ইউটিউবারদের জন্য বাজেটে কিছু নেই: সালমান মুক্তাদির

ইউটিউবার সালমান মুক্তাদির। ছবি: সংগৃহীত

ইউটিউবারদের জন্য বাজেটে কিছু নেই: সালমান মুক্তাদির

ইউটিউবার সালমান মুক্তাদির বললেন, সরকার যদি ইউটিউবারদের জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে, তাহলে প্রথম বছরেই দেড় হাজার মিলিয়ন ডলার আয় করা সম্ভব।

ইউটিউব থেকে এখন অনেকেই আয় করছেন। নানা প্রতিবেদনে উঠে এসেছে তাদের ভালো আয়ের তথ্য। যেমন ফুড ব্লগার ‘রাফসান দ্য ছোট ভাই’ নামে পরিচিত রাফসানের মাসে আয় লাখ টাকা বলে তিনি নিজেই দাবি করেছেন।

‘থটস অব শামস’ নামে অ্যাকাউন্ট চালানো ইউটিবার শামস তার এক বক্তব্যে জানিয়েছিলেন, আট থেকে দশ লাখ টাকা আয় করেন তিনি, যদিও তিনি বলেন নি সেটা মাসিক না বার্ষিক আয়।

ইউটিউবার ও কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের এই আয় কিছুটা হলেও অবদান রাখতে পারত জাতীয় বাজেটে। নিউজবাংলাকে তেমনটাই জানালেন দেশের সেলিব্রিটি ইউটিউবার সালমান মুক্তাদির। কিন্ত কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের কাজকে স্বীকৃতি দেয়া হয় না বলে সেটা সম্ভব হচ্ছে না বলে দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি।

নিউজবাংলাকে তিনি বলেন, ‘কনটেন্ট ক্রিয়েটরদেরকে ডেকে যদি একটা প্ল্যাটফর্মে আনা যেত, তাহলে কিন্তু অনেকগুলো কাজ একসঙ্গে হতে পারত। দেশের শ্রমশক্তি দেশেই ব্যবহার করে বিদেশ থেকে আয় করার সুযোগ ছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘এমন একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে পারলে প্রথম বছরেই দেড় হাজার মিলিয়ন ডলার আয় করা সম্ভব বলে আমি মনে করি। একই সঙ্গে কনটেন্টের এখন যে এলোমেলো অবস্থা, সেটাও ঠিক হতে পারত।’

কিন্তু সালমান দুঃখ নিয়েই জানান, তিনি বিশ্বাস করেন এই কাজের স্বীকৃতি সরকার দেবে না। তাই তিনি এসব নিয়ে আশা করেন না।

তিনি বলেন, ‘আমরা হচ্ছি নিজেরটা নিজে করে খাওয়া মানুষ আর কি।’

সালমান জানান, যদি সরকারি কর্তৃপক্ষ মনে করেন এমন একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করবে, এই খাতে কিছু বাজেট দেবে, এর প্রমোশন করবে, তাহলে নিশ্চয়ই কনটেন্ট ক্রিয়েশন একটি ভালো জায়গা পেত এবং বাজেটে কিছু হলেও অবদান রাখতে পারত।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

জনপ্রিয়তা কমছে ‘ইন্ডিয়ান আইডল’র

জনপ্রিয়তা কমছে ‘ইন্ডিয়ান আইডল’র

‘ইন্ডিয়ান আইডল-১২’ সিজন প্রচার শুরু হওয়ার পর থেকেই টিআরপি কমছে এই শো-টির। চলতি সপ্তাহে টিআরপি তালিকা সামনে আসতেই বেশ বড়সড় ধাক্কা খেল শো সংশ্লিষ্টরা।

শুধু ভারতীয় নয় বাংলাদেশের দর্শকদের মাঝেও বেশ জনপ্রিয় মিউজিক রিয়্যালিটি শো ‘ইন্ডিয়ান আইডল’।

শুরু হওয়ার পর থেকেই টেলিভিশন রেটিং পয়েন্ট (টিআরপি)-এর তালিকায় প্রথম পাঁচের মধ্যেই ছিল এই শো-টি।

তবে ‘ইন্ডিয়ান আইডল-১২’ সিজন প্রচার শুরু হওয়ার পর থেকেই টিআরপি কমছে এই শো-টির।

চলতি সপ্তাহে টিআরপি তালিকা সামনে আসতেই বেশ বড়সড় ধাক্কা খেল শো সংশ্লিষ্টরা। দেখা গেল প্রথম পাঁচে নাম নেই ‘ইন্ডিয়ান আইডল’র।

বেশ কিছুদিন ধরেই ‘ইন্ডিয়ান আইডল’ নিয়ে নানা বিতর্ক চলছে।

এই আয়োজনের একটি পর্বে অতিথি বিচারক হিসেবে এসেছিলেন কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী কিশোর কুমারের ছেলে অমিত কুমারকে।

এরপর তিনি এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছিলেন, শোতে টাকার বিনিময়ে প্রতিযোগিদের প্রশংসা করা।

এরপর ইন্ডিয়ান আইডল নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করেন রিয়্যালিটি শোর একসময়ের বিচারক ও জনপ্রিয় গায়িকা সুনিধি চৌহান।

তিনি বলেছিলেন, ‘যেমনই হোক না কেন, প্রতিযোগীদের প্রশংসা করতে হতো। সেটা বলে দেয়া হতো।’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বারবার আলোচনা উঠেছে বেশ কিছু প্রতিযোগীর গান একেবারেই মনে ধরছে না।

এমনকী শানমুখা প্রিয়া নামের একজন প্রতিযোগীর গাওয়া গান তাদের কাছে চেঁচানো মনে হচ্ছে। তাকে শো থেকে এদের বাদ দেয়ার দাবিও তুলেছেন দর্শকরা।

জনপ্রিয়তা কমছে ‘ইন্ডিয়ান আইডল’র
ইন্ডিয়াল আইডলের মঞ্চে প্রতিযোগীদের সঙ্গে কিশোর কুমারের ছেলে অমিত কুমার। ছবি: সংগৃহীত

শুধু তাই নয় এই রিয়্যালিটি শো’র তিন বিচারক হিমেশ রেশামিয়া, অনু মালিক ও নেহা কক্করেরও ব্যাপক সমালোচনা করছেন দর্শকরা।

‘ইন্ডিয়ান আইডল-১২’ এই সিজন যে সেভাবে দর্শকদের মন জয় করতে পারছে না তা প্রমাণ করল চলতি সপ্তাহের টিআরপি তালিকা।

বরং অন্যদিকে আরেক রিয়্যালিটি শো ‘সুপার ডান্সার চ্যাপ্টার-৪’ ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। অনেকেই মনে করছেন ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-কে টেক্কা দিবে এই শো’টি।

এই ডান্স রিয়্যালিটি শো-তে বিচারকের আসনে রয়েছেন কোরিওগ্রাফার গীতা কাপুর, বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেট্টি ও পরিচালক অনুরাগ বসু।

শেয়ার করুন

ইত্যাদির ‘নানা-নাতি’র নাতি বেঁচে আছেন

ইত্যাদির ‘নানা-নাতি’র নাতি বেঁচে আছেন

শওকত আলী তালুকদার নিপু ও তার অভিনীত দৃশ্যের ছবি। ছবি: সংগৃহীত

বিষয়টি নিয়ে নিপু ফেসবুকে ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘আমি আপনাদের প্রিয় নাতি। গতকাল কোনও একটি অনলাইন সংবাদপত্রে খবর প্রকাশ পেয়েছে, বাংলাদেশ চলচ্চিত্রের এক নাতি মারা গেছেন। তবে আমি ইত্যাদির নাতি, আপনাদের প্রিয় নাতি এখনও জীবিত আছি।’

শুক্রবার মধ্যরাত থেকে ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপে খবর আসতে থাকে, জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদির ‘নানা-নাতি’র নাতি শওকত আলী তালুকদার নিপু মারা গেছেন। খবরটি গুজব।

নিউজবাংলাকে শনিবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেন ফাগুন অডিও ভিশনের মিডিয়া কো-অর্ডিনেটর কিবরীয়া মিঠু। ইত্যাদি অনুষ্ঠানটি নির্মিত হয় ফাগুন অডিও ভিশন প্রোডাকশন হাউস থেকে।

নিউজবাংলাকে মিঠু বলেন, ‘নিপু ভাই ভালো আছেন, সুস্থ আছেন। অনেকটা তার মতো দেখতে একজনকে শওকত আলী তালুকদার নিপু বলে প্রচার করা হচ্ছে।’

মিঠু আরও বলেন, ‘নিপু ভাই কিন্তু কোনো ইউটিউব কনটেন্টে কাজ করেন না। ইত্যাদির মতো প্ল্যাটফর্মে কাজ করার পর তিনি আর অন্য কোনো জায়গায় কাজ করতে চাননি।’

বিষয়টি নিয়ে নিপু ফেসবুকে ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘আমি আপনারদের প্রিয় নাতি। আমার ছোট ভাই পলাশের ফেসবুক আইডি থেকে ভিডিওটি পোস্ট করছি। গতকাল কোনও একটি অনলাইন সংবাদপত্রে খবর প্রকাশ পেয়েছে, বাংলাদেশ চলচ্চিত্রের এক নাতি মারা গেছেন। তবে আমি ইত্যাদির নাতি, আপনাদের প্রিয় নাতি এখনও জীবিত আছি। সবাই দোয়া করবেন, যেন দীর্ঘদিন আপনাদের মাঝে থাকতে পারি।’

নাতি খ্যাত শওকত আলী তালুকদার নিপু টানা ২৮ বছর ধরে ইত্যাদিতে অভিনয় করে আসছেন।

ফেসবুক পোস্টে বলা হয়েছে, ‘নানা-নাতি’র নাতি মোস্তাফিজুর রহমান মারা গেছেন। মূলত যে মোস্তাফিজুর মারা গেছেন তিনি ইত্যাদির নাতি নন।

মোস্তাফিজুর কৌতুক অভিনেতা। হিরো আলাম, হারুন কিসিঞ্জার, চিকন আলীদের সঙ্গে বিভিন্ন ইউটিউব কনটেন্টে তাকে দেখা গেছে।

শ্বাসকষ্টে ভুগে তার মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে তার সহশিল্পী চিকন আলী।

শেয়ার করুন

মেহেদি রাঙা হাতে মাহির ‘আলহামদুলিল্লাহ’

মেহেদি রাঙা হাতে মাহির ‘আলহামদুলিল্লাহ’

মাহিয়া মাহি ও তার মেহেদি রাঙা হাতে পোস্ট করা ছবি। ছবি: সংগৃহীত

ছবিটি পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘আমি তোমাকে গানে, সিনেমায় এমনকি সব জায়গায় অনুভব করি, আলহামদুলিল্লাহ।’ এমন একটি ছবি ও ক্যাপশনে নতুন কিছুর ইঙ্গিত খুঁজছেন এই নায়িকার ভক্তরা।

মেহেদি রাঙা হাত, পরনে লাল কাতান শাড়িতে বললেন ‘আলহামদুলিল্লাহ’। বিষয়গুলো একসঙ্গে করে চোখ বন্ধ করুন। কী মনে পরে? একটা বিয়ে বিয়ে আবহ কি ভেসে আসে কল্পনায়?

যদি উত্তর হয় হ্যাঁ, তাহলে কল্পনার সেই পরিবেশটি তৈরি করেছেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। তবে পরিবেশটা কল্পনার, না বাস্তবের তার প্রমাণ পাওয়া যায়নি এখনও। অবশ্য ঘটনাটি সঠিক হওয়ার ইঙ্গিত রেখে গেছেন মাহি।

বিয়ের জন্য এ দেশের বেশির ভাগ মানুষ যে শুক্রবারকে বেছে নেন, এ কথা নিশ্চয়ই সবাই স্বীকার করবেন। আর শুক্রবার রাতেই বিয়ের আবহমাখা একটি ছবি পোস্ট করেন মাহি।

ছবিতে তাকে মেহেদি রাঙা হাতে মোবাইল ফোন ধরে রাখতে দেখা যাচ্ছে। আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে লাল কাতান শাড়ি পরে নিজেই নিজের ছবিটি তোলেন তিনি।

নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ছবিটি পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘আমি তোমাকে গানে, সিনেমায় এমনকি সব জায়গায় অনুভব করি, আলহামদুলিল্লাহ।’

এমন ছবি ও ক্যাপশনে নতুন কিছুর ইঙ্গিত খুঁজে ফিরছেন মাহি-ভক্তরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যারা এই নায়িকাকে ফলো করেন তারা, আর যারা ফলো করেন না তারাও কষছেন নতুন হিসাব। মাহি কি আবার বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন?

মেহেদি রাঙা হাতে মাহির ‘আলহামদুলিল্লাহ’
ফেসবুকে পোস্ট করা মাহির ছবি

এর আগে ৭ জুন রাতে মাহি একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন। যেখানে তিনি নায়িকা নুসরাত ফারিয়াকে ভিডিওটি ট্যাগ করে লিখেছিলেন, ‘নুসরাত ফারিয়া, কালকে নাচব এই গানে।’ অর্থাৎ তিনি ৮ জুন নুসরাত ফারিয়ার গাওয়া ‘আমি চাই থাকতে’ গানটিতে নাচতে চেয়েছিলেন।

যদিও নিউজবাংলাকে মাহি বলেছিলেন, সেটি ছিল তার ফান পোস্ট। তবে এখন ধারণা করা হচ্ছে, সেটি ছিল তার হলুদের রাতের প্রস্তুতি।

মেহেদি রাঙা হাতে মাহির ‘আলহামদুলিল্লাহ’
ফেসবুকের মাই ডে-তে মাহির পোস্ট করা ছবি ও তাতে লেখা আলহামদুলিল্লাহ। ছবি: সংগৃহীত

পুরো বিষয়টি জানতে নিউজবাংলার পক্ষ থেকে মাহির কাছে জানতে চাওয়া হয়, তার ‘আলহামদুলিল্লাহ’ বলার কারণ কী।

প্রশ্নের কোনো উত্তর দেননি মাহি।

গত ২২ মে গভীর রাতে বোমা ফাটানো তথ্য নিয়ে হাজির হন মাহি। জানান, স্বামী মাহমুদ পারভেজ অপুর সঙ্গে আর থাকছেন না তিনি।

নিউজবাংলাকে মাহি বলেছিলেন, ‘আমি আর অপু একসঙ্গে নেই। এত ভালো মানুষগুলোর সঙ্গে আমি কোপ আপ করতে পারি নাই। এটা আমার ব্যর্থতা। আমরা আর একসঙ্গে নাই। আমার মনে হয় না, অপুর মতো বা এই ফ্যামিলির মতো ভালো মানুষ আমি আর পাব। একা থাকাই ভালো।’

পরদিন মাহমুদ পারভেজ অপুও সংবাদমাধ্যমে জানান তাদের বিচ্ছেদের কথা।

শেয়ার করুন

নুসরাতকে ট্রোল করিনি, অসততা সামনে এনেছি: শ্রীলেখা

নুসরাতকে ট্রোল করিনি, অসততা সামনে এনেছি: শ্রীলেখা

টালিউড অভিনেত্রী নুসরাত জাহান ও শ্রীলেখা মিত্র (ডানে)। ছবি: সংগৃহীত

শ্রীলেখা লেখেন, ‘বিজেপিতে আমি এতদিন যোগদান করিনি। বিজেপির সাথে লিভ-ইন এ ছিলাম। তাই বিজেপি ছাড়ার কোনো প্রশ্ন ওঠে না। ইতি মুকুল রায়।’ স্ট্যাটাসটি শেষে তিনি উল্লেখ করেন এটি সংগৃহীত।  

বেশ কয়েক দিন ধরেই ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সংবাদমাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যাপকভাবে আলোচিত নাম টালিউড অভিনেত্রী ও সাংসদ নুসরাত জাহান।

স্বামী নিখিল জৈনের সঙ্গে সম্পর্ক নেই এমন সময় অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার খবর যেন চর্চার কেন্দ্রবিন্দুতে নিয়ে আসে এই অভিনেত্রীকে।

নিখিল জৈনের সঙ্গে আইনি বিচ্ছেদ না হলেও দীর্ঘদিন একসঙ্গে থাকছেন না তারা।

অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার খবরের মাঝেই স্বামী নিখিল জৈনের সঙ্গে বিয়ে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করেন এই অভিনেত্রী।

সম্প্রতি এক বিবৃতিতে নুসরাত বলেন, ‘বিয়ে নয়, নিখিলের সঙ্গে লিভ-ইন সম্পর্কে ছিলাম।’

এসব নিয়ে ভারতীর সংবাদমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে জোর চর্চা।

এরই মধ্যে নুসরাতের এই বিবৃতিকে বলিউড অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র ট্রোল করেছেন বলে মনে করছেন নেটিজেনরা।

নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে শুক্রবার একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন শ্রীলেখা।

যেখানে তিনি লেখেন, ‘বিজেপিতে আমি এতদিন যোগদান করিনি। বিজেপির সাথে লিভ-ইন এ ছিলাম। তাই বিজেপি ছাড়ার কোনো প্রশ্ন ওঠে না। ইতি মুকুল রায়।’ স্ট্যাটাসটি শেষে তিনি উল্লেখ করেন এটি সংগৃহীত।

শুক্রবার বিজেপি ছেড়ে আবার তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন একসময়ে তৃণমূল নেতা মুকুল রায়। সেটি নিয়েই পোস্ট দিলেও অনেকে মনে করছেন নুসরাতকেও ট্রোল করতে ছাড়েননি শ্রীলেখা।

তবে নুসরাতকে ট্রোল করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন শ্রীলেখা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার ডিজিটালের ‘ট্রোলিং এবং অন্যান্য’ নামের একটি লাইভ অনুষ্ঠানে এসে সেই প্রশ্নের জবাবও দিলেন তিনি।

শ্রীলেখা কথায়, আমি মনে করি, একজন জনপ্রতিনিধি যদি অসততার আশ্রয় নেন তাহলে সেটা উচিত নয়। সেই প্রসঙ্গে আমার পোস্ট। নুসরাতের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে আমি ভাবিত নই।

একই সঙ্গে শ্রীলেখা মতে, যদি সব গুজব সত্যি হয়, তবে বিয়ে ছেড়ে বেরিয়ে এসে অন্য একজন মানুষকে ভালবেসে, তার সন্তানকে গর্ভে ধারণ করার ঘটনা প্রশংসনীয়।

নুসরাতকে ট্রোল করিনি, অসততা সামনে এনেছি: শ্রীলেখা
টালিউড অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। ছবি: ইনস্টাগ্রাম

শ্রীলেখা বলেন, ‘নুসরাত এবং আমার জগৎ ভীষণ আলাদা। কখনওই তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কোনো মন্তব্য আমি করব না। এটা আমার স্বভাব নয়। তাই এটা ট্রোলিং নয়। অসততার বিরুদ্ধে মুখ খোলা।’

তবে শুক্রবার নুসরাতের মা হওয়ার গুঞ্জন সত্যতা পেলো তার বেবি বাম্পের ছবি প্রকাশ্যে আসার পর।

শেয়ার করুন

বধূবেশে কটাক্ষের শিকার শ্রাবন্তী

বধূবেশে কটাক্ষের শিকার শ্রাবন্তী

টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। ছবি: ফেসবুক

নিজের ফেসবুক পেজ ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে নববধূর সাজে একটি ছবি পোস্ট করেন শ্রাবন্তী। সেই ছবিতে দেখা যায়, লাল শাড়িতে আলতা মাখা হাতে শাঁখা, বড় নাকফুল আর সেই সঙ্গে সিঁথিতে সিঁদুর ও মাথায় মুকুট পড়েছেন অভিনেত্রী।

টালিউডের অভিনেত্রীদের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সবচেয়ে বেশি চর্চিত নামের একটি শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়।

শ্রাবন্তীর অভিনয়ের চেয়ে বেশি আলোচনা ও সমালোচনা লেগেই থাকে তার বিয়ে ও বিচ্ছেদ নিয়ে।

এবার সেই উনুনে আর একটু হাওয়া দিলেন অভিনেত্রী নিজেই।

নিজের ফেসবুক পেজ ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে নববধূর সাজে একটি ছবি পোস্ট করেন শ্রাবন্তী।

সেই ছবিতে দেখা যায় লাল শাড়িতে আলতা মাখা হাতে শাঁখা, বড় নাকফুল আর সেই সঙ্গে সিঁথিতে সিঁদুর ও মাথায় মুকুট পড়েছেন অভিনেত্রী।

তা দেখেই নেটিজনদের একাংশের জল্পনা ‘চতুর্থবার’ বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন কিনা অভিনেত্রী।

ছবিটির মন্তব্যের ঘরে নানা রকম কটাক্ষ করেছেন অনেকেই।

একজন মন্তব্য করেছেন, ‘দিদি আপনি চতুর্থ বিয়েটা করে নিন, অনেকদিন হয়ে গেল কোনো বিয়ে খাইনা, আমার খুব ইচ্ছা আপনার বিয়েতে চকলেট কালারের একটা পাঞ্জাবি পরব।’

বধূবেশে কটাক্ষের শিকার শ্রাবন্তী
টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। ছবি: সংগৃহীত

আরেক মন্তব্যে এক নারী লিখেছেন, ‘আবারো বিয়ের ফিরিতে (পিঁড়ি) বসলা তুমি! এগুলা কি মানা যায়, সব ছেলেকে একাই নিয়া যাবা। এমনি ছেলের অভাব।’

এছাড়া অভিনেত্রীর বয়সসহ নানারকম কটাক্ষ করেছেন অনেকে।

বধূবেশে কটাক্ষের শিকার শ্রাবন্তী
টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। ছবি: ফেসবুক

যদিও এই ছবিটির ক্যাপশনে শ্রাবন্তী স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন একটি ব্রাইডাল ফটোশুটের জন্য সেজেছেন তিনি। কিন্তু তাতেও কটাক্ষ করতে ছাড়ছেন না অনেকেই।

গত বছর নভেম্বরে স্বামী রোশন সিংয়ের সঙ্গে ভেঙেছে তার তৃতীয় সংসার।

তবে পুরোনো সব তিক্ততা ভুলে নতুন করে শ্রাবন্তীর সঙ্গে সংসার পাততে আদালতের দারস্থ হয়েছেন রোশান সিং।

বধূবেশে কটাক্ষের শিকার শ্রাবন্তী
টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। ছবি: ফেসবুক

বিচ্ছেদের দীর্ঘদিন পর গত সোমবার ‘রেস্টিটিউশন অব কনজুগাল রাইটস’ ধারায় আদালতে মামলা করেছেন রোশান।

অন্যদিকে শ্রাবন্তী রয়েছেন নিজের মতো খোশমেজাজে আবার কখনো আনমনে। সেসব চিত্র দেখা যায় অভিনেত্রীর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

শেয়ার করুন

‘কাঙ্ক্ষিত নারী’ রিয়া হচ্ছেন দ্রৌপদী

‘কাঙ্ক্ষিত নারী’ রিয়া হচ্ছেন দ্রৌপদী

বলিউড অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী। ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় একাধিক সংবাদমাধ্যম বলছে, এই সিনেমায় আধুনিক ‘দ্রৌপদী’ রূপে দেখা যাবে রিয়া চক্রবর্তীকে। যদিও রিয়ার সঙ্গে কথাবার্তা এখনও নাকি প্রাথমিক স্তরেই রয়েছে।

বলিউড তারকা সুশান্ত সিং রাজপুতের রহস্যজনক মৃত্যু ঘটনার মামলায় নাম জড়িয়ে ক্যারিয়ার থেকে ছিটকে পড়েছিলেন রিয়া চক্রবর্তী।

কিন্তু সম্প্রতি ভারতের জাতীয় দৈনিক টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক জরিপে এই অভিনেত্রীর নামই এসেছে সবচেয়ে ‘কাঙ্ক্ষিত নারী’র তালিকার শীর্ষে।

এবার শোনা যাচ্ছে মহাভারত অবলম্বনে নির্মিত হতে যাচ্ছে এক এক্সপেরিমেন্টাল সিনেমা, যার নামও মহাভারত।

ভারতীয় একাধিক সংবাদমাধ্যম বলছে, এই সিনেমায় আধুনিক ‘দ্রৌপদী’ রূপে দেখা যাবে রিয়া চক্রবর্তীকে।

যদিও রিয়ার সঙ্গে কথাবার্তা এখনও নাকি প্রাথমিক স্তরেই রয়েছে।

সুশান্তের মৃত্যু মামলায় জড়ানোর আগে রিয়ার শেষ কাজ ছিল অমিতাভ বচ্চন ও ইমরান হাশমি অভিনীত ক্রাইম থ্রিলার ‘চেহেরে’তে।

সেই সিনেমার পোস্টারে রিয়ার ছবিও ব্যবহার করেননি নির্মাতারা। এমনকি ট্রেলারেও মাত্র এক ঝলক দেখা যায় রিয়াকে।

যদিও সব কাজ শেষ তবুও সিনেমাটি এখনও আলোর মুখ দেখেনি।

‘কাঙ্ক্ষিত নারী’ রিয়া হচ্ছেন দ্রৌপদী
বলিউড অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী। ছবি: সংগৃহীত

মাদক কারবার ও সুশান্তকে মাদক সরবরাহ করার অভিযোগে গত বছর ৮ সেপ্টেম্বর রিয়াকে গ্রেপ্তার করে মুম্বাই পুলিশ।

এক মাস জেলে থাকার পর শর্তসাপেক্ষে জামিন পান এই অভিনেত্রী।

শেয়ার করুন

মোশাররফ কবে আসছেন হইচইতে, জানা যাবে ১৯ জুন

মোশাররফ কবে আসছেন হইচইতে, জানা যাবে ১৯ জুন

পুলিশের চরিত্রে মোশাররফ করিম। ছবি: সংগৃহীত

টিজার দেখে ধারণা করা হচ্ছে মহানগর একটি ক্রাইম থ্রিলার সিরজি হবে। এতে পুলিশের চরিত্রে দেখা যাবে মোশারফ করিমকে। চরিত্রটির নাম হারুন। তার মুখে শোনা যায়, ‘ক্রিমিনাল আর টাকা, যদি থাকে নসিবে আপনি আপনি আসিবে।’

দেশের জনপ্রিয় অভিনেতা মোশাররফ করিম প্রথমবারের মতো কাজ করেছেন ওয়েব প্ল্যাটফর্ম হইচইয়ের জন্য। ওয়েবে সিরিজটির নাম মহানগর। এটি পরিচালনা করেছেন আশফাক নিপুন। আট পর্বের ওয়েব সিরিজ এটি।

শক্রবার সন্ধ্যায় প্রকাশ পেয়েছে মহানগর এর টিজার। মোশাররফ ছাড়াও অভিনয় করেছেন শ্যামল মাওলা, মম, খায়রুল বাশার, লুৎফর রহমান জর্জসহ অনেকে।

ওয়েব সিরিজটির ট্রেলার ১৯ জুন প্রকাশ হবে বলে নিউজবাংলাকে জানিয়েছেন হইচই বাংলাদেশের প্রধান শাকিব আর খান। তিনি বলেন, ‘ট্রেলার প্রকাশের দিন অর্থাৎ ১৯ জুন জানা যাবে ওয়েব সিরিজটির মুক্তির তারিখ।’

টিজার দেখে ধারণা করা হচ্ছে মহানগর একটি ক্রাইম থ্রিলার সিরজি হবে। এতে পুলিশের চরিত্রে দেখা যাবে মোশারফ করিমকে। চরিত্রটির নাম হারুন।

পুলিশ কর্মকর্তা হারুনের মুখে একটি সংলাপ শোনা যায় টিজারে। সেটি হলো, ‘ক্রিমিনাল আর টাকা, যদি থাকে নসিবে আপনি আপনি আসিবে।’

চলতি বছর মার্চে একটি ভিডিওর মাধ্যমে অনেকগুলো কনটেন্ট আসছে বলে ঘোষণা দেয় হইচই। সেখানে এক ঝলক দেখা গিয়েছিল মোশাররফ করিম ও শ্যামল মাওলাকে।

শেয়ার করুন