুইনার কর্নার থেকে উড়ে আসা বলটা হেড করেন থমাস ভার্মালেন।

বারে প্রতিহত হয়ে গোলকিপার লুকাস রাদেকির গায়ে লেগে বল পেরিয়ে যায় গোলবার লাইন। লিড নিয়ে ফেলে বেলজিয়াম।

তার আগেই অবশ্য রোমেলু লুকাকুর গোলে এগিয়ে যেত বেলজিয়াম। ম্যাচের ৬৬ মিনিটে অফসাইডে বাতিল হয় ইন্টার মিলানের এই স্ট্রাইকারের গোল।

এই ম্যাচে তাকে গোল করা থেকে বিরত রাখতে পারেনি ফিনল্যান্ড। ব্রুইনার কাছ থেকে ডি-বক্সের ভেতরে বল পেয়ে একটু ঘুরেই বল জালে জড়িয়ে টুর্নামেন্টে নিজের ৩ নম্বর গোলটি আদায় করে নেন লুকাকু।

তিন ম্যাচেই গোলের দেখা পেলেন এই স্ট্রাইকার। সব মিলিয়ে ৯৬ ম্যাচে তার গোলের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াল ৬৩-তে।

এ জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ইতালি ও নেদারল্যান্ডের পর নকআউট পর্বে চলে গেল বেলজিয়াম। রাশিয়াকে ৪-১ ব্যবধানে হারিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে নকআউট পর্বে চলে গেছে ডেনমার্ক।

আরও পড়ুন:
ম্যাচ ভেন্যুতে অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছে না বাংলাদেশ
আফগানদের শক্তিমত্তা যাচাই করে নিচ্ছে বাংলাদেশ
কাতারে জিম-সুইমিংয়ে ফুরফুরে ফুটবলাররা
১২ দিন ‘ঘরবন্দী’ থেকে কাতারে ইব্রাহিম
ডিফেন্স সামলে কাউন্টার অ্যাটাকে শান দিচ্ছেন জেমি

শেয়ার করুন

নর্থ মেসিডোনিয়াকে গুঁড়িয়ে গ্রুপ সেরা নেদারল্যান্ডস

নর্থ মেসিডোনিয়াকে গুঁড়িয়ে গ্রুপ সেরা নেদারল্যান্ডস

নেদারল্যান্ডসের দ্বিতীয় গোলের পর মালেন, ডিপায় ও উইনালডামের উচ্ছ্বাস। ছবি: টুইটার

গ্রুপ সি-এর শেষ ম্যাচে নর্থ মেসিডোনিয়াকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করে অপরাজিত গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই পরের রাউন্ডে যায় ১৯৮৮ সালের চ্যাম্পিয়নরা।

আগের ম্যাচে অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে দারুণ জয়ে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের শেষ ১৬ নিশ্চিত করে নেদারল্যান্ডস। গ্রুপ সি-এর শেষ ম্যাচে নর্থ মেসিডোনিয়াকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করে অপরাজিত গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে পরের রাউন্ডে যায় ১৯৮৮ সালের চ্যাম্পিয়নরা।

নেদারল্যান্ডসের ঘর আমস্টার্ডাম অ্যারেনায় শুরুটা ভালো করে নবাগত নর্থ মেসিডোনিয়া। দেশটির ফুটবলের কিংবদন্তি ও অধিনায়ক গোরান প্যানডেভ ম্যাচের আগে জানান এটিই হতে যাচ্ছে জাতীয় দলের হয়ে তার শেষ লড়াই।

২০০১ সালে অভিষেক হওয়ার পর প্যানডেভ জাতীয় দলের জার্সিতে ২০ বছরের ক্যারিয়ারে ১২২টি ম্যাচ খেলেছেন।

অধিনায়কের সম্মানেই কিনা, ম্যাচে আগে জ্বলে ওঠে মেসিডোনিয়া। ১০ মিনিটেই প্যানডেভের বাড়ানো বলে শট নিয়ে গোল করে বসেন ইভান ট্রিচকোভস্কি।

পুরো দল যখন উচ্ছ্বাসে মেতেছে তখনই বেরসিকের মতো বেজে ওঠে রেফারির বাঁশি। ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্টের সাহায্য নিয়ে অফসাইডের কারণে গোল বাতিল করে দেন তিনি। থেমে যায় মেসিডোনিয়ার উৎসবের প্রস্তুতি।

শুরুতে ধাক্কা খেয়ে নড়েচড়ে বসে নেদারল্যান্ডস। ২৪ মিনিটে লিড নেয় তারা মেমফিস ডিপায়ের গোলে।

আক্রমণটা শুরু হয় নেদারল্যান্ডসের বক্স থেকে। ডেলি ব্লিন্ড ট্যাকল করে বল ছাড়িয়ে নেন প্যানডেভের কাছ থেকে। সেখান থেকে বল পেয়ে যান রায়ান গ্রাফেনবার্চ। বেশিক্ষণ বল নিজের কাছে না রেখে ডনিয়েল মালেনের উদ্দেশে বাড়ান এই মিডফিল্ডার।

বল নিয়ে এক ছুটে হাফওয়ে লাইন পার হবার পর মালেন ওয়ান টু ওয়ান করেন ডিপায়ের সঙ্গে। বক্সের ভেতর থেকে ঠান্ডা মাথায় ফিনিশিং টাচ দেন দুই দিন আগে বার্সেলোনায় যোগ দেয়া ডিপায়।

এগিয়ে যাবার পর মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার চেষ্টা করে নেদারল্যান্ডস। মেসিডোনিয়াকে প্রথমার্ধে তেমন কোনো সুযোগ দেয়নি তারা।

দূর থেকে ভাগ্য পরীক্ষা করেন ইজিয়ান আলিওস্কি ও ট্রিচকোভস্কি। কিন্তু বিফলে যায় তাদের প্রচেষ্টা। ১-০ গোলে এগিয়েই টানেলে ফেরে স্বাগতিক দল।

বিরতি থেকে ফিরে প্রতিপক্ষকে দাঁড়াতেই দেয়নি নেদারল্যান্ডস। দ্বিতীয়ার্ধের পাঁচ মিনিটের মাথায় ব্যবধান দ্বিগুণ করে দেন জর্জিনিয়ো উইনালডাম। বাঁ প্রান্ত থেকে অ্যাসিস্ট ছিল ডিপায়ের।

২-০ ব্যবধানে এগিয়ে যাওয়ার পর ম্যাচভাগ্য নিশ্চিত করতে খুব বেশি সময় নেয়নি ওরানিয়ে। মিনিট দশেকের মধ্যেই ম্যাচ নর্থ মেসিডোনিয়ার ধরাছোঁয়ার বাইরে নিয়ে যায় তারা।

এবারের আক্রমণের উৎস, ডিপায়কে বাড়ানো মালেনের পাস। মেসিডোনিয়ান গোলকিপার স্টোল দিমিত্রোভস্কি ডিপায়ের নেয়া শট ঠেকিয়ে দিলে রিবাউন্ডে বল পেয়ে যান উইনালডাম। কাছ থেকে লক্ষ্যভেদ করতে কোনো ভুল করেননি ডাচ অধিনায়ক।

৫৮ মিনিটে স্কোরলাইন ৩-০ হয়ে যাওয়ার পর মেসিডোনিয়ার সামনে আর কোনো আশা ছিল না। বাকি আধঘণ্টায় তারা চেষ্টা করে বার দুয়েক। কিন্তু ব্যবধান কমাতে পারেনি।

বড় জয়ে সি-গ্রুপ থেকে অপরাজিত হয়ে শেষ ১৬ নিশ্চিত করে নেদারল্যান্ডস। তাদের সঙ্গে দ্বিতীয় হয়ে নক আউটে যাচ্ছে অস্ট্রিয়া।

গ্রুপের অন্য ম্যাচে ক্রিস্টফ বাউমগার্টনারের একমাত্র গোলে ইউক্রেনকে হারায় তারা।

আরও পড়ুন:
ম্যাচ ভেন্যুতে অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছে না বাংলাদেশ
আফগানদের শক্তিমত্তা যাচাই করে নিচ্ছে বাংলাদেশ
কাতারে জিম-সুইমিংয়ে ফুরফুরে ফুটবলাররা
১২ দিন ‘ঘরবন্দী’ থেকে কাতারে ইব্রাহিম
ডিফেন্স সামলে কাউন্টার অ্যাটাকে শান দিচ্ছেন জেমি

শেয়ার করুন

‘ঢাকা ডার্বির’ আগে মোহামেডানের কোচসহ ১৭ জনের করোনা

‘ঢাকা ডার্বির’ আগে মোহামেডানের কোচসহ ১৭ জনের করোনা

মোহামেডান দল। ছবি: বাফুফে

প্রধান কোচ শন লেনসহ মোহামেডানের ১৭ জন করোনায় আক্রান্ত। তাদের মধ্যে ১২ ফুটবলার, চার বল বয়। বিষয়টি সোমবার রাতে নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন মোহামেডানের টিম ম্যানেজার আবু হাসান প্রিন্স।

প্রায় দেড় মাসের বিরতি শেষে ২৫ জুন থেকে মাঠে গড়াচ্ছে প্রিমিয়ার লিগ। প্রথম দিনেই হওয়ার কথা দেশের দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাব ঢাকা আবাহনী-মোহামেডানের দ্বৈরথ। এই অবস্থায় করোনায় বিপর্যস্ত মোহামেডান। প্রধান কোচ শন লেনসহ মোহামেডানের ১৭ জন করোনায় আক্রান্ত। তাদের মধ্যে ১২ ফুটবলার, চার বল বয়।

বিষয়টি সোমবার রাতে নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন মোহামেডানের টিম ম্যানেজার আবু হাসান প্রিন্স।

তিনি বলেন, ‘আমরা ১৯ তারিখে পরীক্ষা করিয়েছি লিগের ম্যাচকে সামনে রেখে। রোববার ও সোমবার রেজাল্ট হাতে পাই সবার। সবমিলে ১৭ জনের কোভিড টেস্টে পজিটিভ এসেছে। সবাইকে ক্লাবের আবাসিকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।’

মোহামেডানের টানা তিন ম্যাচে জয়ের পর লিগে বিরতি আসে। মাঝে লিগকে সামনে রেখে অনুশীলন চালিয়ে গেছে মোহামেডান। বিরতির পর প্রথম ম্যাচেও জয়ের লক্ষ্যে উজ্জ্বীবিত ছিল পুরো দল। এই অবস্থায় করোনার দুঃসংবাদ অস্বস্তিতে ফেলেছে পুরো দলকে।

প্রিন্স নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আমরা লিগে শেষ তিন ম্যাচে টানা জিতে বেশ উজ্জ্বীবিত ছিলাম। সামনে ম্যাচেও একটা ভালো খেলার আশায় ছিলাম। করোনার এমন খবরে পুরো দল মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে।’

এই অবস্থায় মঙ্গলবার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের কাছে শিডিউল পরিবর্তনের মানবিক আবেদন করে চিঠি দিবে মোহামেডান।

দলের টিম ম্যানেজার বলেন, ‘এতোজন করোনায় আক্রান্ত হলে খেলা সম্ভব নয়। আমরা মঙ্গলবার ফেডারেশনের কাছে চিঠি দেব। যাতে আমাদের শিডিউল পরে রাখা হয়। এটা আমাদের মানবিক আবেদন। দলের এই অবস্থায় খেলা একেবারেই সম্ভব নয়।’

আগামী ১০ দিনের মধ্যে কর্তব্যরত চিকিৎসক সবার আবারও কোভিড টেস্ট করানোর পরামর্শ দিয়েছেন।

প্রিমিয়ার লিগে ১৫ ম্যাচে ২৮ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে আছে মোহামেডান। একই পয়েন্ট নিয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে চট্টগ্রাম আবাহনী আছে চারে।

৩২ পয়েন্ট নিয়ে তিনে শেখ জামাল। একই পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আবাহনী। আর ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অপরাজিত বসুন্ধরা কিংস।

আরও পড়ুন:
ম্যাচ ভেন্যুতে অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছে না বাংলাদেশ
আফগানদের শক্তিমত্তা যাচাই করে নিচ্ছে বাংলাদেশ
কাতারে জিম-সুইমিংয়ে ফুরফুরে ফুটবলাররা
১২ দিন ‘ঘরবন্দী’ থেকে কাতারে ইব্রাহিম
ডিফেন্স সামলে কাউন্টার অ্যাটাকে শান দিচ্ছেন জেমি

শেয়ার করুন

প্যারাগুয়ে ‘জুজু’ কাটানোর পালা মেসিদের

প্যারাগুয়ে ‘জুজু’ কাটানোর পালা মেসিদের

ছবি: টুইটার

কোপা আমেরিকার গ্রুপ পর্বের তৃতীয় ম্যাচে প্যারাগুয়ের এই জুজু কাটানোর অপেক্ষায় টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শিরোপাধারীরা।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলে আর্জেন্টিনার গলার কাঁটা হয়ে আছে প্যারাগুয়ে। সবশেষ চার দেখায় প্যারাগুয়েকে হারাতে পারেনি লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা। তিনটিতে ড্রয়ের অস্বস্তি আর একটি হারের তেতো স্বাদ আছে আলবেসিলেস্তাদের। তবে ওই হারের ম্যাচে ছিলেন না লিওনেল মেসি।

এবার কোপা আমেরিকায় মেসি আছেন। কোপা আমেরিকার গ্রুপ পর্বের তৃতীয় ম্যাচে প্যারাগুয়ের এই জুজু কাটানোর অপেক্ষায় টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শিরোপাধারীরা।

সব মিলিয়ে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে আর্জেন্টিনার রেকর্ড বেশ ভালো। ১০৫ লড়াইয়ে ৫৮টিতে জয় পেয়েছে আর্জেন্টিনা। প্যারাগুয়ের কাছে হেরেছে ১৬টি ম্যাচে। বাকি ৩৪ ম্যাচ হয়েছে ড্র।

মঙ্গলবার সকালের ম্যাচে শুরুর একাদশে নাও খেলতে পারেন আর্জেন্টিনার জোভান্নি লো সেলসো ও নিকোলাস গনসালেস। হালকা ইনজুরির কারণে তাদের বিশ্রামে রাখতে পারেন কোচ স্কালোনি। তাদের পরিবর্তে আনহেল দি মারিয়া ও এজেকিয়েল পালাসিওস একাদশে ঢুকতে পারেন।

খেলা হতে পারে অভিজ্ঞ সার্হিও আগুয়েরোর। তেমনটা হলে দেড় বছর পর মেসি-মারিয়া-আগুয়েরো ত্রয়ীকে একসঙ্গে মাঠে দেখার সৌভাগ্য হবে ফুটবল সমর্থকদের।

আর্জেন্টিনা বরাবরের মতো এ ম্যাচেও তাকিয়ে থাকবে মেসির দিকে। প্রথম ম্যাচে গোলের পর দ্বিতীয় ম্যাচে উরুগুয়েকে আর্জেন্টিনা হারায় মেসির অ্যাসিস্ট থেকে। ৩৩ বছর বয়সে তার প্রথম কোপার স্বপ্ন দেখছেন অনেকে।

এই অবস্থায় আপাতত ম্যাচ বাই ম্যাচ চিন্তা করছেন মেসিরা। দলের ডিফেন্ডার ক্রিস্টিয়ান রোমেরো ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ খেলব। এটা স্পষ্ট যে আমাদের একটা দারুণ দল আছে। আমরা কতদূর যাব সেটা নির্ভর করছে আমাদের ওপরই।’

প্যারাগুয়ে প্রথম ম্যাচে বলিভিয়াকে ৩-১ ব্যবধানে হারিয়ে আসর শুরু করে। কোপার ইতিহাসও আর্জেন্টিনার পক্ষে। দক্ষিণ আমেরিকার সর্বোচ্চ ফুটবল টুর্নামেন্টে সবশেষ ২২ ম্যাচে প্যারাগুয়ের কাছে হারেনি দুই বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টিনা।

বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায় ম্যাচটি গড়াবে ব্রাজিলের ব্রাসিলিয়ার মানে গারিঞ্চা স্টেডিয়ামে। প্যারাগুয়েকে হারালে নক আউট পর্ব নিশ্চিত হবে আর্জেন্টিনার।

আর্জেন্টিনা ও প্যারাগুয়ের মাঠে নামার আগে বাংলাদেশ সময় রাত ৩টায় মুখোমুখি হচ্ছে চিলি ও উরুগুয়ে। আর্জেন্টিনার সঙ্গে ড্রয়ের পর বলিভিয়াকে হারিয়েছে চিলি। আর উরুগুয়ে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হেরেছে আর্জেন্টিনার কাছে।

আরও পড়ুন:
ম্যাচ ভেন্যুতে অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছে না বাংলাদেশ
আফগানদের শক্তিমত্তা যাচাই করে নিচ্ছে বাংলাদেশ
কাতারে জিম-সুইমিংয়ে ফুরফুরে ফুটবলাররা
১২ দিন ‘ঘরবন্দী’ থেকে কাতারে ইব্রাহিম
ডিফেন্স সামলে কাউন্টার অ্যাটাকে শান দিচ্ছেন জেমি

শেয়ার করুন

যোগ্য নেতা হয়ে উঠছেন মেসি

যোগ্য নেতা হয়ে উঠছেন মেসি

প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচের আগে অনুশীলনে লিওনেল মেসি। ছবি: এএফপি

টানা তিন ম্যাচ ড্রয়ের পর এই জয়ের পেছনে বরাবরের মতো কৃতিত্ব লিওনেল মেসির। উরুগুয়ের বিপক্ষে গোল না পেলেও আর্জেন্টিনার হয়ে বছরের সেরা পারফরম্যান্স উপহার দিয়েছেন অধিনায়ক।

কোপা আমেরিকায় নিজেদের ছন্দ ফিরে পেয়েছে আর্জেন্টিনা। প্রথম ম্যাচে চিলির সঙ্গে ড্রয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচে উরুগুয়ের বিপক্ষে দারুণ খেলে সেরা ফর্মে ফিরেছে লাতিন ফুটবলের জায়ান্টরা।

টানা তিন ম্যাচ ড্রয়ের পর এই জয়ের পেছনে বরাবরের মতো কৃতিত্ব লিওনেল মেসির। উরুগুয়ের বিপক্ষে গোল না পেলেও আর্জেন্টিনার হয়ে বছরের সেরা পারফরম্যান্স উপহার দিয়েছেন অধিনায়ক।

পুরো খেলা নিয়ন্ত্রণ করেছেন। অধিকাংশ আক্রমণ রচনা হয়েছে তার পা থেকে। ম্যাচ নির্ধারণী গোলটিও ছিল তার অ্যাসিস্টে। সব মিলিয়ে জাতীয় দলের জার্সিতে মেসি ফিরেছেন চেনা রূপেই।

প্রশংসা পাচ্ছে মেসির অধিনায়কত্ব। মাঠ ও মাঠের বাইরে দলের যোগ্য নেতা হয়ে উঠছেন ছয়বারের ব্যলন ডর জয়ী, এমনটা দাবি আর্জেন্টিনা কোচ লিওনেল স্কালোনির। প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচের আগে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মলনে এমনটা বলেন আর্জেন্টিনার হেড কোচ।

‘আমার মনে হয় মেসির নেতৃত্ব মাঠে ও মাঠের বাইরে সব সময়ই দারুণ। সে চমৎকার একজন মানুষ। সে তার দলকে সব সময়ই এগিয়ে নিতে চায়। দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে চায়।’

অধিনায়কত্ব নিয়ে কম কথা শুনতে হয়নি মেসিকে। সমালোচকরা বারবার বলেছেন, ফুটবল দক্ষতার ইতিহাস সেরা হলেও, সতীর্থদের সঙ্গে যোগাযোগ ও সামনে থেকে নেতা হওয়ার ভূমিকায় মেসি সব সময়ই ম্লান। এখানেই তার চেয়ে এগিয়ে কিংবদন্তির ম্যারাডোনা।

এমনকি অধিনায়ক হিসেবে যে বিশ্বকাপে দলকে ফাইনালে তুলেছিলেন, সেই ২০১৪ ব্রাজিলে আলবিসেলেস্তেদের নেতা হওয়ার কৃতিত্ব পান হাভিয়ের মাশচেরানো।

অধিনায়কত্বের ভার মেসির জন্য নতুন কিছু নয়। এফসি বার্সেলোনা অধিনায়কত্ব করছেন মেসি প্রায় পাঁচ মৌসুম। বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় ক্লাবের প্রত্যাশার দায়িত্ব বহন করেছেন দিনের পর দিন ।

দরকার ছিল একটা ভালো ও কার্যকরী একটা দল। এবারের কোপা আমেরিকার স্কোয়াড তেমন একটা প্রত্যাশা দিচ্ছে মেসিকে। নিকোলাস গঞ্জালেস, ক্রিস্টিয়ান রোমেরো ও রদ্রিগো দে পলের মতো তরুণরা মেসিকে কিছুটা হলেও ভারমুক্ত করার চেষ্টা করছেন।

ফুটবলার মেসি প্রশ্নের ঊর্ধ্বে। এত দিন প্রশ্নবিদ্ধ ছিল তার অধিনায়কত্ব। এবারের কোপায় যদি আর্জেন্টিনা ফাইনাল হার্ডল টপকে ফেলে তাহলে হয়তো সেটাও বন্ধ হবে চিরতরে।

আরও পড়ুন:
ম্যাচ ভেন্যুতে অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছে না বাংলাদেশ
আফগানদের শক্তিমত্তা যাচাই করে নিচ্ছে বাংলাদেশ
কাতারে জিম-সুইমিংয়ে ফুরফুরে ফুটবলাররা
১২ দিন ‘ঘরবন্দী’ থেকে কাতারে ইব্রাহিম
ডিফেন্স সামলে কাউন্টার অ্যাটাকে শান দিচ্ছেন জেমি

শেয়ার করুন

বদলে যাচ্ছে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের চেহারা

বদলে যাচ্ছে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের চেহারা

ছবি: সংগৃহীত

সেপ্টেম্বরে সাফ আয়োজনের কথা ছিল বাংলাদেশের। আধুনিকায়নের কাজ চললে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের খেলা বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম থেকে সরিয়ে নেয়ার কথা ভাবছে বাফুফে।

আধুনিকায়নের কথা ছিল আগেই। কয়েক দফা পিছিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হতে চলেছে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের আধুনিকায়নের কার্যক্রম। এতে পাল্টে যাবে স্টেডিয়ামের পুরনো চেহারা।

ফুটবলের প্রধান ভেন্যু হওয়ার কারণে সারাবছর ব্যস্ত থাকে এই স্টেডিয়াম। কীভাবে ফুটবলের কার্যক্রম অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে স্টেডিয়াম আধুনিকায়নের ব্যবস্থা করা যায় তা নিয়ে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিল যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়।

বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে, লিগ শেষ হওয়ার পর আধুনিকায়নের মূল কাজ শুরু হবে। সম্ভাব্য সময় আগস্টের প্রথম সপ্তাহ। তবে, অন্যান্য কাজ শুরু হবে মঙ্গলবার থেকে।

কবে কার্যক্রম শুরু হচ্ছে জানালেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। বলেন, ‘গত মার্চ মাসেই শুরু হওয়ার কথা ছিল। যেহেতু ফুটবল ফেডারেশনের নিয়মিত খেলা চলছিল সেজন্য আমরা কার্যক্রম শুরু করতে পারছিলাম না। লিগের খেলা শেষ হলেই আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে মাঠের কাজটি শুরু করব। মাঠ ও টার্ফের কাজ শুরু করব।’

আগামী সেপ্টেম্বরে সাফ আয়োজনের কথা ছিল বাংলাদেশের। আধুনিকায়নের কাজ চললে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের খেলা বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম থেকে সরিয়ে নেয়ার কথা জানালেন বাফুফের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন।

তিনি বলেন, ‘আমাদের লিগ শেষ হবে পাঁচ আগস্টে। এরপরে মাঠ হ্যান্ডওভার করে দিতে সমস্যা নাই। সমস্যা হবে পরের বছরে। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ নিয়ে। একটা সমাধান আমাদের বের করতে হবে।

‘বঙ্গবন্ধুতে যদি না হয় তাহলে দেশেতো আরও অনেক স্টেডিয়াম আছে। সিলেট আছে, চট্টগ্রাম আছে, কুমিল্লা আছে। একটা সমাধান বের করব। আজকের মিটিংয়ের পরে আমরা সাফ কমিটির সঙ্গে বসব। সাফের খেলা নিয়ে করোনার মধ্যে দলগুলো কনফার্ম করে আবার করে না। এখানে একটা সমস্যা রয়ে গেছে।’

স্টেডিয়ামের কী কী আধুনিকায়ন করা হতে পারে তার একটি ধারণা দিয়েছেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল।

তিনি বলেন, ‘পুরো স্টেডিয়ামটিতে শেড দিতে চাচ্ছি। পাশাপাশি স্টেডিয়ামের ড্রেসিং রুম, মিডিয়া সেন্টার, ডক্টরস রুম, প্রেসিডেন্ট বক্স, ভিআইপি বক্স, গ্যালারি, টয়লেটগুলো আধুনিকায়ন করা হবে।’

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের চেহারা পাল্টালেও সরছে না স্টেডিয়ামের বাইরের দোকান পাট। রাসেল বলেন, ‘বাইরের অংশে যদি কোনো স্থাপনা হয়ে যায় তাহলে সেটা সরানো খুব কষ্টকর একটা বিষয়। ভবিষ্যতে ১০-১২ বছর পরে যদি নতুন করে স্টেডিয়াম ভেঙে করি তাহলে দোকান-পাট থাকবে না।’

আগামী বছরই আধুনিকায়ন কার্যক্রম শেষ করার কথা জানিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী।

আরও পড়ুন:
ম্যাচ ভেন্যুতে অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছে না বাংলাদেশ
আফগানদের শক্তিমত্তা যাচাই করে নিচ্ছে বাংলাদেশ
কাতারে জিম-সুইমিংয়ে ফুরফুরে ফুটবলাররা
১২ দিন ‘ঘরবন্দী’ থেকে কাতারে ইব্রাহিম
ডিফেন্স সামলে কাউন্টার অ্যাটাকে শান দিচ্ছেন জেমি

শেয়ার করুন