× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

google_news print-icon

এই শিক্ষায় বেকারত্ব দূর হবে না: শিক্ষামন্ত্রী

এই-শিক্ষায়-বেকারত্ব-দূর-হবে-না-শিক্ষামন্ত্রী
আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় অতিমাত্রায় পরীক্ষা ব্যবস্থা তৈরি করা হয়েছে। এ কারণে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অভিভাবকরাও বাড়তি চাপে থাকে

শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে হতাশ খোদ শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। বলেছেন, এই ব্যবস্থা বেকারত্ব দূর করতে পারবে না। কারণ, শিক্ষা বাস্তবমুখী নয়। বড় বড় ডিগ্রিও বাস্তবে কাজে আসছে না।

বুধবার রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন মন্ত্রী।

দীপু মনি বলেন, ‘আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় অতিমাত্রায় পরীক্ষা ব্যবস্থা তৈরি করা হয়েছে। এ কারণে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অভিভাবকরাও বাড়তি চাপে থাকে। ‘

‘সকলে জিপিএ ফাইভ এর মোহে দৌড়াতে গিয়ে শারীরিক, মানসিক ও সামাজিক চাপ বাড়ছে।’

এখান থেকে বের হয়ে আসতে সরকারের পরিকল্পনা নিয়েও কথা বলেন মন্ত্রী। বলেন, ‘এখান থেকে বেরিয়ে আসতে পরীক্ষা ও সনদ নির্ভরতা কমিয়ে পাঠদানকে আনন্দদায়ক করা হবে। মানসম্মত শিক্ষা প্রদানের মাধ্যমে আমাদের ছেলে-মেয়েদের অভিজ্ঞ করে তোলা হবে।’

এ জন্য পাঠ্যবইয়ে বড় পরিবর্তন আনা হচ্ছে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী।

সংবাদে শব্দ ব্যবহারে সাংবাদিকদের সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেন মন্ত্রী। বলেন, ‘কখনও কখনও একটি শব্দের জন্য বিভ্রান্তি তৈরি হয়ে যায়। এ বিষয়ে একটু সতর্ক থাকবেন।’

‘হয়তো পরীক্ষা নিয়ে একটি কথা বললাম, ঠিক যেভাবে বললাম, পত্রিকার পাতায় সেভাবে এলো না। এলো শব্দের হেরফের, এদিক-ওদিক হয়। কিন্তু অনেক সময় শব্দ একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, তার যে প্রভাব অনেক বড়, সে কারণে শব্দ ব্যবহারে সতর্ক হওয়া খুবই জরুরি।’

‘যিনি রিপোর্ট লিখছেন তিনি যদি কেউ যা বলেছেন সেই শব্দগুলোকে অবিকৃত রাখেন তাহলে আমাদের সঠিক বার্তা পৌঁছে দিতে পারবেন।’

শিক্ষা বিষয়ে কাজ করা সাংবাদিকদের সংগঠন এডুকেশন রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ, বাংলাদেশ (ইরাব) আয়োজিত বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড ও অভিষেক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন মন্ত্রী। তিনি ভার্চুয়ালি যোগ দেন সেখানে।

অনুষ্ঠানে তিন জনকে ‘বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড' দেওয়া হয়। তারা হলেন, কালের কণ্ঠের শরিফুল আলম সুমন, দ্য ডেইলি সানের সোলাইমান সালমান ও বণিক বার্তার সাইফ সুজন।

অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করেন ইরাবের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল আলম সুমন।

মন্তব্য

আরও পড়ুন

শিক্ষা
Allegations against BCL for beating students in Rabi

রাবিতে শিক্ষার্থীকে মারধর করে হলছাড়া, অভিযোগ ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে

রাবিতে শিক্ষার্থীকে মারধর করে হলছাড়া, অভিযোগ ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ইনসেটে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা আতিকুর রহমান আতিক। কোলাজ: নিউজবাংলা
ভুক্তভোগী সবুজ বিশ্বাস রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। অন্যদিকে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা আতিকুর রহমান আতিক হল শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি। অভিযুক্তদের মধ্যে অজ্ঞাতনামা আরও ৮-১০ জন ছাত্রলীগ কর্মী রয়েছেন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলে এক ছাত্রকে বেধড়ক মারধর করে হলছাড়া করার অভিযোগ উঠেছে এক ছাত্রলীগ নেতাসহ কয়েক কর্মীর বিরুদ্ধে। মারধরের পাশাপাশি হিন্দু ধর্মাবলম্বী ওই শিক্ষার্থীকে ‘শিবির’ আখ্যা দিয়ে তাকে হত্যার হুমকি দেয়ারও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী সবুজ বিশ্বাস এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার রাতে হল প্রাধ্যক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের এই শিক্ষার্থী বুধবার রাতে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের হাতে নির্যাতনের শিকার হন।

অন্যদিকে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা আতিকুর রহমান আতিক হল শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি। অভিযুক্তদের মধ্যে অজ্ঞাতনামা আরও ৮-১০ জন ছাত্রলীগ কর্মী রয়েছেন। তারা সবাই বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বাবুর অনুসারী।

ভুক্তভোগী সবুজ বিশ্বাস অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেন, ‘১৬ মে রাত আনুমানিক ২টার দিকে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী হল শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আতিকুর রহমান আতিক ও তার ৮-১০ জন অনুসারী আমাকে কক্ষ থেকে বের করে হলের ছাদে নিয়ে বেধড়ক মারধর করে এবং শিবির আখ্যা দিয়ে হত্যার হুমকি দেয়।

‘পরবর্তীতে আমি সনাতন ধর্মাবলম্বী বলে জানালে আরও বেশি মারধর করে। আমি প্রাণ রক্ষার্থে দৌড়ে হল ত্যাগ করি। এ অবস্থায় নিরাপত্তা শঙ্কায় আমার পড়াশোনার সুষ্ঠু পরিবেশ ব্যাহত হচ্ছে। বর্তমানে আমি নিরাপত্তাহীনতার কারণে বাড়িতে অবস্থান করছি।’

নিউজবাংলার সঙ্গে কথোপকথনেও সবুজ বিশ্বাস অভিযোগ তুলে ঘটনার একই বর্ণনা দেন। এ সময় আবাসিক শিক্ষার্থী না হয়েও হলে অবস্থানের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার এক বড় ভাই আমাকে এই হলে তুলেছে। আমি রাজনীতির সাথে জড়িত না।’

তবে কোন বড় ভাই হলে তুলে দিয়েছেন তা জানাতে রাজি হননি এই শিক্ষার্থী।

অভিযোগের বিষয়ে ছাত্রলীগ নেতা আতিকুর রহমান নিউজবাংলাকে বলেন, ‘এসব অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। তাদের অপকর্ম লুকানোর জন্য আমার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ। আমি তাকে চিনি না। আমার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ প্রমাণ করতে পারলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব।’

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বাবু বলেন, ‘সোহরাওয়ার্দী হলের যে ঘটনা সেটি আমি জানার সঙ্গে সঙ্গে উভয় পক্ষের সঙ্গে কথা বলি। বিষয়টির সমাধান করে দেওয়া হয়েছে।

‘লিখিত অভিযোগ পুরোপুরি সত্যি নয়। সবুজ ওই হলের আবাসিক কোনো শিক্ষার্থী নয়। আবাসিকতা ছাড়া হলে থাকার কোনো প্রশ্নই আসে না।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সোহরাওয়ার্দী হলের প্রাধ্যক্ষ মো. জাহাঙ্গীর হোসেন নিউজবাংলা বলেন, ‘আমরা অভিযোগপত্র পেয়েছি। হল প্রশাসন থেকে দুই পক্ষের সঙ্গে কথা বলে তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

মন্তব্য

শিক্ষা
Kubi student temporarily expelled for insulting religion

ধর্ম অবমাননার অভিযোগে কুবি শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার

ধর্ম অবমাননার অভিযোগে কুবি শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ফাইল ছবি
এ ঘটনায় স্বপ্নীলকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রোভার স্কাউট থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে।

মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে কটূক্তি ও ইসলাম ধর্ম অবমাননার দায়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের ২০২১-২২ বর্ষের শিক্ষার্থী স্বপ্নীল মুখার্জিকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এর আগে তার কাছে ধর্ম অবমাননার কারণ ব্যাখ্যা চেয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত স্বপ্নীলকে সাময়িক বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মো. আমিরুল হক চৌধুরী। রেজিস্ট্রারের স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তিতে নিউজবাংলার হাতে এসেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী স্বপ্নীল মুখার্জীকে গত ১৫ মে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইসলাম ধর্মের অবমাননা ও মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে কটুক্তি করার বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হয়। কিন্তু নোটিশের জবাব প্রদান না করায় কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হলো।

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর থেকে বিভিন্ন সময়ে স্বপ্নীলের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটুক্তির অভিযোগ উঠেছে। প্রথমে বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার সহপাঠী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ ঝাড়েন। পরে এ নিয়ে গত বুধবার শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করে প্রক্টর বরাবর তাকে স্থায়ী বহিষ্কারের আবেদন জানান।

স্বপ্নীলের বাড়ি যশোর জেলার কেশবপুরে। সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ, বাংলাদেশের কার্যনির্বাহী সংসদ ২০২৩-২৪ এর প্রচার সম্পাদক তিনি।

এ ঘটনায় তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রোভার স্কাউট থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে।

মন্তব্য

শিক্ষা
Online application for admission to XI starts on May 26

একাদশে ভর্তির অনলাইন আবেদন শুরু ২৬ মে

একাদশে ভর্তির অনলাইন আবেদন শুরু ২৬ মে অনলাইনে ভর্তির আবেদন করছে শিক্ষার্থীরা। প্রতীকী ছবি
একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হবে আগামী ৩০ জুলাই।

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য অনলাইনে আবেদন গ্রহণ শুরু হবে আগামী ২৬ মে যা চলবে ১১ জুন পর্যন্ত। এসএসসির ফল যারা পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন করবে, আবেদনের যোগ্য হলে তাদেরও এই সময়ের মধ্যে আবেদন করতে হবে বলে জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটি এবং ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার স্বাক্ষরিত চিঠিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

চিঠিতে বলা হয়েছে, (একাদশে ভর্তির জন্য) অনলাইনে আবেদন গ্রহণ শুরু হবে ২৬ মে আর শেষ হবে ১১ জুন। আবেদন যাচাই-বাছাই ও নিষ্পত্তি ১২ জুন থেকে ১৩ জুন। কেবল পুনঃনিরীক্ষণে ফলাফল পরিবর্তিত শিক্ষার্থীদের আবেদন গ্রহণ করা হবে ১২ ও ১৩ জুন। পছন্দক্রম পরিবর্তনের সময় ১২-১৩ জুন।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে ১৪ থেকে ১৮ জুন পর্যন্ত অনলাইন সার্ভিস ও কল সেন্টার বন্ধ থাকবে বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

চিঠিতে উল্লিখিত তথ্যানুসারে, ঈদের ছুটির পর আগামী ২৩ জুন প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফলাফল প্রকাশ করা হবে। ফল প্রকাশের পর থেকে ২৯ জুন পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা নিশ্চায়ন করতে পারবে।

আগামী ৩০ জুন দ্বিতীয় পর্যায়ে আবেদন গ্রহণ শুরু হয়ে চলবে ২ মে পর্যন্ত। এছাড়া, পছন্দক্রম অনুযায়ী প্রথম মাইগ্রেশনের ফল প্রকাশ করা হবে ৪ জুলাই রাত ৮টায়।

দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ করা হবে ৪ জুলাই রাত ৮টায়। দ্বিতীয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীর নির্বাচন নিশ্চায়ন ৫ জুলাই থেকে ৮ জুলাই রাত ৮টা পর্যন্ত।

তৃতীয় পর্যায়ে আবেদন গ্রহণ ৯ জুলাই শুরু হয়ে শেষ হবে ১০ জুলাই। পছন্দক্রম অনুযায়ী দ্বিতীয় মাইগ্রেশনের ফল প্রকাশ করা হবে ১২ জুলাই রাত ৮টায়।

তৃতীয় পর্যায়ে আবদেনের ফল প্রকাশ ১২ জুলাই রাত ৮টায়। তৃতীয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীর নির্বাচন নিশ্চায়ন ১৩ থেকে ১৪ জুলাই। ভর্তি শুরু হবে ১৫ জুলাই এবং শেষ হবে ২৫ জুলাই। আর ক্লাস শুরু হবে ৩০ জুলাই।

গত ১২ মে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর ১৫ মে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির নীতিমালা প্রকাশ করা হয়।

মন্তব্য

শিক্ষা
2nd phase assistant teacher recruitment final result release

সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দ্বিতীয় ধাপের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ

সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দ্বিতীয় ধাপের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ নিয়োগ পরীক্ষার কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীরা। ফাইল ছবি
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাজস্ব খাতভুক্ত ২২ জেলার পাঁচ হাজার ৪৫৬ জন প্রার্থীকে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করে ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দ্বিতীয় ধাপের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এতে প্রাথমিকভাবে ৫ হাজার ৪৫৬ জনকে নির্বাচিত করা হয়েছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মাহবুবুর রহমান তুহিন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বুধবার সন্ধ্যায় এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাজস্ব খাতভুক্ত ২২ জেলার পাঁচ হাজার ৪৫৬ জন প্রার্থীকে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করে ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, ২০২৩-এর দ্বিতীয় গ্রুপের (রাজশাহী, খুলনা ও ময়মনসিংহ বিভাগ) গত ২০ মার্চ ২০২৩ তারিখের ৩৮.০১.০০০০, ১৪৩.১১.০০৮.২৩-১০৫ নং স্মারকে জারিকৃত বিজ্ঞাপনের আলোকে ২২ জেলায় (রাজশাহী, বগুড়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর, নওগাঁ, জয়পুরহাট, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, খুলনা, যশোর, কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ, নড়াইল, চুয়াডাঙ্গা, মাগুরা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, মেহেরপুর, ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর, নেত্রকোনা) গৃহীত লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে সর্বমোট পাঁচ হাজার ৪৫৬ জন প্রার্থীকে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

নির্বাচিত প্রার্থীদের ফল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট (www.mopme.gov.bd) ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে (www.dpe.gov.bd) পাওয়া যাবে।

নির্বাচিত প্রার্থীরা তাদের মোবাইল ফোনেও এ সংক্রান্ত এসএমএস পাবেন।

আরও পড়ুন:
উত্তরপত্র মূল্যায়নে ত্রুটি, সংশোধন শেষে রাতেই ফল প্রকাশ
প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ: ঈদের পরপরই তৃতীয় ধাপের ফল
প্রাথমিকে ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ জুনের মধ্যে: প্রতিমন্ত্রী
সহকারী শিক্ষক নিয়োগে তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা ২৯ মার্চ
শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতি: তিন পুলিশসহ ৪ জন রিমান্ডে

মন্তব্য

শিক্ষা
EB Chhatra League editors plate rotting meat shop closed

ইবি ছাত্রলীগ সম্পাদকের প্লেটে পচা মাংস, দোকান বন্ধ

ইবি ছাত্রলীগ সম্পাদকের প্লেটে পচা মাংস, দোকান বন্ধ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে থাকা খাবার হোটেল; সেখানে পাওয়া মাংসের নমুনা। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
ক্যাম্পাসের ভেতরে দোকানটিতে দুপুরে খাবার খেতে বসেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসিম আহমেদ জয়। কিন্তু তাকে পরিবেশন করা রোস্টটি বাসি বলে অভিযোগ তার। পরে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দোকানটি বন্ধ করে দেয়।

ক্যাম্পাসের ভেতরে দোকান থাকলেও রান্না হতো বাইরে। বাইরের সেই কিচেন থেকে প্রতিদিন বিরিয়ানি ও খিচুড়ি রান্না করে এনে বিক্রি করা হতো ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) জিয়া মোড়ে অবস্থিত ঢাকা বিরিয়ানী হাউজে। তবে অবিক্রীত মুরগির মাংস ও রাইস পরদিন গরম করে আবারও শিক্ষার্থীদের খাওয়ানো হতো- এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে দোকানটির বিরুদ্ধে।

বুধবার বিকেল ৫টার দিকে পচা খাবার পরিবেশনের অভিযোগে দোকানটি প্রক্টরিয়াল বডির উপস্থিতিতে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এ সময় প্রক্টরিয়াল বডির মধ্যে সহকারী প্রক্টর ড. মো. আমজাদ হোসেন, মো. ইয়ামিন মাসুম, মো. নাসির মিয়া ও নিরাপত্তা শাখার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দোকানটিতে দুপুরে খাবার খেতে বসেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসিম আহমেদ জয়। খাবারের মেনুতে ছিল মোরগ-পোলাও। খাবার খাওয়ার সময় পরিবেশিত রোস্টটি বাসি বলে অভিযোগ তার।

দোকান কর্তৃপক্ষ বিষয়টি স্বীকার করে নিয়ে বলেন, বাবুর্চি ভুল করে দিয়ে দিয়েছেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে জয় এ ঘটনার সঠিক বিচার দাবি করেন। তবে এর আগেও পচা-বাসি পরিবেশন করা হয়েছে এমন অভিযোগ অন্য অনেক সাধারণ শিক্ষার্থীর।

ইবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জয় বলেন, ‘এই দোকান থেকে প্রতিদিন ক্যাম্পাসের দুই থেকে আড়াই হাজার শিক্ষার্থী খাবার নিচ্ছে। তাদের সবার সঙ্গে এই অন্যায়টা হচ্ছে। এমন অনেক শিক্ষার্থী আছে যারা খাওয়া-দাওয়া করে এ অন্যায়টুকু মেনে নিয়ে চলে যায়। কিন্তু আমি একজন সাধারণ শিক্ষার্থী হিসেবে প্রতিবাদ করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি চাই সাংবাদিক, সাধারণ শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি এবং প্রশাসনসহ এ বিষয়ে বসে সবার সামনে কথা দোকানি কথা দেবে যে, তারা শিক্ষার্থীদের ভালো খাবার খাওয়াবে, শিক্ষার্থীদের ঠকাবে না। তারপর তাদের ব্যবসা পুনরায় শুরু করতে পারবে।’

ঘটনাস্থলে থাকা জাকারিয়া নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘এটি ক্যাম্পাসের ভেতরে প্রথম বিরিয়ানির দোকান। প্রথম দিকে খাবারের মান ভালো থাকায় এবং দামে সাশ্রয়ী হওয়ায় অনেকেই এখানে ভিড় করতো। তবে দিন দিন খাবারের মান কমতে থাকে, শিক্ষার্থীও আসা কমে যায়। এরপর অতিরিক্ত লাভের আশায় তারা হয়তো পচা তরকারি পুনরায় বিক্রি করত।’

এ বিষয়ে দোকানের কর্মচারী বাবুর্চির ওপর দোষ চাপিয়ে বলেন, ‘একজন শিক্ষার্থী খাবার খেতে আসলে তার প্লেটে যে খাবারটা দেয়া হয়েছিল তাতে একটু সমস্যা ছিল। কিন্তু এ ব্যাপারে আমি জানতাম না। এদিকে বাবুর্চি হয়তো আগের খাবারের সাথে নতুন খাবার মিক্স করে দিয়েছিল। বাবুর্চি ভুল করে থাকলে দোকানের কর্মচারী হিসেবে এতে আমার কিছু করার থাকে না।’

সার্বিক বিষয়ে সহকারী প্রক্টর মো. ইয়ামিন মাসুম বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের স্বার্থে খারাপ খাবারের বিষয়টি বিবেচনা করে আমরা সাময়িক দোকানে তালা লাগিয়ে দিয়েছি। পরবর্তীতে প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আরও পড়ুন:
ইবিতে শিক্ষকের সামনেই পরিবারকে হয়রানির অভিযোগ নিরাপত্তাকর্মীর বিরুদ্ধে
অধ্যাপক ছাড়াই চলছে ইবির ৩৬ বিভাগের ১৪টি
ইবি উপাচার্যকে ব্যতিক্রমী ঘুষের প্রস্তাব
সরকারি চাকুরেদের সম্পদের তথ্য জমা বাতিল হলে দুর্নীতি বাড়বে
যৌন হয়রানি: নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষক বহিষ্কার

মন্তব্য

শিক্ষা
Top in the country in tHE Young University Rankings

টিএইচই ইয়াং ইউনিভার্সিটি র‍্যাঙ্কিংয়ে দেশসেরা খুবি

টিএইচই ইয়াং ইউনিভার্সিটি র‍্যাঙ্কিংয়ে দেশসেরা খুবি
যুক্তরাজ্যভিত্তিক শিক্ষা সাময়িকী ‘টাইমস হায়ার এডুকেশন’ (টিএইচই)-এর বৈশ্বিক ইয়াং ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিংয়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের দুটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এবং দুটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় স্থান পেয়েছে।

টাইমস হায়ার এডুকেশনের বৈশ্বিক ইয়াং ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে শীর্ষ স্থানে উঠে এসেছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় (খুবি)। যুক্তরাজ্যভিত্তিক শিক্ষা সাময়িকী ‘টাইমস হায়ার এডুকেশন’ (টিএইচই)-এর গ্লোবাল র‌্যাঙ্কিংয়ে টানা দ্বিতীয়বার স্থান পাওয়ার পর এবার এই স্বীকৃতি মিলেছে।

সম্প্রতি এই র‌্যাঙ্কিং প্রকাশ করে টাইমস হায়ার এডুকেশন কর্তৃপক্ষ। র‌্যাঙ্কিংয়ে বৈশ্বিক তালিকায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ৪০১-৫০০ এর মধ্যে রয়েছে। এটা বাংলাদেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে সবার শীর্ষে।

ইয়াং ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ থেকে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দুটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এবং দুটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় স্থান পেয়েছে।

গবেষণার মান, শিল্প, আন্তর্জাতিক দৃষ্টিভঙ্গি, গবেষণার পরিবেশ এবং শিক্ষাদান- এই পাঁচটি বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে করা ইয়াং ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিংয়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় অর্জন করছে যথাক্রমে ৪৫ দশমিক ২, ১৭ দশমিক ১, ৪৩ দশমিক ৭, ১৪ দশমিক ৫ ও ২২ দশমিক ৭ শতাংশ।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্য অফিস অফ ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক ও র‌্যাঙ্কিং কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর সেহরীশ খান বলেন, ‘খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন নিজেই একজন গবেষক। তিনি উপাচার্যের দায়িত্ব নেয়ার পর গবেষণায় বিশেষ গুরুত্ব দেন। গবেষণার জন্য যথোপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টিতেও উদ্যোগ নেন তিনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ ছাড়া খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে আন্তর্জাতিক র‌্যাঙ্কিংয়ে নিয়ে যেতে নানা উদ্যোগ বাস্তবায়ন করেন ভিসি। এর ফলশ্রুতিতে টাইমস হায়ার এডুকেশন র‌্যাঙ্কিং, কিউএস র‌্যাঙ্কিংয়ের পর ইয়াং ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিংয়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় স্থান পেয়েছে। এতে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান আরও সুদৃঢ় হয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ক্ষেত্রে পরিবর্তনের ছোঁয়া এখন দৃশ্যমান। বর্তমান উপাচার্যের বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও দূরদর্শিতায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় স্বপ্নের পথে ডানা মেলেছে। একের পর এক অর্জনে দেশে সুনাম ও ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে।

‘উপাচার্যের নেতৃত্বে শিক্ষার পাশাপাশি গবেষণা, প্রকাশনা, অবকাঠামো উন্নয়নে ব্যাপক অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় অতি দ্রুত বাংলাদেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে শ্রেষ্ঠ উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিণত হবে।’

উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন বলেন, ‘টানা দুবার টাইমস হায়ার এডুকেশন র‌্যাঙ্কিং এবং কিউএস র‌্যাঙ্কিংয়ে স্থান পাওয়ার পর এবার টাইমস হায়ার এডুকেশনের ইয়াং ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিংয়ে মর্যাদাপূর্ণ অবস্থান পাওয়ায় গর্বিত খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার। গবেষণার প্রতি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মনোনিবেশ ও আন্তরিকতার ফলে এ অর্জন সম্ভব হয়েছে।

‘বিশ্ববিদ্যালয়ের উৎকর্ষ সাধনে সবার অবদান রয়েছে। একাডেমিক ক্ষেত্রে শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং প্রশাসনিক ক্ষেত্রে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছেন। আমি আশা করি, অতিদ্রুত খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় দেশসেরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হবে।’

প্রসঙ্গত, ‘টাইমস হায়ার এডুকেশন’ ২০১৯ সাল থেকে ওয়ার্ল্ড ইয়াং ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিং প্রকাশ করে আসছে। যেসব সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের বয়স ৫০ বছর কিংবা তার চেয়ে কম, শুধু তাদের মধ্যে গুণগত মান বিবেচনায় ধরে এই র‌্যাঙ্কিং করা হয়। এবার সব মিলিয়ে বিশ্বের ৬৭৩টি বিশ্ববিদ্যালয় এই র‌্যাঙ্কিংয়ে স্থান করতে পেরেছে, যা বিগত বছর ছিল ৬০৫টি।

র‌্যাঙ্কিংয়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষাদান, গবেষণা, জ্ঞান স্থানান্তর ও আন্তর্জাতিক দৃষ্টিভঙ্গির ১৮টি সূচক মানদণ্ড হিসেবে গণনা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মৌলিক লক্ষ্য, পাঠদান ও গবেষণার মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোও বিবেচনায় নেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
মাদক সেবনের অপরাধে খুবির চার শিক্ষার্থী বহিষ্কার
জেলে থেকেও বেতন-ভাতা নেন খুবির নির্বাহী প্রকৌশলী
অধ্যাপক নিয়োগ নিয়ে খুবির সাবেক উপাচার্যের বিরুদ্ধে তদন্তে নামছে ইউজিসি
কনসার্টে মাদক সেবন, খুবির ৭ শিক্ষার্থীকে শোকজ
খুবির সাবেক দুই শিক্ষার্থীকে ২০ বছর করে কারাদণ্ড

মন্তব্য

শিক্ষা
Three medals for IUB in inter university squash tournament

আন্তবিশ্ববিদ্যালয় স্কোয়াশ টুর্নামেন্টে আইইউবির তিন পদক

আন্তবিশ্ববিদ্যালয় স্কোয়াশ টুর্নামেন্টে আইইউবির তিন পদক পুরস্কার নিয়ে বিজয়ীদের ফটোশুট। ছবি: আইইউবি
আগামী ২০২৮ অলিম্পিক গেমসে প্রথমবারের মতো অন্তর্ভুক্ত হতে যাচ্ছে স্কোয়াশ। আইইউবি আশা করছে, এই তিন খেলোয়াড় অলিম্পিকে দেশ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিত্ব করবে।

প্রথম আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্কোয়াশ টুর্নামেন্টে নারী ও পুরুষ বিভাগে যথাক্রমে চ্যাম্পিয়ন এবং রানার-আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করেছেন ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশের (আইইউবি) তিন খেলোয়াড়।

গত ১০-১১ মে ঢাকায় অবস্থিত স্টেশন অফিসার্স মেস আলফা-তে অনুষ্ঠিত এই টুর্নামেন্টটি আয়োজন করে বাংলাদেশ স্কোয়ার র‌্যাকেটস ফেডারেশন এবং ইউনিভার্সিটি স্কোয়াশ কমিউনিটি, বাংলাদেশ।

আইইউবি স্কোয়াশ দলের খেলোয়াড় এবং সহকারী কোচ মারজান আক্তার মনিকা নারী বিভাগে শিরোপা জয় করেন। এই ক্যাটেগরিতে রানার-আপ হন আইইউবির অ্যাকাউন্টিং বিভাগের শিক্ষার্থী জ্যোতি রানী রায়।

পুরুষ বিভাগে রানার-আপ হন আইইউবির ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের প্রথম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী মো. রায়হান। এ ছাড়াও, নারী ক্যাটেগরিতে পঞ্চম স্থান অধিকার করেন ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষার্থী আনিকা তাবাসসুম কথা। এদের মধ্যে জ্যোতি এবং রায়হান সম্প্রতি আইইউবিতে শতভাগ স্পোর্টস স্কলারশিপে ভর্তি হয়েছেন।

এ বছরের জানুয়ারি মাসে আন্তর্জাতিক মানের একটি স্কোয়াশ কোর্ট উদ্বোধন করা হয় আইইউবিতে। বাংলাদেশে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে সম্ভবত এটাই একমাত্র আন্তর্জাতিক মানের স্কোয়াশ কোর্ট। পাশাপাশি, শতভাগ স্কলারশিপে তিন পেশাদার খেলোয়াড়কে ভর্তি করায় আইইউবি।

আগামী ২০২৮ অলিম্পিক গেমসে প্রথমবারের মতো অন্তর্ভুক্ত হতে যাচ্ছে স্কোয়াশ। আইইউবি আশা করছে, এই তিন খেলোয়াড় অলিম্পিকে দেশ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিত্ব করবে।

এ বছর এর মধ্যেই বেশ কয়েকটি জাতীয় পর্যায়ের স্কোয়াশ টুর্নামেন্টে সাফল্য পেয়েছে আইইউবির শিক্ষার্থীরা। ফেব্রুয়ারিতে আইইউবিতে অনুষ্ঠিত হয় দেশের প্রথম নারী স্কোয়াশ টুর্নামেন্ট। সেখানে ওপেন ক্যাটেগরিতে রানার-আপ হয় আইইউবির কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী রিয়াজুল জান্নাত উর্দ্ধ। শতভাগ স্কলারশিপে আইইউবিতে ভর্তি হওয়া তিন শিক্ষার্থীর একজন এই উর্দ্ধ। এরপর এপ্রিলে চতুর্থ জাতীয় স্কোয়াশ প্রতিযোগিতায় নিজ নিজ বিভাগে যথাক্রমে চ্যাম্পিয়ন এবং রানার-আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করেন রায়হান ও মনিকা।

মন্তব্য

p
উপরে