সেপটিক ট্যাংকের গ্যাসে প্রাণ গেল ২

সেপটিক ট্যাংকের গ্যাসে প্রাণ গেল ২

ঝালকাঠিতে নির্মাণাধীন ভবনের সেপটিক ট্যাংকের বিষাক্ত গ্যাসে প্রাণ গেছে দুইজনের। ছবি: নিউজবাংলা

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে কাঠালিয়া থানার ওসি পুলক চন্দ্র রায় জানান, মহিষকান্দি গ্রামের মিরাজ খানের নির্মাণাধীন বাড়ির সেপটিক ট্যাংকের সেন্টারিং রাজমিস্ত্রি আসাদুল খুলতে যান। ট্যাংকের ভেতরে ঢুকে সেন্টারিংয়ের কাঠ খুলতে গেলে বিষাক্ত গ্যাসে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় নির্মাণাধীন বাড়ির নতুন সেপটিক ট্যাংকের সেন্টারিং খুলতে গিয়ে বিষাক্ত গ্যাসে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে।

উপজেলার চেঁচরীরামপুর ইউনিয়নের মহিষকান্দি গ্রামে মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন ভান্ডারিয়া উপজেলার গাজীপুর গ্রামের রাজমিস্ত্রি আসাদুল। মহিষকান্দি গ্রামের মজনু।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন একই গ্রামের শুভ নামের একজন।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে কাঠালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পুলক চন্দ্র রায় জানান, মহিষকান্দি গ্রামের মিরাজ খানের নির্মাণাধীন বাড়ির সেপটিক ট্যাংকের সেন্টারিং খুলতে যান রাজমিস্ত্রি আসাদুল। ট্যাংকের ভেতরে ঢুকে সেন্টারিংয়ের কাঠ খুলতে গেলে বিষাক্ত গ্যাসে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

এ অবস্থা দেখে বাড়ির মালিক পলাশ খান প্রতিবেশী মজনুকে ডেকে রাজমিস্ত্রিকে উদ্ধার করতে বলেন। মজনু ওই মিস্ত্রিকে উদ্ধার করতে ট্যাংকের ভেতরে ঢুকলে তিনিও অসুস্থ হয়ে পড়েন।

ওসি আরও জানান, এ সময় শুভ নামের অপর এক প্রতিবেশী ওই দুজনকে উদ্ধার করার জন্য গেলে তিনিও অসুস্থ হয়ে পড়েন।

পরে অসুস্থ তিনজনকে পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে মজনু ও আসাদুলের মৃত্যু হয়। শুভকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়।

ওসি পুলক জানান, দুপুরে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মরদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য পিরোজপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
সেপটিক ট্যাংকে পড়ে প্রাণ গেল শিশুর
সেপটিক ট্যাংকে শ্রমিকের মৃত্যু
সেপটিক ট্যাংকের গ্যাসে ২ জনের মৃত্যু
সেপটিক ট্যাংকে পড়ে শিশুর মৃত্যু
সেপটিক ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেল ২ শ্রমিকের

শেয়ার করুন

মন্তব্য