শতাব্দীর সেরা ডেলিভারিকে ফ্লুক বললেন ওয়ার্ন

২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালের আগে লর্ডসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ কিংবদন্তি ব্রায়ান লারার সঙ্গে শেন ওয়ার্ন। ফাইল ছবি

শতাব্দীর সেরা ডেলিভারিকে ফ্লুক বললেন ওয়ার্ন

‘বল অফ দ্য সেঞ্চুরি’ তকমা পাওয়া ওই ডেলিভারির ২৮ বছর পর ওয়ার্ন বললেন বলটা ফ্লুক ছিল। এতটা ঘুরবে সেটা তিনি নিজেও আশা করেননি।

১৯৯৩ সালের চার জুন। অ্যাশেজের প্রথম টেস্টে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে মুখোমুখি দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। টস জিতে স্পিন সহায়ক পিচে অজিদের ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান ইংলিশ অধিনায়ক গ্রাহাম গুচ।

অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক মার্ক টেইলরের সেঞ্চুরির পরও ইংলিশ স্পিনার পিটার সাচের স্পিনে খুব বড় সংগ্রহ করতে পারেনি সফরকারী দল। ২৮৯ রানে গুটিয়ে যায় তারা।

জবাবে বেশ ভালো শুরু পেল ইংল্যান্ড। গুচের সঙ্গে ৭১ রানের জুটি গড়ে আউট হলেন মাইক আথারটন। ক্রিজে আসলেন ইংল্যান্ড লেজেন্ড ও স্পিনের সেরা খেলোয়াড় মাইক গ্যাটিং।

তিন ওভার দেখেশুনে খেললেন গ্যাটিং। এক বাউন্ডারি মেরে চার রান তুলে নিয়ে সেট হওয়া চেষ্টা চালাচ্ছেন। ঠিক সে সময়ই টেইলর বোলিংয়ে আনলেন এক উঠতি স্পিনারকে।

ইংলিশ প্রেস অ্যাশেজের আগে খুব একটা পাত্তা দেয়নি সোনালী চুল, কানে দুল পড়া, কিছুটা স্বাস্থ্যবান আকৃতির এই স্পিনারকে। নিজের প্রথম ডেলিভারিতেই যা করলেন, তাতে সবাই চিনে নিল সর্বকালের সেরা স্পিনার হতে চলা ২৩ বছর বয়সী শেন ওয়ার্নকে।

গ্যাটিং ব্যাট করছেন। ওয়ার্ন আসলেন স্বভাবজাত ধীর গতির রান আপে। লেগব্রেক ডেলিভারি পড়ল লেগ স্টাম্পের খানিকটা বাইরে। নিরীহ ডেলিভারি ভেবে গ্যাটিং খেলতে গেলেন ফ্রন্ট ফুটে।

অমনি প্রায় ৪৫ ডিগ্রি টার্ন করে বল আঘাত হানল গ্যাটিংয়ের অফস্টাম্পে। পুরো ঘটনায় স্তম্ভিত হয়ে পড়লেন গ্যাটিং। এমনকি অস্ট্রেলিয়ার উইকেটকিপার ইয়ান হিলিও বলের লাইনে বোকা হয়ে গেলেন। তার গ্লাভস চলে গিয়েছিল লেগ সাইডে।

পুরো বিষয়টা ঘটল কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে উপস্থিত হাজার বিশেক দর্শক জায়ান্ট স্ক্রিন আর টিভি দর্শকেররা রিপ্লেতে দেখে বুঝলেন ওয়ার্নের জাদু!

সেই থেকে শুরু। ওই ম্যাচে আটটিসহ পুরো অ্যাশেজে ৩৪টি উইকেট পান ওয়ার্ন। পরের এক যুগ ইংল্যান্ডে উপর অস্ট্রেলিয়া ছড়ি ঘুরিয়েছে ওয়ার্নের স্পিন জাদুতে।

‘বল অফ দ্য সেঞ্চুরি’ তকমা পাওয়া ওই ডেলিভারির ২৮ বছর পর ওয়ার্ন বললেন বলটা ফ্লুক ছিল। এতটা ঘুরবে সেটা তিনি নিজেও আশা করেননি।

অস্ট্রেলিয়ার টিভি চ্যানেল ফক্স ক্রিকেটকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে শুক্রবার ওয়ার্ন বলেন, ‘বল অফ দ্য সেঞ্চুরি আসলে একটা ফ্লুক ছিল। প্রথম বলে আমি কখনই ওটা আর করতে পারিনি। হঠাৎ করেই হয়ে গেছিল। তবে আমার মনে হয় বলটা অমন হওয়ারই কথা ছিল।’

ওই অ্যাশেজের পর যতদিন ক্রিকেট খেলেছেন অস্ট্রেলিয়া দলের সেরা তারকা ছিলেন ওয়ার্ন। ক্যারিয়ার শেষ করেন ৭০৮টি টেস্ট উইকেট নিয়ে। লেগস্পিনকে নতুন জীবন দেয়ার পেছনে তার অবদানই সবচেয়ে বড় ধরা হয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

ভারতকে গুঁড়িয়ে নিউজিল্যান্ডের ইতিহাস

ভারতকে গুঁড়িয়ে নিউজিল্যান্ডের ইতিহাস

ফাইনাল জেতার পর টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ট্রফি হাতে নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসন। ছবি: আইসিসি

ফাইনালে ভারতকে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারায় ব্ল্যাক ক্যাপস। জয়ের জন্য ১৩৯ রানে লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসনের হাফ সেঞ্চুরিতে আট উইকেট অক্ষত রেখে সহজেই ম্যাচ জিতে নেয় নিউজিল্যান্ড।

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতে নিয়েছে নিউজিল্যান্ড। ফাইনালে ভারতকে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারায় ব্ল্যাক ক্যাপস। এবারই প্রথম ফাইনাল ম্যাচের মাধ্যমে শিরোপা নির্ধারণ হলো টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের।

পুরো দুই দিন ভেসে গেলেও ফল এসেছে ম্যাচে। ফাইনালের জন্য রাখা রিজার্ভ ডে যোগ হলে ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়া গেছে।

জয়ের জন্য ১৩৯ রানে লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসনের হাফ সেঞ্চুরিতে আট উইকেট অক্ষত রেখে সহজেই ম্যাচ জিতে নেয় নিউজিল্যান্ড।

দ্বিতীয় ইনিংসে শুরুটা মন্দ হয়নি নিউজিল্যান্ডের। ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৩৩ রানের ওপেনিং জুটি পায় তারা।

টম লেইথামকে নয় রানে আউট করে জুটি ভাঙ্গেন রভিচন্দ্রন আশউইন। আরেক ওপেনার ডেভন কনওয়েকেও ফেরান এই ভারতীয় স্পিনার।

৪৪ রানে দুই উইকেট হারানোর পর ম্যাচ জিততে আর কোনো সমস্যা হয়নি নিউজিল্যান্ডের। উইলিয়ামসন ও অভিজ্ঞ রস টেইলরের জুটি অনায়াস জয় পাইয়ে দেয় তাদের।

পঞ্চম দিনে দুই উইকেটে ৬৪ রান নিয়ে খেলা শুরু করে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ভারত। নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১৭০ রানে জুটিয়ে যায় ভিরাট কোহলির দল।

ভারতের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪১ রান করেন রিশাভ পান্ট। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩০ রান আসে রোহিত শর্মার ব্যাট থেকে। ব্ল্যাকক্যাপদের নিয়ন্ত্রিত সিম বোলিংয়ের সামনে মুখ থুবড়ে পড়ে ভারতের বিশ্বসেরা ব্যাটিং লাইন আপ।

নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ৪৮ রানে চার উইকেট নেন টিম সাউদি আর ৩৯ রানে তিন উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট।

নয়টি দলকে নিয়ে ২০১৯ সালের আগস্টে শুরু হয় প্রথম বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার পাঁচ টেস্টের অ্যাশেজ সিরিজ দিয়ে পথচলা শুরু টুর্নামেন্টের।

এরপর বিভিন্ন দল নিজেদের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলে। প্রতি দল ছয়টি করে সিরিজ খেলেয়ার কথা ছিল। সবচেয়ে বেশি পয়েন্ট পাওয়া সেরা দুই দলের খেলার কথা ছিল ফাইনাল।

কিন্ত ২০২০ সালের মার্চ থেকে বিশ্বব্যাপি করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় অন্যান্য খেলার মত থমকে যায় ক্রিকেটও।

তাই করোনার কারনে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম আসরের বেশ কয়েকটি ম্যাচ ও সিরিজ স্থগিত হয়ে যায়। ফলে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্ট পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনে আইসিসি। পয়েন্টের হিসেব বাদ দিয়ে শতকরা হিসেবে পয়েন্ট টেবিলের নিয়ম চালু করে ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থা।

শতকরা হিসেবে সবচেয়ে বেশি পয়েন্ট ছিলো ভারত ও নিউজিল্যান্ডের। ভারত ছিলো সবার উপরে। ৬ সিরিজে ভারতের শতকরাতে পয়েন্ট ৭২ দশমিক ২। আর পাঁচ সিরিজে নিউজিল্যান্ডের শতকরাতে পয়েন্ট ৭০।

তাই পয়েন্ট টেবিলের সেরা দুই দল হয়ে প্রথম বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল খেলে ভারত ও নিউজিল্যান্ড।

ফাইনালের শিরোপা জয়ী নিউজিল্যান্ড প্রাইজমানি হিসেবে পাচ্ছে ১৬ লাখ ডলার। আর রানার্সআপ ভারত পাচ্ছে ৮ লাখ ডলার।

শেয়ার করুন

জিম্বাবুয়ে সিরিজে টেস্ট দলে ফিরলেন সাকিব

জিম্বাবুয়ে সিরিজে টেস্ট দলে ফিরলেন সাকিব

বাংলাদেশ দলের অনুশীলনে সাকিব আল হাসান। ফাইল ছবি

মাহমুদুল্লাহর অধীনে টি-টোয়েন্টি দলে প্রথমবারের মতো ডাক পেয়েছেন হার্ড হিটিং ব্যাটসম্যান শামীন পাটোয়ারি। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ফিরেছেন লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম।

জিম্বাবুয়ে সফরের জন্য ১৭ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। তিন ফরম্যাটেই দল দিয়েছে বিসিবি। আইপিএল খেলার জন্য শ্রীলঙ্কা সিরিজে না থাকা সাকিব আল হাসান ফিরেছেন টেস্ট স্কোয়াডে।

ডিপিলের সুপার লিগ না খেলে পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটাতে যুক্তরাষ্ট্রে আছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। সেখান থেকে সরাসরি জিম্বাবুয়েতে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন তিনি।

মুমিনুল হকের অধীনে থাকা টেস্ট দলে আরও সুযোগ করে নিয়েছেন নুরুল হাসান সোহান। তিন বছর পর এই উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান তিন ফরম্যাটের দলেই কামব্যাক করেছেন।

মাহমুদুল্লাহর অধীনে টি-টোয়েন্টি দলে প্রথমবারের মতো ডাক পেয়েছেন হার্ড হিটিং ব্যাটসম্যান শামীন পাটোয়ারি। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ফিরেছেন লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম।

ওয়ানডে ও টেস্ট দলে থাকলেও টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে নেই মুশফিকুর রহিম। অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান আগেই যে কোনো একটি ফরম্যাট থেকে ছুটি চেয়েছিলেন বোর্ডের কাছে। তাকে টি-টোয়েন্টি সিরিজ থেকে বিশ্রাম দিয়েছে বিসিবি।

এই মাসের শেষে ডিপিএলের পর ৩০ জুন জিম্বাবুয়ে যাওয়ার কথা বাংলাদেশ দলের। তিনদিনের কোয়ারেন্টিন শেষে অনুশীলন শুরু করতে পারবেন টাইগাররা।

সাত জুলাই থেকে শুরু হওয়া সিরিজে একটি টেস্ট, তিন ওয়ানডে ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলবে দুই দল।

টেস্ট ম্যাচের আগে একটি দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ৭ জুলাই প্রথম টেস্ট শুরু হবে হারারেতে।

ওয়ানডে সিরিজ শুরু ১৬ জুলাই। তার আগে ১৪ জুলাই এক দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। ১৬, ১৮ ও ২০ জুলাই হবে তিনটি ম্যাচ। সবগুলো ম্যাচই হবে হারারেতে।

একই ভেন্যুতে দুই দলের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হচ্ছে ২৩ জুলাই। ২৫ ও ২৭ জুলাই হবে পরের ম্যাচ দুটি।


টেস্ট স্কোয়াড: মুমিনুল হক (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, শাদমান ইসলাম, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, ইয়াসির আলি, নুরুল হাসান, মেহেদী মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, নাইম হাসান, আবু জায়েদ চৌধুরি, তাসকিন আহমেদ, এবাদত হোসেন, শরিফুল ইসলাম

ওয়ানডে স্কোয়াড: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), নাইম শেখ, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদ উল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, মোহাম্মদ মিঠুন, আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান, মেহেদী মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, সাইফউদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেন, শরিফুল ইসলাম।

টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড: মাহমুদুল্লাহ (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, নাইম শেখ, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, সৌম্য সরকার, আফিফ হোসেন, শামিম পাটোয়ারি, নুরুল হাসান, নাসুম আহমেদ, মাহেদি হাসান, আমিনুল ইসলাম, সাইফউদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম।

শেয়ার করুন

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ নিয়ে শঙ্কা কাটল

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ নিয়ে শঙ্কা কাটল

ফাইল ছবি

জিম্বাবুয়ের স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েশন কমিশন এক টুইট বার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করে। বার্তায় বলা হয়, চলমান মহামারির মধ্যে বিশেষ ভাবে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট, রাগবি ইউনিয়ন, ফুটবল, শুটিং, অ্যাথলেটিকস, গলফ, সুইমিং ও ভলিবল ফেডারেশনের কয়েকটি সিরিজ সম্পন্ন করার অনুমোদন দেয়া হয়েছে

আন্তর্জাতিক সূচি অনুযায়ী জুনের শেষে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে জিম্বাবুয়ে যাওয়ার কথা বাংলাদেশের। তবে দেশটিতে করোনাভাইরাস মহামারির কারণের চলমান লকডাউনের জন্য দুই দেশের সিরিজটি হুমকির মুখে পড়ে।

মঙ্গলবার রাতে দূর হয়েছে সেই আশঙ্কা। জিম্বাবুয়ের ক্রীড়া মন্ত্রনালয় শর্ত সাপেক্ষে বেশ কয়েকটি খেলার কয়েকটি সিরিজকে অনুমোদন দিয়েছে যার মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ।

জিম্বাবুয়ের স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েশন কমিশন এক টুইট বার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করে। বার্তায় বলা হয়, চলমান মহামারির মধ্যে বিশেষ ভাবে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট, রাগবি ইউনিয়ন, ফুটবল, শুটিং, অ্যাথলেটিকস, গলফ, সুইমিং ও ভলিবল ফেডারেশনের কয়েকটি সিরিজ সম্পন্ন করার অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

এর আগে, করোনাভাইরাস মহামারির পরিস্থিতি খারাপ হওয়াতে ১৪ জুন জিম্বাবুয়েতে নতুন করে লকডাউন দেয় দেশটির সরকার। স্থগিত করা হয় যেকোনো ধরনের আউটডোর ইভেন্ট। যার মধ্যে ছিল ক্রীড়া ইভেন্টও।

হারারতে চলতে থাকা জিম্বাবুয়ে-এ ও সাউথ আফ্রিকা-এ দলের মধ্যেকার আনঅফিশিয়াল টেস্ট ম্যাচটিও বাতিল করা হয়।

এই মাসের শেষে ডিপিএলের পর ২৯ অথবা ৩০ জুন জিম্বাবুয়েতে যাওয়ার কথা বাংলাদেশ দলের। সাত জুলাই থেকে শুরু হওয়া সিরিজে একটি টেস্ট, তিন ওয়ানডে ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলবে দুই দল।

টেস্ট ম্যাচের আগে ৩ ও ৪ জুলাই একটি দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ৭ জুলাই প্রথম টেস্ট শুরু হবে হারারেতে।

ওয়ানডে সিরিজ শুরু ১৬ জুলাই। তার আগে ১৪ জুলাই এক দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। ১৬, ১৮ ও ২০ জুলাই হবে তিনটি ম্যাচ। সবগুলো ম্যাচই হবে হারারেতে।

একই ভেন্যুতে দুই দলের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হচ্ছে ২৩ জুলাই। ২৫ ও ২৭ জুলাই হবে পরের ম্যাচ দুটি।

শেয়ার করুন

ইশান্ত-শামি ম্যাচে ফেরালেন ভারতকে

ইশান্ত-শামি ম্যাচে ফেরালেন ভারতকে

উইকেট নেওয়ার পর উচ্ছ্বসিত ভারতের পেইসার ইশান্ত শর্মা। ছবি: টুইটার

চতুর্থ দিন শেষে নিউজিল্যান্ডের চেয়ে ৩২ রানে এগিয়ে ভিরাট কোহলির দল। দিনের খেলা শেষ ভারতের স্কোর ছিল দুই উইকেটে ৬৪ রান।

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের বৃষ্টি বিঘ্নিত ফাইনালে পেইসারদের কল্যাণে ম্যাচে ফিরে এসেছে ভারত। চতুর্থ দিন শেষে নিউজিল্যান্ডের চেয়ে ৩২ রানে এগিয়ে ভিরাট কোহলির দল। দিনের খেলা শেষ ভারতের স্কোর ছিল দুই উইকেটে ৬৪ রান।

পঞ্চম দিনও বৃষ্টির কারণে খেলা শুরু হতে ঘণ্টাখানেক দেরি হয়। দুই উইকেটে ১০১ রান নিয়ে দিন শুরু করা নিউজিল্যান্ড ভারতীয় পেইসারদের তোপে ২৪৯ রানে অলআউট হয়ে যায়।

শূন্য রানে অপরাজিত থেকে সেশন শুরু করা রস টেইলর আউট হন ১১ রান করে। অভিজ্ঞ ব্ল্যাকক্যাপসকে আউট করেন মোহাম্মদ শামি।

এরপর দ্রুত বিদায় নেন হেনরি নিকোলস ও বিকে ওয়াটলিং। নিকোলসকে সাত রানে আউট করেন ইশান্ত। আর এক রান করে ওয়াটলিং সাঁজঘরে ফেরেন শামির বলে।

কলিন ডে গ্র্যান্ডহোম ও কাইল জেমিসনকেও তুলে নেন শামি। গ্র্যান্ডহোমের ব্যাট থেকে আসে ১৩ আর জেমিসন করেন ২১ রান।

এল প্রান্ত আগলে রাখা কেইন উইলিয়ামসনের মূল্যবান উইকেটটি নেন ইশান্ত। নিউজিল্যান্ড অধিনায়কের কাছ থেকে আসে ৪৯ রান।

অধিনায়কের বিদায়ের পর বেশিক্ষণ টেকেনি ব্ল্যাকক্যাপস ইনিংস। ২৪৯ রানে অলআউট হয় তারা।

ইশান্ত শর্মা ৪৮ রানে ৩টি আর মোহাম্মদ শামি ৭৬ রানে ৪টি উইকেট নেন।

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও শুভমান গিলকে হারায় ভারত। দুইজনই এলিবিডব্লিউ হন টিম সাউদির বলে।

রোহিত করেন ৩০ আর গিলের ব্যাট থেকে আসে আট রান।

দিনের খেলা শেষে ভারতের হয়ে উইকেটে ছিলেন ভিরাট কোহলি ও চেতেশ্বর পুজারা। কোহলি অপরাজিত ৮ রানে আর পুজারা খেলছেন ১২ রান নিয়ে।

শেয়ার করুন

আঙুলের চোটে ডিপিএল শেষ মুশফিকের

আঙুলের চোটে ডিপিএল শেষ মুশফিকের

আবাহনীর হয়ে ব্যাটিংয়ে মুশফিক। ফাইল ছবি

গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের বিপক্ষে ম্যাচে কিপিং করার সময় আঙুলে ব্যথা পান অভিজ্ঞ এই টাইগার। মঙ্গলবার সকালে স্ক্যান করে তার বাঁ হাতের তর্জনীতে সূক্ষ্ম চিড় ধরা পড়ে।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) চোট পাওয়া ক্রিকেটারদের তালিকায় যোগ হলো মুশফিকুর রহিমের নাম। জাতীয় দল ও আবাহনী লিমিটেডের এই ব্যাটসম্যান আঙুলে ব্যথা পেয়েছেন।

তার চোটের খবরটি মঙ্গলবার বিকেলে নিশ্চিত করে বিসিবি। বাংলাদেশ ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা জানিয়েছে, আবাহনীর শেষ খেলা গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের বিপক্ষে ম্যাচে কিপিং করার সময় আঙুলে ব্যথা পান অভিজ্ঞ এই টাইগার।

মঙ্গলবার সকালে স্ক্যান করে তার বাঁ হাতের তর্জনীতে সূক্ষ্ম চিড় ধরা পড়ে। ফলে বিসিবি তাকে পূর্ণাঙ্গ বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দিয়েছে। সামনে বাংলাদেশের জিম্বাবুয়ে সফরে যাওয়ার কথা।

দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানকে পুরো ফিট অবস্থায় পেতে চায় বোর্ড। পুরো সফর না খেললেও ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলার কথা মুশফিকের।

বিশ্রামে থাকায় আবাহনীর হয়ে সুপার লিগের বাকি ম্যাচগুলো মিস করবেন তিনি। মুশফিকের আগে ডিপিএল থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেন সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল।

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের অধিনায়ক সাকিব ছুটি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পরিবারের সঙ্গে আছেন। আর প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে খেলা তামিমও আছেন বিশ্রামে।

তিন মূল ক্রিকেটার দলের সঙ্গে জিম্বাবুয়ে সফরে যোগ দেবেন। ডিপিএল শেষে ২৯ বা ৩০ জুন বাংলাদেশ দলের জিম্বাবুয়ে যাওয়ার কথা।

৭ জুলাই থেকে শুরু হওয়ার কথা বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে ১ টেস্ট, ৩ ওডিআই ও ৩ টি-টোয়েন্টির সিরিজ।

শেয়ার করুন

মহারাজের হ্যাটট্রিকে সিরিজ সাউথ আফ্রিকার

মহারাজের হ্যাটট্রিকে সিরিজ সাউথ আফ্রিকার

জেসন হোল্ডারকে আউট করার পর উচ্ছ্বসিত কেশভ মহারাজ। ছবি: এএফপি

স্বাগতিক দল ১৬৫ রানে অলআউট হওয়ায় সাউথ আফ্রিকা পায় ১৫৮ রানের জয় আর ২-০ ব্যবধানে নিজেদের করে নেয় সিরিজ।

সেইন্ট লুসিয়া টেস্টে সিরিজে সমতা ফেরানোর জন্য নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৩২৪ রানের লক্ষ্য ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের সামনে। সেই লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে মুখ থুবড়ে পড়ে তাদের ব্যাটিং লাইন আপ। সাউথ আফ্রিকার স্পিনার কেশভ মহারাজ হ্যাটট্রিকসহ পাঁচ উইকেট নিয়ে গুড়িয়ে দেন উইন্ডিজকে।

স্বাগতিক দল ১৬৫ রানে অলআউট হওয়ায় সাউথ আফ্রিকা পায় ১৫৮ রানের জয় আর ২-০ ব্যবধানে নিজেদের করে নেয় সিরিজ।

চতুর্থ দিন সকালে বিনা উইকেটে ১৫ রান নিয়ে খেলতে নেমে শুরুতেই ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েইটের উইকেট হারার উইন্ডিজ। ৬ রান করে কাগিসো রাবাডার বলে আউট হন ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক।

ওয়ান ডাউনে নামা শেই হোপকে দুই রানে ফিরিয়ে স্বাগতিকদের বিপর্যয়ের দিকে ঠেলে দেন রাবাডা।

এরপরই আসে ইনিংসে উইন্ডিজের সবচেয়ে সফল জুটি। তৃতীয় উইকেটে কাইল মায়ার্স ও কিরেন পাওয়েল ৬৪ রান যোগ করেন।

৩৪ রান করা মায়ার্সকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙ্গেন রাবাডা। অন্যপ্রান্তে নিজের সপ্তম টেস্ট ফিফটি তুলে নেন পাওয়েল।

৫১ রান করে মহারাজের বলে আউট হন তিনি। উইন্ডিজ ইনিংসের তখন ৩৭ তম ওভার। তৃতীয় বলে পাওয়েলকে ফেরানোর পরের বলেই জেসন হোল্ডারকে আউট করে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগান মহারাজ।

পরের বলে জশুয়া সিলভাকে আউট করে দ্বিতীয় সাউথ আফ্রিকান বোলার হিসেবে টেস্ট ম্যাচে হ্যাটট্রিক করার অনন্য রেকর্ড গড়েন মহারাজ।

তার আগে জেফ গ্রিফিন ১৯৬০ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সবশেষ প্রোটিয়াদের হয়ে টেস্টে হ্যাটট্রিক করেন।

মহারাজের হ্যাটট্রিকের পর খুব বেশিক্ষণ টেকেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস। শেষ দিকে জারমেইন ব্ল্যাকউডের ২৫ ও কিমার রোচের ২৭ রানের ইনিংসে ব্যবধান কমায় উইন্ডিজ।

মহারাজ হ্যাটট্রিকসহ ৩৬ রানে পাঁচ উইকেট নেন। টেস্টে এটি তার সপ্তম ফাইভ-ফর। রাবাডা ৪৪ রানে নেন তিন উইকেট।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২৯৮ রান করে সাউথ আফ্রিকা। তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে সংগ্রহ ছিল ১৭৪।

আর স্বাগতিক উইন্ডজ দ্বিতীয় ইনিংসে ১৬৫ রানে গুটিয়ে যাওয়ার আগে প্রথম ইনিংসে ১৪৯ রানে অলআউট হয়।

দুই টেস্ট জিতে স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস ট্রফি নিজেদের কাছেই রেখে দেয় সাউথ আফ্রিকা।

রোববার থেকে শুরু হচ্ছে দুই দলের ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

শেয়ার করুন

পুলিশের শুভেচ্ছাদূত শোয়েব আখতার

পুলিশের শুভেচ্ছাদূত শোয়েব আখতার

পাকিস্তান মোটরওয়ে পুলিশের ক্রেস্ট গ্রহণ করছেন শোয়েব আখতার। ছবি: টুইটার

৪৫ বছর বয়সী এই সাবেক ফাস্ট বোলার নিজের টুইটার ও ইন্সটাগ্র্যাম অ্যাকাউন্ট থেকে পাকিস্তান মোটরওয়ে পুলিশের সঙ্গে নিজের একটি ছবি পোস্ট করেন ও তাদের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ শুরু করার ঘোষণা দেন।

পাকিস্তান মোটরওয়ে পুলিশের শুভেচ্ছাদূত নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক পাকিস্তানি ফাস্ট বোলার শোয়েব আখতার। শোয়েব নিজেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই খবরটি নিশ্চিত করেন।

সোমবার রাতে ৪৫ বছর বয়সী এই সাবেক ফাস্ট বোলার নিজের টুইটার ও ইন্সটাগ্র্যাম অ্যাকাউন্ট থেকে পাকিস্তান মোটরওয়ে পুলিশের সঙ্গে নিজের একটি ছবি পোস্ট করেন ও তাদের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ শুরু করার ঘোষণা দেন।

মোটরওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে শোয়েবকে একটি ক্রেস্ট উপহার দেওয়া হয়। ছবির সঙ্গে পোস্টে শোয়েব লেখেন, ‘মোটরওয়ে পুলিশের সঙ্গে শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ করতে পেরে গর্বিত। আশা করি সড়ক দূর্ঘটনা কমাতে মানুষের সচেতনতা বাড়াতে কাজ করতে পারব ও সবাইকে ট্রাফিক আইন নিয়ে জানাতে পারব। আমাদের সবারই সুনাগরিক হিসেবে আইন মেনে চলা উচিত।’

পাকিস্তানের হয়ে ১৯৯৭ সালে ক্যারিয়ার শুরুর পর ৪৬টি টেস্ট ও ১৬৩টি ওয়ানডে খেলেন শোয়েব আখতার। ১৪ বছরের ক্যারিয়ারে ১৭৮টি টেস্ট ও ২৪৭ ওয়ানডে উইকেট শিকার করেন এই ফাস্ট বোলার।

গতির জন্য খ্যাত এই বোলার ২০০৩ সালের বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে একটি ডেলিভারি ঘণ্টায় ১৬১.৩ কিমি (১০০.০২ মাইল) গতিতে করেন। যেটি এখন পর্যন্ত ক্রিকেটে রেকর্ড করা সবচেয়ে দ্রুতগতির ডেলিভারি।

ফাস্ট বোলারদের মধ্যে শোয়েব আখতারই প্রথম ১০০ মাইলের চেয়ে জোরে বল করেন।

ক্যারিয়ার জুড়ে ডোপ, শৃঙ্খলা ভঙ্গের জন্য একাধিক বার নিষেধাজ্ঞায় পড়া শোয়েবের বর্ণিল ক্রিকেট ক্যারিয়ার শেষ হয় ২০১১ বিশ্বকাপের পর।

শেয়ার করুন