নিঃসন্তান দিলীপ-সায়রার ছেলের মতোই শাহরুখ

নিঃসন্তান দিলীপ-সায়রার ছেলের মতোই শাহরুখ

সায়রা বানুর পাশে শাহরুখ খান। ছবি: সংগৃহীত

কয়েক বছর আগে দিলীপ কুমার হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন শাহরুখ খান। সেই ছবিও সায়রা বানুর পক্ষ থেকে দিলীপ কুমারের টুইটারে পোস্ট করা হয়েছিল।

কিংবদন্তি অভিনেতা দিলীপ কুমারের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ পুরো বলিউড। তার শেষ যাত্রায় হাজির হয়েছিলেন বলিউডের অনেক তারকাই।

তেমনই বর্ষিয়ান এই অভিনেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে লেন্সবন্দি হন শাহরুখ খান।

দিলীপের মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন তার সহধর্মিনী অভিনেত্রী সায়রা বানু। তার হাত ধরে সান্ত্বনা দিয়ে দেখা যায় শাহরুখকে। যেন মায়ের হাত ধরে শোক ভাগ করে নিচ্ছেন ছেলে।

নিঃসন্তান দিলীপ কুমার ও সায়রা বানু ছেলের মতোই মনে করেন শাহরুখকে।

কয়েক বছর আগে দিলীপ কুমার হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন শাহরুখ খান।

সেই ছবিও সায়রা বানুর পক্ষ থেকে দিলীপ কুমারের টুইটারে পোস্ট করা হয়েছিল।

এক সাক্ষাৎকারে সায়রা বানু জানিয়েছিলেন, ‘আমার আর দিলীপ সাবের সন্তান থাকলে সে শাহরুখের মতোই হতো। শাহরুখ এবং সাহাবের (দিলীপ) চুল অনেকটা একই রকমের। সেই কারণে শাহরুখের সঙ্গে যখনই দেখা হয়, আমি ওর চুলে বিলি কাটি। শাহরুখ আমাকে উলটো প্রশ্ন করে, আপনি আমার চুলে হাত দিচ্ছেন না? ওটা আমার ভালো লাগে।’

মুম্বাইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালে স্থানীয় সময় বুধবার সকালে মৃত্যু হয় ‘বলিউডের ট্র্যাজেডি কিং’ খ্যাত কিংবদন্তি অভিনেতা দিলীপ কুমারের। তার বয়স হয়েছিল ৯৮ বছর।

দিলীপ কুমার আর সায়রা বানুর ৫০ বছরের বেশি সময়ের বৈবাহিক সম্পর্ক। ১৯৬৬ সালে সায়রাকে বিয়ে করেন দিলীপ। গোপি, সাগিনাবৈরাগ চলচ্চিত্রে দিলীপের সহ-অভিনেত্রী ছিলেন সায়রা।

ভারত ভাগের আগে ১৯২২ সালের ১১ ডিসেম্বর বর্তমান পাকিস্তানের পেশোয়ারে জন্ম হয় দিলীপ কুমারের।

তার আসল নাম ইউসুফ খান। কিন্তু নিজের সমসাময়িক অনেক মুসলিম অভিনেতার মতোই তিনিও হিন্দি চলচ্চিত্রে নাম লেখানোর সময় হিন্দু নাম গ্রহণ করেন।

নয়া দৌড়, মুঘল-ই-আজম, দেবদাস, রাম অর শ্যাম, আন্দাজ, মধুমতি, গঙ্গা যমুনা, মেলাসহ ভারতের বিখ্যাত বেশ কিছু সিনেমায় প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন দিলীপ কুমার।

১৯৪০-এর দশকে অভিনয়ে নাম লেখান তিনি। দীর্ঘ কয়েক দশকের কর্মজীবন তার।

১৯৪৪ সালে মুক্তি পায় দিলীপ কুমার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র জোয়ার ভাটা। তার শেষ চলচ্চিত্র কিলা মুক্তি পায় ১৯৯৮ সালে।

প্রায় ৫৫ বছরে ৬৫টির বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন দিলীপ।

১৯৪৯ সালে সাড়া জাগানো সিনেমা আন্দাজ দিয়ে আলোচনায় আসেন দিলীপ। ত্রিমুখী প্রেমের ব্লকবাস্টার ওই সিনেমায় আরও অভিনয় করেছিলেন প্রখ্যাত দুই শিল্পী নার্গিস ও রাজ কাপুর।

পদ্মবিভূষণ, পদ্মভূষণ ও দাদা সাহেব ফালকে পুরস্কারসহ অসংখ্য সম্মাননা অর্জন করেন দিলীপ। পাকিস্তানের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা নিশান-ই-ইমতিয়াজও পান ভারতীয় এ অভিনেতা।

ফিল্মফেয়ারে সেরা অভিনেতার প্রথম পুরস্কারটি পেয়েছিলেন দিলীপ। পরবর্তী সময়ে আটটি ফিল্মফেয়ার সেরা অভিনেতার পুরস্কার পান তিনি।

দিলীপ কুমারের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, প্রেসিডেন্ট রাম নাথ কোবিন্দসহ দেশটির বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

বিকেল ৫ টায় পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদার সঙ্গে মুম্বাইয়ে জুহু কররস্থান তার শবদেহ শায়িত করা হয়।

আরও পড়ুন:
কিংবদন্তি দিলীপ কুমারকে শ্রদ্ধা জয়ার
দিলীপ কুমারের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
‘একটি প্রতিষ্ঠানের বিদায়’
সীমানা পেরিয়েছিল দিলীপের অভিনয়জাদু
‘তার মৃত্যুতে ক্ষতি হলো আমাদের সংস্কৃতি জগতের’

শেয়ার করুন

মন্তব্য