× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট

শিক্ষা
When is the admission test in any university?
hear-news
player
print-icon

কবে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা

কবে-কোন-বিশ্ববিদ্যালয়ে-ভর্তি-পরীক্ষা
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হলে ভর্তি পরীক্ষার একটি কেন্দ্র। ফাইল ছবি
গত ১৪ ফেব্রুয়ারি এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। করোনার মধ্যে সীমিতসংখ্যক বিষয়ে নেয়া পরীক্ষায় এবার পাসের হারে হয়েছে রেকর্ড। ৯৫ শতাংশের বেশি পাসের হারের কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য এবার চাপ থাকবে বেশি।

উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে উচ্চশিক্ষার জন্য লাখো তরুণ-তরুণীর প্রস্তুতির মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো একে একে ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করছে।

কোনো কোনো বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষার পূর্ণাঙ্গ সূচি ঘোষণা করেছে। কোনো কোনোটি প্রাথমিক একটি ধারণা দিয়ে পূর্ণাঙ্গ সূচি তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে।

এরই মধ্যে সেনাবাহিনী পরিচালিত ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালস ভর্তি পরীক্ষা শেষ করেছে। তবে এখনও ফল প্রকাশ হয়নি। দেশের প্রধান প্রধান বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে এখনও কমপক্ষে এক মাস সময় রয়েছে প্রস্তুতির জন্য।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। করোনার মধ্যে সীমিতসংখ্যক বিষয়ে নেয়া পরীক্ষায় এবার পাসের হারে হয়েছে রেকর্ড। ৯৫ শতাংশের বেশি পাসের হারের কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য এবার চাপ থাকবে বেশি।

এই মুহূর্তে দেশে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা ৫২টি। এর বাইরে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজেও ভর্তির সুযোগ আছে।

দেশে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন দেয়া হয়েছে ১০৮টি। এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের সবগুলোতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো ভর্তি পরীক্ষা অবশ্য হয় না। আর এই প্রতিষ্ঠানগুলোতে বছরে দুটি সেমিস্টারেই ভর্তির সুযোগ থাকে।

২০২০ সালে করোনার প্রাদুর্ভাবের পর যেসব বিধিনিষেধ দেয়া হয়েছিল, তার মধ্যে এখন দৃশ্যত আর কিছুই নেই। ফলে এবার ভর্তি পরীক্ষা হচ্ছে পুরোপুরি স্বাভাবিক পরিবেশে।

কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বতন্ত্র পরীক্ষা ছাড়াও এবারও দেশের ২০টি গুচ্ছভুক্ত সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

দেশের সবচেয়ে প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরু হবে ৩ জুন। ওই দিন বাণিজ্য অনুষদ তথা ‘গ’ ইউনিটের পরীক্ষা হবে।

পরের দিন হবে কলা অনুষদ তথা ‘খ’ ইউনিটের পরীক্ষা। ১০ জুন হবে বিজ্ঞান অনুষদ বা ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা।

সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ বা ‘ঘ’ ইউনিুটের ভর্তি পরীক্ষা হবে ১১ জুন। চারুকলা অনুষদের লিখিত (অঙ্কন) পরীক্ষা হবে ১৭ জুন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান নিউজবাংলাকে বলেন, ‘স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা যথাসময়ে হবে। এ জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যাবতীয় প্রস্তুতি শেষ করেছে।’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

রাজধানী লাগোয়া সাভারের এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক সূচি প্রকাশ করলেও কোন অনুষদে কবে পরীক্ষা হবে, সেই বিষয়টি জানানো হয়নি এখনও। প্রাথমিকভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছে ৩১ জুলাই থেকে শুরু হওয়া পরীক্ষা চলবে ১১ আগস্ট পর্যন্ত।

এই বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির ক্ষেত্রে ছাত্র বাছাইয়ে লিখিত পরীক্ষা নেয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নুরুল আলম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘খুব শিগগিরই ভর্তি পরীক্ষার বিস্তারিত সূচি প্রকাশ করা হবে।’

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

বিজ্ঞান অনুষদের ভর্তি পরীক্ষার মধ্য দিয়ে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৬ আগস্ট থেকে ভর্তি পরীক্ষা শুরু হবে। কয়েক শিফটে ভর্তি পরীক্ষা চলবে ২৪ আগস্ট পর্যন্ত।

বিজ্ঞান অনুষদ তথা ‘এ’ ইউনিটের পরীক্ষা ১৬ ও ১৭ আগস্ট। বাণিজ্য অনুষদ বা ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষার ১৯ আগস্ট।

এর বাইরে কলা অনুষদ তথা ‘বি’ ইউনিটের পরীক্ষা ২০ ও ২১ আগস্ট, সমাজবিজ্ঞন অনুষদ বা ‘ডি’ ইউনিটের পরীক্ষা ২২ ও ২৩ আগস্ট হবে।

‘বি ১’ উপইউনিটের পরীক্ষা ২৪ আগস্ট সকাল পৌনে ১০টা এবং ‘ডি ১’ উপইউনিটের পরীক্ষা ২৪ আগস্ট দুপুর পৌনে ২টায় শুরু হবে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আগের নিয়মেই এবারের ভর্তি পরীক্ষা হবে বলে জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম মনিরুল হাসান।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

উত্তরের জনপদের সবচেয়ে প্রাচীন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা শুরু হবে ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষা দিয়ে।

বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তির জন্য ছাত্র বাছাইয়ে এই পরীক্ষা হবে ২৫ জুলাই। কলা, আইন, সামাজিক বিজ্ঞান, চারুকলা, শিক্ষা ও গবেষণার ‘এ’ ইউনিটের পরীক্ষা হবে ২৬ জুলাই। বাণিজ্যের ‘বি’ ইউনিটে পরীক্ষা হবে আগামী ২৭ জুলাই।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)

দেশে প্রকৌশল শিক্ষায় সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) এবার পরীক্ষা হবে দুই ভাগে। ৪ জুন হবে শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা (প্রিলিমিনারি পরীক্ষা)। চূড়ান্ত লিখিত পরীক্ষা হবে ১৮ জুন।

১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হবে এমসিকিউ পদ্ধতিতে। এতে থাকবে না পাস নম্বর। পরীক্ষায় সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া ছয় হাজার শিক্ষার্থী চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নেয়ার সুযোগ পাবেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন বুয়েটের ছাত্রকল্যাণ উপদেষ্টা অধ্যাপক মিজানুর রহমান। তিনি বলেন, ‘অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের বৈঠকে এই তারিখ চূড়ান্ত করা হয়েছে।’

গুচ্ছভুক্ত ২০ বিশ্ববিদ্যালয়

এককভাবে পরীক্ষা না নিয়ে ২০টি বিশ্ববিদ্যালয় একসঙ্গে পরীক্ষা নিয়ে মেধাক্রমের ভিত্তিতে ছাত্র বাছাই করবে এবারও। একে বলা হচ্ছে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা।

এই পদ্ধতিতে সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ৩ সেপ্টেম্বর। ১০ সেপ্টেম্বর মানবিক অনুষদ আর সবশেষ ১৭ সেপ্টম্বর হবে বাণিজ্য অনুষদের ভর্তি পরীক্ষা।

গুচ্ছভুক্ত ২০টি উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলো শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়।

এ ছাড়া রয়েছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

গুচ্ছে তিন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়

গুচ্ছ পদ্ধতিতে একটি মাত্র ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে ছাত্র বাছাই করবে দেশের তিনটি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ও। এই তিন বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা নেবে আগামী ৬ আগস্ট।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট), খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) এবং রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট)।

সাত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

দেশের সাত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষার তারিখ এখনও নির্ধারণ হয়নি, তবে খুব শিগগিরই নির্ধারণ করা হবে বলে জানিয়েছেন শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শহিদুর রশিদ ভূঁইয়া।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

এর বাইরে বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঠিক করা হয়েছে আগামী ১২ আগস্ট।

আরও পড়ুন:
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের ভর্তি আবেদন শুরু
কৃষ্ণচূড়ায় লাল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়
ঢাবিতে ভর্তি পরীক্ষা দেবেন ৫৫ বছরের বেলায়েত
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের ভর্তির আবেদন শুরু ২২ মে
ঢাবি ছাত্রের বিরুদ্ধে উত্ত্যক্ত-যৌন হয়রানির অভিযোগ

মন্তব্য

আরও পড়ুন

শিক্ষা
SSC has not decided when

এসএসসি কবে, সিদ্ধান্ত হয়নি

এসএসসি কবে,  সিদ্ধান্ত হয়নি সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। ছবি: নিউজবাংলা
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘বন্যায় আমাদের অনেক শিক্ষার্থীর বইপত্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাদের নতুন বই দিতে হবে। আমরা অ্যাসেস করছি। প্রয়োজনে নতুন বই ছাপিয়ে তাদের হাতে তুলে দিতে হবে।

এ বছরের এসএসসি বা মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা কবে হবে, সে বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বুধবার দুপুরে তিনি এ কথা জানান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমরা খোঁজ রাখছি নিয়মিত। এখনও কিছু কিছু এলাকায়… শহর থেকে পানি নেমে গেছে। গ্রাম পর্যায়ে এখনও কোথাও কোথাও হয়তো আছে, সেটাও নেমে যাবে। কিন্তু ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কিছু জায়গায়। আমাদের অনেক পরীক্ষার্থী… আমাদের কাছে তথ্যও আসছে.. বইপত্র ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

‘আমরা এখন পুরো অ্যাসেস করছি যে, আমাদের কতপরীক্ষার্থীকে নতুন করে বই দিতে হবে। আমরা দেখছি হিসেব করছি, যদি প্রয়োজন হয় তাহলে বইও ছাপিয়ে ফেলব। তারপর আমরা আমাদের পরীক্ষার্থীদের হাতে বইগুলো পৌঁছে দেব, যাদের বইগুলো নষ্ট হয়েছে। আমরা তথ্যগুলো নিচ্ছি। তাদের হাতে বইগুলো দিয়ে অন্তত ২ সপ্তাহ তাদের সময় দিতে হবে। এটা আমাদের টাইমলাইন। কিন্তু এটা কোথায় গিয়ে ঠেকবে এটা এই মুহূর্তে বলা সম্ভব না।’

এখনই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ নয়

করোনা সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী হলেও আপাতত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের কোনো সিদ্ধান্ত নেই বলে জানান মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্য বিভাগের সঙ্গে কথা বলে যখন শিশুদের ভ্যাকসিনের বিষয়টি নিশ্চিত হতে পারব, তারপর আমরা পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে আমরা চিন্তা করতে পারব। এটা ঠিক যে সংক্রমণ বাড়ছে। আমাদের সচেতন হতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখব কি না… আমাদের তো ১২ বছরের ওপর সবার টিকা দেয়া আছে।

‘১২ বছরের নিচের টিকাটা যদি আমরা দেয়ার ব্যবস্থা করে ফেলতে পারি তাহলে হয়তো সেটার আর প্রয়োজন হবে না। যেহতু আমরা চাই যতোটা সম্ভব স্কুল খোলা রেখেই আমরা আমাদের সমস্যা সমাধানের দিকে যাবো। কাজেই এই মুহূর্তে স্কুল বন্ধের কথা আমরা ভাবছি না বরং অনেক বেশি সচেতন থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা কার্যক্রমটাকে চালিয়ে নেবার কথা ভাবছি। তবে সবকিছু নির্ভর করবে পরিস্থিতির উপর। আমার শিক্ষার্থী, তার পরিবার ও শিক্ষকের জীবনটাই আমাদের কাছে জরুরি।’

আরও পড়ুন:
এসএসসি পিছিয়ে আগস্টে
এসএসসি পরীক্ষা হবে কবে
পিছিয়ে যাচ্ছে এইচএসসি পরীক্ষাও

মন্তব্য

শিক্ষা
Proxy arrest in teacher recruitment test 3

শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি, গ্রেপ্তার ৩

শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি, গ্রেপ্তার ৩ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে গ্রেপ্তার বেলাল উদ্দীন। ছবি: নিউজবাংলা
জেলা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বোর্ড জানায়, মঙ্গলবার সকাল থেকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে প্রাথমিক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষা নেয়া হয়। সে সময় পরীক্ষার খাতার লেখার সঙ্গে দুজনের হাতের লেখার মিল পাওয়া যায় না। এরপর তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে লিখিত পরীক্ষায় ১৮ লাখ টাকায় প্রক্সি দেয়ানোর কথা স্বীকার করেন।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে পঞ্চগড়ে দুই পরীক্ষার্থীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে মৌখিক পরীক্ষা দেয়ার পর মঙ্গলবার রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

ওই তিনজন হলেন গণ-উন্নয়ন সমবায় সমিতির পরিচালক ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বেলাল উদ্দীন, পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার বড়দাপ এলাকার মোকসেদুর রহমান এবং ছোটদাপ এলাকার আহসান হাবিব।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম ১৯৮০ সালের পাবলিক পরীক্ষা (অপরাধ) আইনে তাদের নামে সদর থানায় এই মামলা করেন।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বোর্ড জানায়, মঙ্গলবার সকাল থেকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে প্রাথমিক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষা নেয়া হয়। সে সময় পরীক্ষার খাতার লেখার সঙ্গে তাদের হাতের লেখার মিল পাওয়া যায় না।

এরপর তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে লিখিত পরীক্ষায় ১৮ লাখ টাকায় প্রক্সি দেয়ানোর কথা স্বীকার করেন। এই কাজের হোতা বেলাল ছিলেন বলে জানান।

বোর্ডের সভাপতি ও জেলা প্রশাসক জহুরুল ইসলাম বলেন, ‘তারা জালিয়াতির কথা স্বীকার করলে দুজনকেই আটক করা হয়। সবার পরীক্ষা শেষে কৌশলে বেলালকে ডেকে এনে তিনজনকেই পুলিশে দেয়া হয়।’

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ মিয়া জানান, জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে তিনজনকে পুলিশে দেয়ার পর তাদের নামে মামলা হয়। বুধবার তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।

পুলিশ জানায়, বেলালের নামে বিভিন্ন থানায় চেক ডিজ-অনার মামলাসহ মিথ্যা ও ভুয়া মামলা দেয়ার অভিযোগ আছে।

আরও পড়ুন:
লালমনিরহাটে প্রাথমিকের পরীক্ষা নিয়ে ‘নাটকীয়তা’
প্রাথমিকে নিয়োগের ভুয়া প্রশ্নপত্র: আটক ১৩
প্রশ্ন ফাঁসের তথ্য গুজব: প্রতিমন্ত্রী
প্রাথমিকে নিয়োগ: দ্বিতীয় ধাপে যেসব জেলায় পরীক্ষা
সরকারি জমি ব্যাংকে বন্ধক, ১৫ কোটি টাকা আত্মসাৎ

মন্তব্য

শিক্ষা
The number of top 3 people in A unit of DU is equal

ঢাবির ‘ক’ ইউনিটে শীর্ষ ৩ জনের নম্বর সমান

ঢাবির ‘ক’ ইউনিটে শীর্ষ ৩ জনের নম্বর সমান ঢাবির ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার মেধাতালিকায় প্রথম হয়েছেন আসীর আনজুম খান, দ্বিতীয় খালিদ হাসান তুহিন আর তৃতীয় জারিফা তাবাসসুম। ফাইল ছবি
নম্বর সমান হওয়ায় ক্রম নির্ধারণ করার পদ্ধতি সম্পর্কে এই ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার সমন্বয়কারী ফার্মেসি অনুষদের ডিন অধ্যাপক সীতেশ চন্দ্র বাছার বলেন, ‘ভর্তি পরীক্ষায় আমরা তিনটি বিষয়ে নম্বর দেখেছি। পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও গণিতে কে নম্বর বেশি পেয়েছে। সেভাবেই তাদের মধ্য থেকে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় নির্ধারণ করা হয়েছে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় শীর্ষ তিনজনই সমান নম্বর পেয়েছেন।

১২০ নম্বরের পরীক্ষায় প্রত্যেকে পেয়েছেন ১১৫ নম্বর। প্রাপ্ত নম্বর সমান হওয়ায় পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও গণিতে যিনি বেশি নম্বর পেয়েছেন, ধারাবাহিকভাবে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকারী হিসেবে তার নাম ঘোষণা করা হয়েছে।

নম্বর সমান হওয়ায় ক্রম নির্ধারণ করার পদ্ধতি সম্পর্কে এই ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার সমন্বয়কারী ফার্মেসি অনুষদের ডিন অধ্যাপক সীতেশ চন্দ্র বাছার বলেন, ‘ভর্তি পরীক্ষায় আমরা তিনটি বিষয়ে নম্বর দেখেছি। পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও গণিতে কে নম্বর বেশি পেয়েছে। সেভাবেই তাদের মধ্যে থেকে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় নির্ধারণ করা হয়েছে।’

এই পদ্ধতিতে মেধাতালিকায় প্রথম হয়েছেন আসীর আনজুম খান, দ্বিতীয় খালিদ হাসান তুহিন আর তৃতীয় জারিফা তাবাসসুম।

আসীর আনজুম এবং খালিদ হাসান দুইজনই নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী আর জারিফা তাবাসসুম জয়পুরহাট গার্লস ক্যাডেট কলেজের শিক্ষার্থী।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত এই ইউনিটে প্রথম হওয়া আসীর আনজুম বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষায়ও প্রথম হয়েছেন।

এ ছাড়া তিনি মেডিক্যাল ভর্তি পরীক্ষায় ষষ্ঠ ও ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির ভর্তি পরীক্ষায় অষ্টম স্থান অধিকার করেন।

প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় হওয়া সবাই মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন। ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষায় তাদের সকলেরই স্কোর ৯৫ নম্বর।

আসীর আনজুম এমসিকিউ অংশে রসায়ন এবং গণিতে সম্পূর্ণ ১৫ নম্বরই পেয়েছেন।

আর পদার্থবিজ্ঞান এবং জীববিজ্ঞানে পেয়েছেন ১৩.৭৫ নম্বর।

এ ছাড়া লিখিত অংশে তিনি পদার্থবিজ্ঞান এবং গণিতে ১০ নম্বর, রসায়নে ৯ আর জীববিজ্ঞানে ৮.৫ নম্বর পেয়েছেন।

ফলে পদার্থবিজ্ঞানে তার সর্বমোট নম্বর ২৩.৭৫, রসায়নে ২৪, গণিতে ২৫ এবং জীববিজ্ঞানে ২২.২৫।

দ্বিতীয় হওয়া খালিদ হাসান নৈর্ব্যক্তিক অংশের রসায়ন এবং গণিতে সম্পূর্ণ ১৫ নম্বরই পেয়েছেন। পদার্থবিজ্ঞান এবং জীববিজ্ঞানে পেয়েছেন ১৩.৭৫ নম্বর।

এ ছাড়া লিখিত অংশে তিনি পদার্থবিজ্ঞানে ১০, রসায়নে ৯.৫, গণিত এবং জীববিজ্ঞানে ৯ নম্বর পেয়েছেন।

ফলে পদার্থবিজ্ঞানে তার সর্বমোট নম্বর ২৩.৭৫, রসায়নে ২৪.৫, গণিতে ২৪ এবং জীববিজ্ঞানে ২২.২৫।

তৃতীয় হওয়া জারিফা তাবাসসুম এমসিকিউ অংশে পদার্থ বিজ্ঞানে ১২, রসায়নে ১৫, গণিতে ১৪ এবং জীববিজ্ঞানে পেয়েছেন ১৩.৭৫ নম্বর।

এ ছাড়া লিখিত অংশে তিনি পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন এবং জীববিজ্ঞানে ১০ নম্বর আর গণিতে পেয়েছেন ৯.৫ নম্বর।

ফলে পদার্থ বিজ্ঞানে তার সর্বমোট নম্বর ২২.৭৫, রসায়নে ২৫, গণিতে ২৩.৫ এবং জীববিজ্ঞানে ২৩.৭৫।

এর আগে সোমবার দুপুরে ‘ক’ ইউনিটের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়।

পরীক্ষায় অংশ নেয়া ১ লাখ ১০ হাজার ৩৭৪ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছেন ১১ হাজার ৪৬৬ জন। পাসের হার ১০ দশমিক ৩৯।

অর্থাৎ ৮৯ দশমিক ৬১ (প্রায় ৯০ শতাংশ) শতাংশই ফেল করেছে।

‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় আবেদন করেন ১ লাখ ১৫ হাজার ৬৮৯ জন।

সর্বমোট ১ হাজার ৭৮১ জন পরীক্ষার্থী এবার এই ইউনিটের মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাবেন।

মন্তব্য

শিক্ষা
SSC back in August

এসএসসি পিছিয়ে আগস্টে

এসএসসি পিছিয়ে আগস্টে চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষা জুলাইয়েও হচ্ছে না। ফাইল ছবি
আন্তশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার বলেন, ‘সিলেট অঞ্চলের বর্তমান পরিস্থিতিতে সেখানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরীক্ষা আয়োজন সম্ভব নয়। তাই এখনই কোনো নির্দিষ্ট তারিখ আমরা বলতে চাই না, তবে ঈদের পর এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার নতুন রুটিন প্রকাশ করা হবে।’

দেশে বন্যা পরিস্থিতির খুব বেশি উন্নতি না হওয়ায় জুলাই মাসেও চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা আয়োজন সম্ভব হবে না।

এ ক্ষেত্রে পরীক্ষাটি আগস্টে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

আন্তশিক্ষা বোর্ডের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

নিউজবাংলাকে রোববার এ তথ্য জানান আন্তশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার।

তিনি বলেন, ‘সিলেট অঞ্চলের বর্তমান পরিস্থিতিতে সেখানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরীক্ষা আয়োজন সম্ভব নয়। তাই এখনই কোনো নির্দিষ্ট তারিখ আমরা বলতে চাই না, তবে ঈদের পর এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার নতুন রুটিন প্রকাশ করা হবে।’

কবে নাগাদ পরীক্ষাটি আয়োজন করা হতে পারে, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আজকের আন্তশিক্ষা বোর্ডের সভায় সারা দেশের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। সবাই আশা প্রকাশ করেছে চলতি মাসে বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। এ ক্ষেত্রে আমরা পরীক্ষাটি আগস্ট মাসে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান জানান, এসএসসি পেছানোর কারণে পিছিয়ে যাবে এইচএসসি পরীক্ষাও।

চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষা শুরুর কথা ছিল গত ১৯ জুন, কিন্তু দেশের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় স্থগিত করা হয় এ পরীক্ষা।

এবারের পরীক্ষার সময় ৩ ঘণ্টা থেকে কমিয়ে ২ ঘণ্টা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রশ্নপত্রের এমসিকিউ অংশের জন্য ২০ মিনিট এবং সৃজনশীল অংশের জন্য ১ ঘণ্টা ৪০ মিনিট নির্ধারিত থাকবে।

এ বছর ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ শিক্ষার্থীর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়ার কথা। এর মধ্যে ৯টি সাধারণ বোর্ডে ১৫ লাখ ৯৯ হাজার ৭১১ জন, দাখিলে ২ লাখ ৬৮ হাজার ৪৯৫ জন ও কারিগরিতে ১ লাখ ৬৩ হাজার ৬৬২ জন।

গত বছর পরীক্ষার্থী ছিল ২২ লাখ ৪৩ হাজার ২৫৪ জন। এ বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় গত বছরের চেয়ে প্রায় সোয়া দুই লাখ পরীক্ষার্থী কমেছে।

প্রতি বছর ফেব্রুয়ারি মাসে এসএসসি ও এপ্রিলে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হলেও এ বছর করোনার কারণে এ দুটি গুরুত্বপূর্ণ পাবলিক পরীক্ষা এখনও নেয়া সম্ভব হয়নি। গত বছর এসএসসি পরীক্ষা নেয়া গেলেও এইচএসসিতে শিক্ষার্থীদের অটোপাস দেয় সরকার।

করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে দ্বিতীয় দফায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সশরীরে ক্লাস বন্ধ করা হয় চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি। এ দফায় শিক্ষাঙ্গনে সশরীরে ক্লাস বন্ধ থাকে এক মাস।

২২ ফেব্রুয়ারি ষষ্ঠ থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত শিক্ষাঙ্গনগুলো আবার প্রাণচঞ্চল হয়ে ওঠে।

২ মার্চ শুরু হয় প্রাথমিকে সশরীরে ক্লাস। টানা দুই বছর বন্ধের পর ১৫ মার্চ প্রাক-প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের সশরীরে ক্লাস শুরু হয়।

২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব শুরুর পর দুই দফায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয়। প্রায় দেড় বছর বন্ধ থাকার পর গত বছরের ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ধীরে ধীরে খুলতে শুরু করে শিক্ষাঙ্গনের দুয়ার।

আরও পড়ুন:
রাজশাহী বোর্ডে ঝরল ৩০ হাজার শিক্ষার্থী
পদ্মা সেতু উদ্বোধন: এগোল এসএসসির পরীক্ষা
ফাইনালের আগে প্রস্তুতি পরীক্ষা নিলেন ইউএনও
একাদশে প্রতিষ্ঠান বদলের আবেদন শুরু বুধবার
কারিগরি বোর্ডের দাখিল-ভোকেশনালের রুটিন প্রকাশ

মন্তব্য

শিক্ষা
Fell in DUs C unit is about 6 percent

ঢাবির ‘গ’ ইউনিটে ফেল প্রায় ৮৬ শতাংশ

ঢাবির ‘গ’ ইউনিটে ফেল প্রায় ৮৬ শতাংশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার একটি কেন্দ্র। ফাইল ছবি
ঢাবির ‘গ’ ইউনিটে চলতি বছর পাসের হার ১৪ দশমিক ৩০ শতাংশ। এর মানে দাঁড়াচ্ছে পরীক্ষায় অংশ নেয়া প্রায় ৮৬ শতাংশ শিক্ষার্থী অকৃতকার্য হয়েছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বাণিজ্য অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিটের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে৷

পরীক্ষায় অংশ নেয়া ২৯ হাজার ৯৯৭ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৪ হাজার ২৮৯ জন।

এ ইউনিটে চলতি বছর পাসের হার ১৪ দশমিক ৩০ শতাংশ। এর মানে দাঁড়াচ্ছে পরীক্ষায় অংশ নেয়া প্রায় ৮৬ শতাংশ শিক্ষার্থী অকৃতকার্য হয়েছেন।

গত ৩ জুন ‘গ’ ইউনিটের পরীক্ষা হয়েছিল। ৯৩০ জন পরীক্ষার্থী এবার এ ইউনিটের মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাবেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আবদুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল শ্রেণিকক্ষে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ফল ঘোষণা করেন উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান।

ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীরা এখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে ফল জানতে পারছেন। এ ছাড়া রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংক বা টেলিটক নম্বর থেকে ‘DU GA Roll NO’ ফরম্যাটে ১৬৩২১ নম্বরে এসএমএস পাঠিয়েও ফল জানা যাচ্ছে৷

‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মেধাক্রম ১ থেকে ১ হাজার ১০০ পর্যন্ত শিক্ষার্থীকে আগামী ৬ জুলাই বেলা তিনটা থেকে ২১ জুলাই বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত ঢাবির ওয়েবসাইটে বিস্তারিত ফরম ও বিষয় পছন্দক্রম ফরম পূরণ করতে হবে৷

কোটায় আবেদনকারীদের ৬ থেকে ২১ জুলাই পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট কোটার ফরম বাণিজ্য অনুষদের ডিন কার্যালয় থেকে সংগ্রহ করতে হবে। তা যথাযথভাবে পূরণ করে ওই সময়ের মধ্যে ডিন কার্যালয়ে জমা দিতে হবে৷

কারও ফল নিয়ে সন্দেহ থাকলে তা নিরীক্ষার জন্য ১ হাজার টাকা ফি দিয়ে ৬ থেকে ২১ জুলাই পর্যন্ত বাণিজ্য অনুষদের ডিন কার্যালয়ে জমা দিতে হবে।

আরও পড়ুন:
কীভাবে জানা যাবে ঢাবির ‘খ’ ইউনিটের ফল
ঢাবির ‘খ’ ইউনিটে ফেল ৯০ শতাংশ
ঢাবিতে বাজেটবিষয়ক আলোচনা সভা
ঢাবি শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হলছাড়া করার অভিযোগ
‘বাংলাদেশ জিন্দাবাদ’ স্লোগান দেয়া নিয়ে ঢাবি সিনেটে হট্টগোল

মন্তব্য

শিক্ষা
How to know the result of B unit of DU

কীভাবে জানা যাবে ঢাবির ‘খ’ ইউনিটের ফল

কীভাবে জানা যাবে ঢাবির ‘খ’ ইউনিটের ফল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের আব্দুল মতিন ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে ফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপাচার্যসহ সংশ্লিষ্টরা। ছবি: নিউজবাংলা
শিক্ষার্থীরা রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংক অথবা টেলিটক নম্বর থেকে DU KHA টাইপ করে ১৬৩২১ নম্বরে সেন্ড করে ফিরতি মেসেজে তাদের ফল জানতে পারবেন।

২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়েছে।

এ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রতিটি শিক্ষার্থী তার উচ্চমাধমিক পরীক্ষার রোল নম্বর, বোর্ডের নাম, পাসের সাল এবং মাধ্যমিক পরীক্ষার রোল নম্বরের মাধ্যমে ওয়েবসাইট থেকে ফল জানতে পারবেন।

শিক্ষার্থীরা রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংক অথবা টেলিটক নম্বর থেকে DU KHA টাইপ করে ১৬৩২১ নম্বরে সেন্ড করে ফিরতি মেসেজে তাদের ফল জানতে পারবেন।

উত্তীর্ণ সব শিক্ষার্থীকে আগামী ৪ জুলাই বিকেল ৩টা থেকে ২১ জুলাই বিকেল ৩টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে বিস্তারিত ফরম ও বিষয়ের পছন্দক্রম ফরম পূরণ করতে হবে।

ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ বিভিন্ন কোটায় আবেদনকারীদের ১৭ থেকে ২৪ জুলাইয়ের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কোটার ফরম কলা অনুষদের ডিন অফিস থেকে সংগ্রহ করতে হবে। যথাযথভাবে ফরম পূরণ করে সে সময়ের মধ্যে ডিন অফিসে জমা দিতে হবে।

ফল নিরীক্ষণের জন্য ফি প্রদান সাপেক্ষে আগামী ২৯ জুন থেকে ৬ জুলাই পর্যন্ত কলা অনুষদের ডিন অফিসে আবেদন করা যাবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় পাসের হার ৯.৮৭ শতাংশ। এর মানে দাঁড়াচ্ছে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের ৯০.১৩ শতাংশই অকৃতকার্য হয়েছে।

আরও পড়ুন:
মহানবীকে কটূক্তির প্রতিবাদে ঢাবিতে ‘নাত’ পাঠ
ঢাবিতে নারী হেনস্তার বিচার চায় ছাত্র ইউনিয়ন
বেলায়েত বললেন, ঢাবির পরীক্ষা মোটামুটি হয়েছে
কারাগারে বসে ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষা
র‍্যাঙ্কিংয়ে ‘অ্যাটেনশন নেই’ ঢাবি উপাচার্যের

মন্তব্য

শিক্ষা
Fail 90 percent in B unit of DU

ঢাবির ‘খ’ ইউনিটে ফেল ৯০ শতাংশ

ঢাবির ‘খ’ ইউনিটে ফেল ৯০ শতাংশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার একটি কেন্দ্র। ফাইল ছবি
ঢাবির ‘খ‘ ইউনিটের পরীক্ষায় পাস করেছেন ৯.৮৭ শতাংশ শিক্ষার্থী। এর মানে দাঁড়াচ্ছে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের ৯০.১৩ শতাংশই অকৃতকার্য হয়েছে। কলা অনুষদভুক্ত এই ইউনিটে গতবার পাসের হার ছিল ১৬.৮৯ শতাংশ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়েছে।

এ পরীক্ষায় পাস করেছে ৯.৮৭ শতাংশ শিক্ষার্থী।

এর মানে দাঁড়াচ্ছে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের ৯০.১৩ শতাংশই অকৃতকার্য হয়েছে।

কলা অনুষদভুক্ত এই ইউনিটে গতবার পাসের হার ছিল ১৬.৮৯ শতাংশ। গত ৪ জুন ‘খ’ ইউনিটের পরীক্ষা হয়েছিল।

সোমবার দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় এবার তৃতীয়বারের মতো নৈর্ব্যক্তিকের পাশাপাশি লিখিত অংশও ছিল।

‘খ’ ইউনিটে ১ হাজার ৭৮৮ আসনের বিপরীতে ৫৮ হাজার ৫৭৩ শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষার আবেদন করেন। পরীক্ষায় অংশ নেন ৪৬ হাজার ৯৭২ জন।

ভর্তি পরীক্ষায় লিখিত ও নৈর্ব্যক্তিক অংশে সমন্বিতভাবে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৫ হাজার ৬২২ জন পরীক্ষার্থী। পরীক্ষার ফল জানা যাবে ওয়েবসাইটে।

দুপুর ১টার দিকে উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের আবদুল মতিন ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে ফল ঘোষণা করেন।

ওই সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, ‌‘খ’ ইউনিট পরীক্ষার সমন্বয়ক এবং কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবদুল বাছিরসহ ভর্তি পরীক্ষার সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:
ঢাবিতে নারী হেনস্তার বিচার চায় ছাত্র ইউনিয়ন
বেলায়েত বললেন, ঢাবির পরীক্ষা মোটামুটি হয়েছে
কারাগারে বসে ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষা
র‍্যাঙ্কিংয়ে ‘অ্যাটেনশন নেই’ ঢাবি উপাচার্যের
ভর্তি পরীক্ষা হলো ঢাবির ‘ক’ ইউনিটে

মন্তব্য

p
উপরে