ইউপি সদস্যপুত্র-পক্ষের হামলায় আহত ১৫

ইউপি সদস্যপুত্র-পক্ষের হামলায় আহত ১৫

হামলায় আহত কয়েকজন। ছবি: নিউজবাংলা

সন্ধ্যায় মজলিশপুর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার হারিজ মিয়ার ছেলে রুবেল একই এলাকার জাহাঙ্গীরের ঘর থেকে হাঁসের বাচ্চা নিয়ে আসছিলেন। দেখতে পেয়ে বাধা দিলে জাহাঙ্গীর ও তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে রুবেলের কথা-কাটাকাটি হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হাঁসের বাচ্চা নিতে বাধা দেয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্যের ছেলের পক্ষের হামলায় ১৫ জন আহত হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার মইন্দ গ্রামের মধ্যপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন শিপন, জাহাঙ্গীর, শাহাঙ্গীর, হুমায়ন, তাছলিমা, মোছা. তারিন, সজিব, জসিম উদ্দিন, সোলায়মান, রিমা আক্তার, আক্তার, খোকন মিয়া, ইয়াসমিন, মুখলেস মিয়া, বড় আবু।

তাদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তার মধ্যে গুরুতর আহত তাছলিমা, জাহাঙ্গীর ও শিপনকে হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত ব্যক্তিদের পরিবারের সদস্যরা জানান, সন্ধ্যায় মজলিশপুর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার হারিজ মিয়ার ছেলে রুবেল একই এলাকার জাহাঙ্গীরের ঘর থেকে হাঁসের বাচ্চা নিয়ে আসছিলেন। দেখতে পেয়ে বাধা দিলে জাহাঙ্গীর ও তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে রুবেলের কথা-কাটাকাটি হয়।

খবর পেয়ে রুবেলের পক্ষের লোকজন সেখানে গিয়ে জাহাঙ্গীরের ওপর হামলা চালায়। তাকে বাঁচাতে গিয়ে এ সময় আরও ১৪ জন আহত হন।

জাহাঙ্গীরের মেয়ে তারিন অভিযোগ করেন, রুবেল এলাকায় মাদকসেবী ও জুয়াড়ি হিসেবে পরিচিত। তার বাবা বর্তমানে ইউপি সদস্য হওয়ায় কাউকে মানে না। এর আগে সে এলাকার বিভিন্ন বাড়ি থেকে বিভিন্ন জিনিসপত্র নিয়ে গেছে। তবে কেউ বিচার পায়নি।

সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে।

আরও পড়ুন:
‘চাঁদা না দেয়ায়’ বিসিবির আম্পায়ারকে ছুরিকাঘাত
ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে জখম
চাঁদা না পেয়ে পাউবো কর্মচারীর ওপর ‘হামলা’
আসামি ধরতে গিয়ে হামলার শিকার এসআই
ভাই নির্বাচন করায় প্রবাসীর বাড়িতে হামলার অভিযোগ

শেয়ার করুন

মন্তব্য